গৌরনদীতে দু’গ্রুপের সংঘর্ষে আহত-১০, আটক-১

গৌরনদী প্রতিবেদক ॥ জমি নিয়ে বিরোধের জের ধরে গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে বরিশালের গৌরনদী উপজেলার বার্থী গ্রামে দু’গ্রুপের মধ্যে হামলা-পাল্টাহামলা ও সংঘর্ষে দুই মহিলাসহ উভয় পক্ষের ১০ জন আহত হয়েছে। পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। গুরুতর আহত অবস্থায় দুই জনকে বরিশাল শেরে-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ও ৮ জনকে গৌরনদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে একজনকে আটক করেছে।
আহত, পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, উপজেলার বার্থী গ্রামের পল্লী চিকিৎসক হেলাল আকন ও মাছের আড়তদার সিরাজ হাওলাদার গংদের মধ্যে জমিজমা নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল। এ নিয়ে একাধিকবার বার্থী ইউপি চেয়ারম্যান শাহজাহান প্যাদার উপস্থিতিতে গ্রাম্য সালিস বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। সর্বশেষ মিমাংসা বৈঠকের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী সিরাজ হাওলাদার গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে ওই সম্পত্তির ওপর ঘর নির্মাণ করতে যায়। এসময় হেলাল আকন বাঁধা দিলে উভয়ের মধ্যে বাকবিতন্ডা বাঁধে। এক পর্যায়ে সিরাজ ও তার সমর্থকরা হামলা চালিয়ে হেলাল আকনকে রক্তাক্ত জখম করে।
এসংবাদ ছড়িয়ে পড়লে হেলালের আত্মীয়-স্বজন ও সমর্থকরা দেশীয় ধারালো অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেল তিনটার দিকে পাল্টাহামলা চালালে উভয় গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ বাঁধে। হামলা ও সংঘর্ষে সবুজ হাওলাদার, বেল্লাল হাওলাদার, হেলাল আকন, শহিদ বেপারী, সিরাজ হাওলাদার, মিরাজ হাওলাদার, খাইরুল হাওলাদার, রুবি বেগম, মর্জি বেগমসহ উভয় পক্সের ১০ জন আহত হয়। গুরুতর আহত সবুজ হাওলাদার, বেল্লাল হাওলাদারকে বরিশাল শেরে-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ও হেলাল আকন, শহিদ বেপারীকে গৌরনদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। অন্যান্যরা গৌরনদী হাসপাতাল থেকে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছে। গৌরনদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সাজ্জাদ হোসেন জানান, ঘটনাস্থল থেকে হামলাকারী শাহজাহান বেপারীকে আটক করেছে পুলিশ। তবে এখনও)কোন মামলা করেনি।