খবরটি বেশ আতংকের

খবরটি বেশ আতংকের আমাদের সবার জন্য। গতকাল পত্রিকার পাতায় যে সংবাদ আমরা দেখলাম তাতে করে অজানা আতংক তাড়া করছে আমাদের সবাইকে। গতকাল দৈনিক পরিবর্তনের প্রধান সংবাদের শিরোনাম ছিলো ডায়রিয়ায় ভোই-বোনের মৃত্যু। খবরের ভেতরের খবরে বলা হয়েছে সদর উপজেলার চরমোনাই ইউনিয়নে একই পরিবারের ৭ সদস্য দুপুরের খবার পরে অসুস্থ হয়ে পড়ে। এর মধ্যে একজন ঘটনাস্থলেই মারা যায়। বাকীদের স্থানীয়রা বরিশাল হাসপাতালে নিয়ে আসলে এদের মধ্যে আরো এক জনের মৃত্যু হয়। বাকী আসুস্থদের অবস্থা তেমন একটা ভাল নয়। অসুস্থরা দাবী করেছেন তারা দুপুরের খাবার পরে অসুস্থ হন। বাবার পায়খানা হওয়ায় তাদের ধারনা ডায়রিয়া হয়েছে। অসুস্থের কিছুক্ষনের মধ্যে এক শিশু মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ে। আর বরিশালের সিভিল সার্জন দাবী করেছেন যাদের মৃত্যু হয়েছে তারা ডায়রিয়ার কারনে মারা যায়নি। তাদের মৃত্যু হয়েছে খাদ্যে বিষক্রিয়ায় দু,জনের মৃত্যু হয়েছে। তবে যে যাই বলুকনা কেন বিষয়টিকে ছোট ভাবলে হবেনা। এর পূর্বে এ রকম কোন ঘটনা ঘটেনি। ডায়রিয়ায় মারা যাক কিংবা অন্য কোন বিষক্রিয়ায় মৃত্যু হোক সেটা সংশ্লিষ্টদের বের করতে হবে। এ নিয়ে চিকিৎসকদের সমন্বয়ে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করে মূল কারন বের করতে হবে। যে ঘটনা ঘটেছে সেটা যে পরবর্তীতে ভয়াভহ আকার ধারন করবেনা এর কোন নিশ্চয়তা নেই। আজকে সবার মধ্যে যে আতংক বিরাজ করছে সেটা দূর করতে হলে এ রোগের কারন বের করে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহন করতে হবে। চিকিৎসকরা বলেছেন ডায়রিয়ায় মারা যায়নি। আমাদের প্রশ্ন তাহলে কিসে মারা গেছে সেটাতো স্পষ্ট করার প্রয়োজন রয়েছে।