কুয়াকাটায় সমুদ্রে নিখোঁজ শেবাচিমের ছাত্রের লাশ উদ্ধার

নিজস্ব প্রতিবেদক॥ ডাক্তার হওয়ার স্বপ্ন পূরণ হলোনা মাহমুদ হাসান মামুনের। বন্ধুদের সাথে কুয়াকাটায় ঘুরতে গিয়ে সাগরে গোসল করতে নেমে নিখোঁজের দুই দিন পর লাশ হয়ে ফিরলো সে। গতকাল শনিবার বিকাল ৪টার দিকে কুয়াকাটার লেবুর বনের পাশে সাগর পাড় থেকে মামুনের লাশটি উদ্ধার করে পুলিশ।
এদিকে আজ রবিবার মেডিকেল কলেজ কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে মামুনের প্রথম জানাযা নামাজ অনুষ্ঠিত হবে। গতকাল রাতেই প্রশাসনিক কার্যক্রম শেষ করে লাশ নিয়ে বরিশালের উদ্দেশ্যে রওয়ানা হয়েছে তার বাবা এবং সহপাঠিরা।
অপরদিকে মামুনের মৃত দেহ উদ্ধারের সংবাদে মেডিকেল কলেজে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। সহপাঠি থেকে শুরু করে শিক্ষক এবং কর্মকর্তা-কর্মচারী সকলের মাঝেই বইছে শোকের মাতম।
কুয়াকাটায় থাকা মেডিকেল কলেজ ছাত্র এবং স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন যুব রেড ক্রিসেন্ট’র সভাপতি সাজিদুল ইসলাম সাজিদ জানান, গত বৃহস্পতিবার সকালে সংগঠনের বার্ষিক বনভোজনে বন্ধুদের সাথে কুয়াকাটায় ঘুরতে যান ৪৫তম ব্যাচের ছাত্র মাহমুদ হাসান মামুন। বিকাল ৩টার দিকে বয়া নিয়ে সাগরে গোসল করতে নেমে নিখোঁজ হন তিনি। এর পর থেকে পুলিশ, ফায়ার সার্ভিস কর্মী এবং স্থানীয়রা সাগরে তাকে খোঁজা খোঁজি করে। তবে কোথাও মামুনের সন্ধান পাননি তারা। অবশেষে নিখোঁজের দুই দিন অর্থাৎ ৪৯ ঘন্টা পর কুয়াকাটার লেবুর বন নামক স্থানে সাগর পাড়ে মামুনের লাশ ভেসে থাকতে দেখে স্থানীয়রা। পরবর্তীতে বিষয়টি পুলিশকে জানানো হলে তারা লাশটি উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করেন। এর আগে পুলিশ লাশটি উদ্ধার করে সুরত হালের জন্য থানায় নিয়ে যায়।
সাজিদ জানান, সন্ধ্যার পরে মামুনের লাশ থানায় নিয়ে যাওয়া হয়। সেখান থেকে আইনী কার্যক্রম শেষে রাতেই লাশ নিয়ে বরিশালের উদ্দেশ্যে রওয়ানা হয়ে যাবেন তারা।
এদিকে ছেলের নিখোঁজের সংবাদ পেয়ে শুক্রবার সকালেই কুয়াকাটায় ছুটে আসেন মামুনের বাবা স্কুল শিক্ষক আবুল কালাম। ছেলের লাশ দেখে শোকে পাথর হয়ে আছেন তিনি। আজ বরিশালে মামুনের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান শেবাচিমে প্রথম জানাযা শেষে বাবা এবং সহপাঠিরা লাশ পৌছে দিবেন গাজিপুর জেলার কাপাশিয়া গ্রামে। সেখানে দ্বিতীয় জানাযা শেষে দাফন সম্পন্ন করা হবে। মামুনের বাবা জানিয়েছেন মামুন তার পরিবারের বড় ছেলে। ছোট ছেলে উচ্চ মাধ্যমিক (এইচএসসি) অধ্যায়নরত। ছেলের স্বপন্ন ছিলো সে ডাক্তার হয়ে অসহায় মানুষের পাশে দাড়াবে। কিন্তু তার সেই স্বপ্ন স্বপ্নই রয়ে গেলো।