গর্ভপাতে রোগীর মৃত্যুর অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ গর্ভপাত করাতে এসে চিকিৎসকের অবহেলায় গৃহবধূর মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। গতকাল বুধবার সকাল সাড়ে ৮টায় নগরীর আম্বিয়া মেমোরিয়াল হাসপাতালে এ ঘটনা ঘটে। মারা যাওয়া গৃহবধূ হলো- পাথরঘাটা উপজেলার জাহিদ হাসানের স্ত্রী শিল্পি আক্তার (২৭)।
মৃতের পরিবার জানায়, ডা. মোখলেছুর রহমান ক্লিনিকের চিকিৎসক মমিনুল হকের কাছে মঙ্গলবার রাতে স্ত্রী শিল্পী আক্তারকে স্বামী মো: জাহিদ হাসান নিয়ে আসে।
দম্পত্তি চিকিৎসকের সাথে গর্ভপাতের পরামর্শ চায়। তখন ওই চিকিৎসক তাদের রাতেই নগরীর বগুড়া রোডে অবস্থিত আম্বিয়া মেমোরিয়াল হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার পরামর্শ দেয়। সেখানে ভর্তি হওয়ার পর গর্ভপাতের জন্য ট্যাবলেট সেবন ও ৪টি স্যালাইন পুশ করে। রাতে শিল্পী অসুস্থ হয়ে পড়লে হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক ও নার্সদের একাধিকবার বিষয়টি অবহিত করা হয়। কিন্তু তারা আসেননি বলে শিল্পীর স্বামী অভিযোগ করে। সকালে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ শিল্পীকে মৃত ঘোষণা করেন। হাসাপাতালের কর্তব্যরত কর্মকর্তারা ঘটনা আড়াল করতে সাংবাদিকদের কোন প্রকার তথ্য দিতে অপরাগতা প্রকাশ করেন।
অভিযুক্ত চিকিৎসক ডা. মমিনুল হক অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, ওই রোগীকে আমি দেখিনি। আমাকে মোবাইল ফোনে রোগীর স্বজনরা আম্বিয়া মেমোরিয়াল হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার কথা জানালে আমি সেখানকার কর্তব্যরত চিকিৎসক ও নার্সদের রোগীকে সুস্থ করার নির্দেশ দেই। তখন হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের তত্ত্বাবধানেই তাকে ওষুধ সেবন ও স্যালাইন পুশ করানো হয়।