উজিরপুরে শিশু নির্যাতনের ঘটনায় ৬জনকে আসামী করে মামলা

উজিরপুর প্রতিবেদক ॥ দৈনিক আজকের পরিবর্তন পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশের পর উজিরপুরে শিশু নির্যাতনের ঘটনায় ৬জনকে আসামী করে থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। গতকাল সকালে আহত শিশুর চাচা ইউসুফ মোল্লা বাদী হয়ে স্থানীয় প্রভাবশালী মাছের আড়ৎদার সোবাহান বেপারীর পুত্র খোকন বেপারী, আজিজ আকনের পুত্র তারিক আকন, অমূল্য মালের পুত্র শ্যামল মাল, ও তার ছোট ভাই পিটু মাল, আনোয়ার হাওলাদারের ছেলে পান্নু, সমির, কাইয়ুমসহ অজ্ঞাত ৫/৬ জনকে আসামী করে মামলা দায়ের করেছে। ইতিমধ্যে ঘটনাটি মিমাংসার জন্য স্থানীয় প্রভাবশালীরা আহত শিশুর পরিবারকে হুমিকে দিচ্ছে বলে জানান বাদী ইউসুফ মোল্লা। সরেজিমন ঘুরে জানা যায়, আহত শিশু রবিউল মোল্লা(১১) অসহায় মানসিক ভারসাম্যহীন মজনু মোল্লার পুত্র। মাছের আড়ৎ থেকে ৬০ হাজার টাকা চুরির অভিযোগে বুধবার গভীর রাতে শিশুটিকে হাত-পা বেঁধে খুঁটির সাথে ঝুলিয়ে লোহার রড দিয়ে পিটিয়ে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন করছে পাষন্ডরা। এ নিয়ে এলাকায় তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে। স্থানীয় বাসিন্দা মাসুম মোল্লা, কবির সহ একাধিক ব্যাক্তি শিশু নির্যাতনের মত ন্যাককার জনক ঘটনায় যারা জড়িত তাদেরকে অনতিবিলম্বে গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান।
অমানুষিক নির্যাতনের সত্যতা স্বীকার করে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান ডা. হরেন রায় জানান, শিশু রবিউলের ওপর চালানো নির্যাতন মধ্যযুগীয় নির্যাতনকেও হার মানিয়েছে। তিনি নির্যাতনকারীদের অনতিবিলম্বে গ্রেফতারের জন্য প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।
হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. সব্যসাচী দাস সানি জানান, শিশু রবিউল আগের চেয়ে একটু সুস্থ্য তবে সম্পূর্ণ সুস্থ হতে অনেক সময় লাগবে। এ ব্যাপারে উজিরপুর মডেল থানার ওসি মো. নুরুল ইসলাম-পিপিএম জানান, শিশু নির্যাতনের খবর পেয়ে শুক্রবার রাতেই নির্যাতিত শিশু রবিউলের সার্বিক চিকিৎসার খোঁজখবর নেওয়া হয়েছে। আসামিদের গ্রেফতারের জন্য পুলিশের অভিযান চলছে ।