খাদ্যে বিষক্রিয়ায় অসুস্থ্য হয়ে ৫১ শিক্ষার্থী হাসপাতালে

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ খাদ্যে বিষক্রিয়া আক্রান্ত হয়ে সদর উপজেলার চরবাড়িয়া ইউনিয়নের উলালঘুনী রাঢ়ীমহল ইসলামীয়া মাদ্রাসার শিক্ষক সহ কমপক্ষে ৫২ জন শিক্ষার্থী অসুস্থ হয়ে পড়েছে। গতকাল মঙ্গলবার রাত ৯টার দিকে অসুস্থদের মধ্যে ৫১ জনকে বরিশাল জেনারেল (সদর) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তারা ওই মাদ্রাসার হেফজ, নূরানী এবং নাজরানা বিভাগের ছাত্র। চিকিৎসক জানিয়েছেন, অস্বাস্থ্যকর খাবার খেয়ে মাদ্রাসা শিক্ষার্থীরা ডায়েরী জনিত করনে অসুস্থ হয়ে পড়েছে। তবে বর্তমানে সবাই আশংকা মুক্ত। আগামী ২৪ ঘন্টার মধ্যে তারা সবাই পুরোপুরি সুস্থ হয়ে ওঠবে।
মাদ্রাসার ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আনোয়ার হোসেন বলেন, দুপুরে মাদ্রাসার ৫৭ জন শিক্ষার্থীর মধ্যে ৫২ জন শিক্ষার্থী লাউ, ভাজি এবং ডাল দিয়ে ভাত খাবার পরে বিশ্রামে যায়। বাকি ৫ জন ছুটি থাকায় তারা খাবার খায়নি। তাছাড়া একই সময় আরো ৫ জন শিক্ষক একই খাবার খান।
এদিকে দুপুরে খাবার খাওয়ার কিছুক্ষন পর পরই একে একে শিক্ষার্থীদের পেটের পিঁড়া এবং বমি এবং পতলা পায়খানা শুরু হয়। সন্ধ্যা নাগাদ মাদ্রাসার শিক্ষার্থীরা গনহারে অসুস্থ হয়ে পড়ে। পরবর্তীতে চিকিৎসকদের পরামর্শ অনুযায়ী রাত ৯টার দিকে গুরুতর অসুস্থ শিক্ষক সহ ৫১ জন শিক্ষার্থীকে বরিশাল জেনারেল (সদর) হাসপাতালে ডায়রীয়া ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়। এর বাইরে বেশ কয়েকজন শিক্ষার্থীকে তাদের বাড়িতে নিয়ে গেছেন অভিভাবকরা।
বরিশাল জেনারেল হাসপাতালে আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডাঃ মো. দোলয়ার হোসেন বলেন, এখন পর্যন্ত মাদ্রাস ছাত্র ইমাম উদ্দিন, মো. ইয়ামিন, মো. ফয়েজ, মো. মামুন, মো. মুছা, মো. ছাব্বির, আ. রব, আব্দুর রহমান, নূরুল ইসলাম, আবু নাঈম, আসাদুজ্জামান, মো. জানায়েত, মো. হাসান, জিহাদ, সাইফুল, নাজমুল, তাজুল, ছাব্বির, নাইম, আজিম মীর, ফয়সাল, সায়েম, হাসান, ওয়ালিউল্লাহ, মো. মুছা, শামিম, জুবায়ের, আবু রায়হান, মো. রাকিব, মো. মিনহাজ ও রাকিবুল ইসলাম সহ ৫২ জন খাবার খেয়ে অসুস্থ হয়ে পড়ে। এর মধ্যে ৫১ জনকে হাসপাতালের ডায়েরী ওয়ার্ডে ভর্তি রেখে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।
বরিশাল জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ও বরিশাল জেলার সিভিল সার্জন ডা. এএফএম শফিউদ্দিন আহমেদ বলেন, সন্ধ্যার পূর্বে আমি বিষয়টি জানতে পেরে ওই মাদ্রাসায় একজন শিক্ষক সহ একটি প্রতিনিধি দল পাঠিয়েছি। তাদের পরামর্শ অনুযায়ী শিক্ষার্থীদের দ্রুত হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
তিনি বলেন, বিষয়টি খোঁজ খবর নিয়ে দেখেছি। মাদ্রাসা শিক্ষার্থীদের খিচুরী খাওয়ানো হয়েছিলো। পূর্বের দিনের খিচুরী ফ্রিজে রাখা ছিলো। সেগুলো গতকাল মঙ্গলবার পূণরায় খাওয়ানো হয়েছে। সেই খিচুরী থেকেই পেটে বিষক্রিয়া সৃষ্টি হয়। যার কারনে শিক্ষার্থীদের ডায়েরীয়া হয়েছে। বর্তমানে তাদের সকলকে হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। তারা সবাই আশংকামুক্ত বলে জানিয়েছেন সিভিল সার্জন।