ক্ষতিকর রাসায়নিক দ্রব্যে মিশ্রিত ফল বিক্রি হবে না পিরোজপুরে

পিরোজপুর প্রতিবেদক॥ গতকাল বুধবার থেকে পিরোজপুর শহরে ক্ষতিকর রাসায়নিক পদার্থমিশ্রিত ফল বিক্রি হবে না। এমনটাই প্রতিজ্ঞা করেছে পিরোজপুরের ফল ব্যবসায়ীরা। মোবাইল কোর্ট আতঙ্কে বিগত দুই দিন ফলের দোকান বন্ধ রাখার পর মঙ্গলবার জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে ফল ব্যবসায়ীরা জেলা প্রশাসকের কাছে এই প্রতিজ্ঞা করেন।
পিরোজপুর শহরের ফল ব্যবসায়ী রাজা তালুকদার বলেন, আমরা ঢাকা থেকে পাইকারি ফল বিক্রেতাদের কাছ থেকে ফল ক্রয় করি। ফলে কোন দিন ফরমালিন মিশাইনি, এমনকি জানিনা ফরমালিন কেমন। তারপরও বিভিন্ন সময় মোবাইল কোর্টের অভিযান চলাকালে আমাদের শাস্তি পেতে হয়। তাই আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি আজ (বুধবার) থেকে পরীক্ষা করার পূর্বে আমরা কোন ফল বিক্রি করব না।
পিরোজপুর সম্মিলিত ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি মোঃ আতাউর রহমান শেখ বলেন, কয়েকদিন পূর্বে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের একটি সভায় বরিশাল বিভাগীয় কমিশনার উপস্থিত ছিলেন। খাদ্যে ভেজাল এবং ফল ও মাছের সাথে ক্ষতিকর রাসায়নিক দ্রব্য ও ফরমালিন মেশানোর বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য তিনি জেলা প্রশাসনকে নির্দেশ দিয়েছেন। এরপরই পিরোজপুরের ফল ব্যবসায়ীরা আতঙ্কিত হয়ে পড়ে। তাই তারা বিগত দুই দিন তাদের দোকান বন্ধ রেখেছিল এই বিষয়ে একটি স্পষ্ট নির্দেশনা পাওয়ার জন্য। এ বিষয়ে জেলা প্রশাসনের সাথে বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয়েছে যে, আজ (বুধবার) থেকে পরীক্ষার পূর্বে তারা কোন ফল বাজারে বিক্রি করবে না।
ফলে কোন প্রকার ক্ষতিকর রাসায়নিক পদার্থ মেশানো হলে তা পাইকারি বিক্রেতারা মিশায়। এক্ষেত্রে পিরোজপুরের ফল ব্যবসায়ীরা কোন ক্রমেই জড়িত না বলে দাবি করেন তিনি।
এ ব্যাপারে পিরোজপুরের জেলা প্রশাসক এ.কে.এম. শামিমুল হক সিদ্দিকী বলেন, ফল ব্যবসায়ীদের সাথে আমাদের বৈঠক হয়েছে। আগামীকাল (বুধবার) বাংলাদেশ স্ট্যান্ডার্স এন্ড টেস্টিং ইনস্টিটিশন (বিএসটিআই) থেকে একটি দল পিরোজপুরে আসবে। তারা ফল ব্যবসায়ীদের সহযোগীতায় পরীক্ষা করবেন যে ফলে কোন প্রকার ক্ষতিকর রাসায়নিক দ্রব্য আছে কিনা। যে সকল ফলে ক্ষতিকর রাসায়নিক দ্রব্য পাওয়া যাবে, ব্যবসায়ীরা সেই ফল বিক্রি করবেন না। জেলা প্রশাসক আরও জানান প্রাথমিকভাবে কিভাবে ক্ষতিকর রাসায়নিক দ্রব্য মিশ্রিত ফল চেনা যায় সে বিষয়েও ফল ব্যবসায়ীদের ধারণা দিবে বিএসটিআই কর্তৃপক্ষ।