এইচএসসিতে বরিশাল বোর্ডের পাসের হার ৭০.০৬

রুবেল খান॥ উচ্চ মাধ্যমিক (এইচএসসি) পরীক্ষার ফলাফলেও পাশের হার কমেছে বরিশাল মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের। এ বছর বরিশাল শিক্ষা বোর্ডে পাশের হার কমে দাড়িয়েছে শতকরা ৭০ দশমিক ০৬ ভাগ। সেই সাথে কমেছে জিপিএ-৫ এর সংখ্যাও। সৃজনশীল পদ্ধতিতে পরীক্ষা হওয়ার কারনে এবার পাশের হারের পাশাপাশি জিপিএ-৫ কমেছে বলে দাবী জানিয়েছেন বরিশাল শিক্ষা বোর্ড কর্তৃপক্ষ।
গতকাল রবিবার বেলা ১১টার দিকে বরিশাল বোর্ডের ফলাফল ঘোষণা অনুষ্ঠানের সভাপতি বোর্ড সচিব আব্দুল মোতালেব হাওলাদার এসব তথ্য প্রকাশ করেন।
তিনি জানান, গত বছর বরিশাল শিক্ষা বোর্ডের উচ্চ মাধ্যমিক সার্টিফিকেট পরীক্ষায় পাশের হাড় ছিলো শতকরা ৭১ দশমিক ৭৫ ভাগ। যা এ বছরের তুলনায় ১.৬৯ শতাংশ বেশি।
এ বছর বরিশাল শিক্ষা বোর্ডের অধীনে ৩০১টি কলেজের ১০৯টি কেন্দ্রে ৫৬ হাজার ৬৮০ জনের মধ্যে ৫৫ হাজার ৮০৪ জন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশগ্রহন করে। এদের মধ্যে পাশ করেছে ৩৯ হাজার ৯৭ জন। এছাড়া তিন বিভাগ থেকে মোট জিপিএ-৫ পেয়েছে ১ হাজার ৩১৯ জন। কিন্তু গত শিক্ষা বর্ষে জিপিএ-৫ এর পরিসংখ্যান ছিলো ২ হাজার ২২৫ জন। গত বছরের তুলনায় এ বছর ৯০৬ জন শিক্ষার্থী জিপিএ-৫ কম পেয়েছে।
এদিকে গতকাল ঘোষিত এইচএসসি’র ফলাফলে গত বছরের ন্যায় এবারেও পাশের দিক থেকে এগিয়ে আছে মেয়েরা। তবে গড় অনুপাতে জিপিএ-৫ এর দিক থেকে এগিয়ে আছে ছেলেরা। এ বোর্ডে সর্বমোট ৫৬ হাজার ৬৮০ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে অংশগ্রহন করে ৫৫ হাজার ৮০৪ জন। এর মধ্যে ২৭ হাজার ৮৮২ জন মেয়ে শিক্ষার্থীর মধ্যে পরীক্ষায় অংশ নেয় ২৭ হাজার ৪৯৯ জন। যার মধ্যে পাস করেছে ২০ হাজার ১১৯ জন। মেয়েদের পাশের হার ৭৩ দশমিক ১৬ শতাংশ। এছাড়া ২৮ হাজার ৭৯৮ ছেলের মধ্যে ২৮ হাজার ৩০৫ জন পরীক্ষায় অংশ নিয়ে পাশ করেছে ১৮ হাজার ৯৭৮ জন। সে অনুযায়ী ছেলেদের গড় পাশের হাড় শতকরা ৬৭.০৫ ভাগ।
এপর দিকে পাশকৃত শিক্ষার্থীদের মাঝে তিন বিভাগ মিলিয়ে ৬৬০ জন জিপিএ-৫ ছেলে এবং ৬৫৯ জন মেয়ে জিপিএ-৫ পেয়েছে। বিষয় ভিত্তিক ভাবে বিজ্ঞান বিভাগে ছেলের মধ্যে জিপিএ-৫ পেয়েছে ৫০৬ জন এবং মেয়েদের মধ্যে পেয়েছে ৩৯০ জন। মানবিক বিভাগে ছেলেদের মধ্যে ৪৩ জন জিপিএ-৫ পেলেও মেয়েরা পেয়েছেন ১১৬ জন। এছাড়া ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগ থেকে ১১১ জন ছেলে এবং ১৫৩ জন মেয়ে জিপিএ-৫ পেয়েছেন।
এদিকে এ বছর শিক্ষা বোর্ড গুলোতে সেরা ২০ কলেজের তালিকা প্রকাশ করেনি। তবে বরিশাল বোর্ডের অধীনে মাত্র ৫টি কলেজে শতভাগ শিক্ষার্থী পাশ করেছে। সেই সাথে শত ভাগ ফেলও করেছে ৫টি কলেজ। শত ভাগ পাশকরা কলেজ গুলোর মধ্যে রয়েছে বরিশাল ক্যাডেট কলেজ। এখান থেকে ৫৩ জন পরীক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশগ্রহন করলে ৫৩ জনই জিপিএ-৫ পেয়ে উত্তীর্ণ হয়েছেন। এর পাশাপাশি বরিশাল জাগদিস সারস্বত গাল্স স্কুল এন্ড কলেজে থেকে ২ জন পরীক্ষা দিয়ে ২ জনই পাশ করেছে। বরিশাল নগরীর এই কলেজটি থেকে প্রথম বারের মত এইচএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহন করেছে শিক্ষার্থীরা। সেরা পাঁচের মধ্যে রয়েছে গলাচিপা পানপট্টি কলেজ। এখান থেকেও ২ জন পরীক্ষা দিয়ে ২ জনই পাশ করেছে। নাজিরপুরের শহীদ জননী মহিলা মহাবিদ্যালয় থেকে ৪৪ জন পরীক্ষায় অংশ নিয়ে সবাই পাশ করেছে। এছাড়াও সেহাঙ্গল স্কুল এন্ড কলেজ থেকে ৯ জন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশগ্রহন করে ৯ জনই পাশ করেছে।
পাশের হাড় কমে যাওয়ার বিষয়ে বরিশাল শিক্ষা বোর্ডের সচিব আব্দুল মোতালেব হাওলাদার জানান, এ বছর সৃজনশীল পদ্ধতি ও নতুন করে আইসিটি বিষয় সংযোজন করা হয়েছে। যে কারনে এ বছর পাশের হার এবং জিপিএ-৫ এর সংখ্যা কিছুটা কমেছে বলে ধারনা করা হচ্ছে। বিশেষ গরে গণিতে এই সমস্যা বেশি হয়েছে। সৃজনশীলতার প্রভাবে এসএসসি পরীক্ষার ফলাফলও কিছুটা খারাপ হয়েছে। তবে আগামীতে এই সমস্যা কাটিয়ে ওঠা সম্ভব হবে বলেও আশা ব্যক্ত করেন বোর্ড সচিব।
ফলাফল ঘোষণা অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মাঝে উপস্থিত ছিলেন বরিশাল শিক্ষা বোর্ডের উপ-সচিব আব্দুর রহিম, উপ-পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক অরুন কুমার গাইন, কলেজ পরিদর্শক ড. লিয়াকত হোসেন, বিদ্যালয় পরিদর্শক আবুল বাশার হাওলাদার প্রমুখ।
এইচএসসিতে বরিশাল

সফলতায় সেরা ক্যাডেট কলেজ
নিজস্ব প্রতিবেদক॥ প্রতি বছরের ন্যায় এবারো উচ্চ মাধ্যমিক সার্টিফিকেট (এইচএসসি) পরীক্ষায় শতভাগ ফলাফল অর্জন করেছে বরিশাল ক্যাডেট কলেজ। এবারেও তারা জিপিএ-৫ পেয়ে শতভাগ পাশ করেছে।
বরিশাল মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড সূত্রে জানাগেছে, বরিশাল ক্যাডেট কলেজ থেকে এ বছর এইচএসসি পরীক্ষায় অংশ গ্রহণ করেছে ৫৩ জন শিক্ষার্থী। এর মধ্যে ৫৩ জন পরীক্ষার্থীই শত ভাগ পাশ করেছেন। শুধু তাই নয়। ৫৩ জনই জিপিএ-৫ পেয়ে উত্তীর্ণ হয়েছে। যার শতকরা পাশের হার ১০০ ভাগ।
বরিশাল ক্যাডেট কলেজের অধ্যক্ষ সারোয়ার হোসেন খান বলেন, এ অসাধারণ ফলাফলের জন্য আমরা কলেজের অধ্যক্ষসহ সবাই আনন্দিত। তিনি বলেন আজকের এই কৃতিত্ব শুধু মাত্র আমার একার নয়। এর সব থেকে বড় অংশীদার ক্যাডেট শিক্ষকম-লী, অভিভাবক সহ সংশ্লিষ্টরা। এজন্য তিনি সকলকে অভিনন্দন জ্ঞাপন করেন। সেই সাথে ভবিষ্যতেও এই সাফল্যের ধারা অব্যাহত রাখতে সকলের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।
সফলতায় সেরা ক্যাডেট

শতভাগ পাস করেছে ৫ কলেজ
নিজস্ব প্রতিবেদক॥ বরিশাল শিক্ষা বোর্ডে সেরা হয়েছে ৫টি কলেজ। এ ৫টি কলেজ থেকে শত ভাগ শিক্ষার্থী পাশ করেছে। শতভাগ পাশ করা কলেজ গুলোর মধ্যে রয়েছে- বরিশাল ক্যাডেট কলেজ। এখান থেকে ৫৩ জন পরীক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশগ্রহন করলে ৫৩ জনই জিপিএ-৫ পেয়ে উত্তীর্ন হয়েছে। এর পাশাপাশি বরিশাল জাগদিস সারস্বত গালস স্কুল এন্ড কলেজে থেকে ২ জন পরীক্ষা দিয়ে ২ জনই পাশ করেছে। বরিশাল নগরীর এই কলেজটি থেকে প্রথম বারের মত এইচএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহন করেছে। সেরা পাচের মধ্যে রয়েছে গলাচিপা পানপট্টি কলেজ। এখান থেকেও ২ জন পরীক্ষা দিয়ে ২ জনই পাশ করেছে। নাজিরপুরের শহীদ জননী মহিলা মহাবিদ্যালয় থেকে ৪৪ জন পরীক্ষায় অংশ নিয়ে সবাই পাশ করেছে। এছাড়াও সেহাঙ্গল স্কুল এন্ড কলেজ থেকে ৯ জন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশগ্রহন করে ৯ জনই পাশ করেছে।
বোর্ড সচিব আব্দুল মোতালেব হাওলাদার জানান, যে কলেজগুলো থেকে কম শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশ গ্রহন করেছে সেই সব কলেজ কর্তৃপক্ষকে নোটিশ করা হবে। আগামী পরীক্ষায় পরীক্ষার্থীর সংখ্যা বৃদ্ধির পাশাপাশি লেখা পড়ার মান আরো উন্নত করার জন্য তারা বলবেন বলেও জানিয়েছেন।
শতভাগ পাস করেছে ৫
পাশ শূন্য ৫ কলেজ
নিজস্ব প্রতিবেদক॥ মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের অধীনে এবছর শত ভাগ ফলাফল খারাপ করেছে ৫টি কলেজ। এই কলেজগুলো থেকে যে কজন পরীক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশ গ্রহন করেছে তারা সবাই ফেল করেছে। শত ভাগ ফেল করা কলেজ গুলোর মধ্যে রয়েছে- বরগুনার বেতাগী উপজেলার চাঁদখালী ইসাহাক সেকেন্ডারি স্কুল এন্ড কলেজ। এখান থেকে পরীক্ষায় অংশ গ্রহন করেছে ৯ জন শিক্ষার্থী। যার মধ্যে ৯ জনই ফেল করেছে। একই জেলার পাথরঘাটা উপজেলা কাকচিড়া সেকেন্ডারি স্কুল এন্ড কলেজ। এখান থেকে ১৬ জন পরীক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশ নিয়ে সবাই ফেল করেছে। পটুয়াখালীর দুমকী নাসিমা কেয়ামত আলী মহিলা কলেজ থেকে ২৬ জন পরীক্ষায় অংশ নিয়ে সবাই ফেল করেছে। একই জেলার মির্জাগঞ্জ উপজেলার মাজিত বাড়িয়া কলেজ থেকে ৭ জন পরীক্ষা দিয়ে সবাই ফেল করেছে। এছাড়া পিরোজপুরের ভান্ডারিয়া বিহারী পাইলট উচ্চ মাধ্যমিক স্কুল এন্ড কলেজ থেকে ৫ জন পরীক্ষা দিয়ে ৫ জনই ফেল করেছে।
বোর্ড সচিব আব্দুল মোতালেব হাওলাদার জানান, বরিশাল বোর্ডের অধীনে এবার পরীক্ষায় অংশ গ্রহন করা সর্বমোট স্কুলের মধ্যে উল্লেখিত কলেজ ৫টির এইচএসসি’র ফলাফল শতভাগ খারাপ হয়েছে। এজন্য কলেজগুলোর কর্তৃপক্ষকে নোটিশ প্রদান করা হবে। তাদের ফলাফল বিপর্যায়ের কারন এবং কেন তাদের কলেজে শিক্ষা দানের অনুমতি বাতিল করা হবে তা জানতে চাওয়া হবে। সুনির্দিষ্ট জবাব না দেয়া হলে তাদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলেও জানান তিনি।