এটিএসআই’র উপর হামলার অভিযোগে তিন ছাত্রলীগ কর্মী আটক

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ পুলিশের উপর হামলার অভিযোগে নগরীর কলেজ ছাত্রলীগের তিন কর্মীকে আটক করা হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার বিকাল সাড়ে ৫টার দিকে বান্দ রোডে ভাটারখাল এলাকায় এই হামলার ঘটনা ঘটে। হামলার শিকার মো. মতিউর রহমান মেট্রোপলিটন পুলিশের ট্রাফিক বিভাগের এটিএসআই পদে কর্মরত। তাকে পুলিশ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
আটককৃত ছাত্রলীগ কর্মীরা হলো- বরিশাল অমৃত লাল দে কলেজের এইচএসসি দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র ও কাটপট্টি রোডের বাসিন্দা মো. আমজাদ হোসেন এর ছেলে আমির হোসেন খান (১৭), একই কলেজের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র, কাউনিয়া জানুকিসিং রোডের বাসিন্দা ও আওয়ামী ওলামা লীগের বরিশাল জেলার সভাপতি মাওলানা রফিকুল ইসলামের ছেলে রেদোয়ানুল ইসলাম রিফাত (১৭) এবং কাটপট্টি রোড এলাকার বাসিন্দা খলিলুর রহমান এর ছেলে ও বরিশাল সিটি কলেজের এইচএসসি দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র মার্কিনুল ইসলাম মারুফ (১৮)। এরা সবাই স্ব স্ব কলেজের মানবিক বিভাগের ছাত্র ও ছাত্রলীগ কর্মী। তাদের বিরুদ্ধে হামলার শিকার বিএমপি পুলিশের এটিএসআই মতিউর রহমান বাদী হয়ে কোতয়ালী মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।
বিষয়টি নিশ্চিত করে বিএমপি পুলিশের কোতয়ালী মডেল থানার দায়িত্বে থাকা সহকারী পুলিশ কমিশনার মো. ফরহাদ সরদার জানান, বিকালে এটিএসআই মতিউর রহমান পালসার মোটর সাইকেল যোগে বান্দ রোডের ভাটারখাল এলাকা অতিক্রম করছিলো। এসময় আটককৃতরা বিপরিত দিক থেকে মোটর সাইকেল নিয়ে এসে এটিএসআই’র মোটর সাইকেলকে ধাক্কা দেয়। এর প্রতিবাদ করতে গেলে ছাত্রলীগের তিনজন ও পুলিশ সদস্যকে বেধড়ক ভাবে পিটিয়ে আহত করে। খবর পেয়ে থানা পুলিশ ঘটনাস্থল হতে হামলাকারী তিনজনকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে।
অভিযোগের বিষয়ে আটক হওয়া তিন ছাত্রলীগ কর্মী বলেন, তারা মোটর সাইকেল চালিয়ে আসার সময় সিভিল পোশাকে থাকা পুলিশের এটিএসআই মতিউর রহমান রং সাইড দিয়ে এসে তাদের মোটর সাইকেলে ধাক্কা দেয়। এতে তিনি ক্ষিপ্ত হয়ে তাদের উপর হামলা চালায় এটিএসআই। এক পর্যায় তাদের দুই পক্ষের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। তবে তাদের দাবী ঘটনার সময় এটিএসআই মতিউর রহমান পুলিশ সদস্য হওয়ার বিষয়টি একবারের জন্য বলেননি।