গৌরনদী উপজেলা চেয়ারম্যান পদে উপ-নির্বাচন আ.লীগের প্রার্থী ঘোষনা সিদ্ধান্তহীনতায় বিএনপি

গৌরনদী প্রতিবেদক ॥ বরিশালের গৌরনদী উপজেলা চেয়ারম্যান মো. শাহ আলম খানের মৃত্যুতে ঘোষিত উপজেলা চেয়ারম্যান পদে উপ-নির্বাচনের তফসিল ঘোষনার সঙ্গে সঙ্গে শীতকে উপেক্ষা করে দলীয় মনোনয়ন পেতে চলছে গ্রুপিং লবিং। তফসিল অনুযায়ী ৯ ফেব্রুয়ারি মনোনয়ন দাখিলের শেষ দিন। গতকাল আওয়ামী লীগের প্রার্থী ঘোষনা হয়। বিএনপি প্রার্থী নির্বাচন এখনো সিদ্ধান্তহীনতায় রয়েছে।
গৌরনদী উপজেলা নির্বাচন অফিসার মো. মিজানুর রহমান জানান, গত বছর ১৯ ফেব্রয়ারি গৌরনদী উপজেলা চেয়ারম্যান মো. শাহ আলম খানের মৃত্যুতে পদটি শুন্য ঘোষনা করা হয়। নির্বাচন কমিশনের ঘোষিত তফসিল অনুযায়ি ৯ ফেব্রুয়ারি মনোনয়ন পত্র দাখিলের শেষ দিন। মনোনয়নপত্র বাছাই ১১ ফেব্রয়ারি এবং প্রত্যাহার ১৮ ফেব্রুয়ারি। প্রধান রাজনৈতিক দল আওয়ামী লীগ ও বিএনপির দলীয় সূত্র জানান, তফসিল ঘোষনার সঙ্গে সঙ্গে দুইটি বড় রাজনৈতিক দলের সাম্ভব্য প্রার্থীরা দলের মধ্যে গ্রুপিং ও লবিং শুরু করে। স্থানীয় মনোনয়ন বোর্ডের সদস্যদের কাছে ধর্না দিচ্ছেন মনোনয়ন প্রত্যাশী নেতা কর্মিরা।
গৌরনদী উপজেলা আওয়ামী লীগের দলীয় সূত্র জানায়, আসন্ন উপজেলা পরিষদের উপ-নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন বোর্ডের কাছে মনোনয়ন চেয়ে আবেদন করেছেন ১১ জন নেতা কর্মি। তার মধ্যে রয়েছে বর্তমান ভারপ্রাপ্ত উপজেলা চেয়ারম্যান মহিলা আওয়ামী লীগের গৌরনদী উপজেলা সভাপতি সৈয়দা মনিরুন নাহার মেরী, উপজেলা ভাইসচেয়ারম্যান ও গৌরনদী উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক মো. নুরুজ্জামান ফরহাদ মুন্সী, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. জয়নাল আবেদীন হাওলাদার, প্রায়াত উপজেলা চেয়ারম্যান মো. শাহ আলম খানের স্ত্রী শাহিনা খান, উপজেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র নেতা আকবর হোসেন ফারুক, আবু সাঈদ নান্টু, ইটালী আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক কামরুল হাসান দিলিপ, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. মনির হোসেন মিয়া, বিএনপি থেকে সদ্য আওয়ামী লীগে যোগদানকারী অ. লীগ নেতা মো. লোকমান হোসেন খান, উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মো. মকবুল সরদার ও উপজেলা আ. লীগ নেতা মো. মামুন মোল্লা।
আওয়ামী লীগের একাধিক দলীয় সূত্র জানায়, দলীয় মনোনয়ন চূড়ান্ত করতে শুক্রবার বরিশাল-১ আসনের সংসদ সদস্য ও বরিশাল জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ সভাপতিত্বে তার সেরালস্থ বাসভবনে মনোয়ন বোর্ডের সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক ও বরিশাল-২ আসনের সাংসদ অ্যাডভোকেট তালুকদার মো. ইউনুসসহ অন্যান্য সদস্যরা। সভায় আওয়ামলীগের প্রার্থী হিসেবে বর্তমান ভারপ্রাপ্ত উপজেলা চেয়ারম্যান সৈয়দা মনিরুন নাহার মেরীকে স্থানীয়ভাবে প্রার্থী ঘোষনা করা হয়।
উপজেলা বিএনপির নির্ভরযোগ্য একাধিক সূত্র জানান, উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে বিএনপি প্রার্থী সংকটে রয়েছে। বর্তমান সরকারের অধীনে পূর্ববর্তি নির্বাচনী অভিজ্ঞাতার কারনে বিএনপির সিনিয়র ও গ্রহনযোগ্য নেতারা প্রার্থী হতে রাজি হননি। নাম প্রকাশ না করার শর্তে উপজেলা বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক জানান, তফসিল ঘোষনার পরে সাম্ভব্য প্রার্থী খুজে বের করতে তাকে দায়িত্ব প্রদান করা হয়। কিন্তু কয়েকজন নেতার সঙ্গে যোগাযোগ করলে তারা প্রার্থী হতে অনাগ্রহ দেখান। প্রার্থী চূড়ান্ত করতে সিদ্ধান্তহীনতায় রয়েছে তাদেরন দল। উপজেলা বিএনপির আহবায়ক মো. আবুল হোসেন বলেন, বিএনপি বড় দল আমােেদর কোন প্রার্থী সংকট নেই। দলীয় সাম্ভব্য প্রার্থী হিসেবে উপজেলা বিএনপির সাধারন সম্পাদক মো. আবুল হোসেন মিয়ার স্ত্রী একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পরিচালক মাকসুদা হোসেন ও উপজেলা বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক মাষ্টার গোলাম হোসেনের নাম শোনা যাচ্ছেবলে দলীয় একাধিক সূত্র জানান।