এএসআই মনির হত্যায় বাস চালকের বিরুদ্ধে মামলা, দাফন সম্পন্ন

নিজস্ব প্রতিবেদক॥ যাত্রীদের নিরাপত্তা দিতে কর্তব্য পালনকালে বাস চাপা দিয়ে বিমান বন্দর থানার এএসআই মনিরুল ইসলাম হত্যায় মামলা হয়েছে। পরিকল্পিতভাবে হত্যার অভিযোগ এনে ওই থানার এসআই ফিরোজ আলম মুন্সী বাদী হয়ে মামলাটি করেছেন। মামলায় একমাত্র বাস চালক সালামকে আসামী করা হয়েছে। সে বাবুগঞ্জের ছয় মাইল এলাকার বাসিন্দা। অপরদিকে গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে মির্জাগঞ্জের গ্রামের বাড়িতে দাফন করা হয়েছে। মনিরুল মাত্র ২ মাস বয়সী কন্যা সন্তানের জনক ও মির্জাগঞ্জের আব্দুস সোবাহান মুন্সির ছেলে।
বিমানবন্দর থানার ওসি (তদন্ত) মতিয়ার রহমান জানান, সোমবার মহাসড়কের রামপট্টি এলাকায় পূর্ব পরিকপল্পনা অনুযায়ী হত্যার উদ্দেশ্যে বাস চালক চাপা দিয়েছে। তাই হত্যা মামলা হয়েছে।
তিনি জানান, বাসের চালক সালাম বাবুগঞ্জের ছয় মাইল এলাকার বাসিন্দা ও মাদক ব্যবসায়ী। তাকে কিছুদিন পূর্বে ঘটনাস্থল রামপট্টি এলাকায় তল্লাশী চৌকি স্থাপন করে বিমানবন্দর থানার অপর এএসআই মনিরুল ইসলাম ১৩ বোতল ফেন্সিডিলসহ আটক করে। পরে তার বিরুদ্ধে মামলা করেছেন তিনি। এই ঘটনায় প্রতিশোধ নিতে সালাম ভুলক্রমে ওই মনিরকে চাপা দিয়ে হত্যা করেছে। চালক সালাম বাসের গতি কমিয়ে যখন কাছাকাছি এসে পড়ে। তখন নেইমপ্লেটে মনির নাম দেখে প্রতিশোধ পরায়ন হয়ে উঠে। মাদকসেবী ও বিক্রেতা চালক সালাম ভালো করে না দেখেই মনিরুল ইসলামের উপর বাস চালিয়ে দিয়েছে। তাকে গ্রেপ্তারের জন্য অভিযান চলছে। অপরদিকে মঙ্গলবার বেলা ১১টায় পুলিশ লাইনে মনিরুল ইসলামের প্রথম জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। এতে জেলা প্রশাসক মো. শহীদুল আলমসহ পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।