চাঁদার জন্য মারধরের মামলায় আসামী-৫

নিজস্ব প্রতিবেদক॥ চাঁদার দাবীতে মারধরের অভিযোগে ছাত্রলীগ ক্যাডার সহ ৫ জনকে অভিযুক্ত করে মামলা করা হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার নগরীর চহুতপুরের আলেয়া বেগম বাদী হয়ে মেট্রোপলিটন ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে এ মামলা করেন। আদালতের বিচারক মোঃ রফিকুল ইসলাম মামলাটি পুলিশ ব্যুরো ইনভেষ্টিগেশন (পিবিআই) অথবা পুলিশ সুপার (এসপি)কে তদন্তের নির্দেশ দেন। অভিযুক্তরা হলো নগরীর ইছাকাঠির বাসিন্দা আজাহারের ছেলে ছাত্রলীগ ক্যাডার রাইফেল মহিউদ্দিন, চহুতপুরের বাসিন্দা সৈয়দ মামুনের ছেলে রাব্বি, কামাল উদ্দিনের ছেলে সুমন, মৃত মকবুল মীরের ছেলে মামুন ও জহিরের ছেলে নয়ন। মামলার বিবরনীতে জানাগেছে, বাদীর গাড়ির ব্যবসা আছে। সেই সূত্রে অভিযুক্তরা প্রায়ই বাদীর কাছে দেড় লাখ টাকা চাঁদা দাবী করে আসছিল। এতে অস্বীকার করায় গত ১১ আগষ্ট সন্ধ্যা ৭টায় ফিসারী রোড নতুন বাড়ীর সামনে আলেয়া বেগম সহ ২ জনকে আটক করে অভিযুক্তরা। এ সময় তাদের মাথায় পিস্তল ঠেকিয়ে পূর্বের দাবীকৃত চাঁদার জন্য মারধর করে। এ সময় ডাকচিৎকারে অভিযুক্তরা পালিয়ে যায় এবং টানা না দিলে গাড়ির ব্যবসা করতে না দেয়া ও হত্যার হুমকি দেয়। এ ঘটনায় মামলা করলে বিচারক ওই আদেশ দেন।