ইউপি নির্বাচন ও দলীয় কোন্দলের জের ঝালকাঠীতে যুবদল নেতাকে হত্যার চেষ্টা

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ ঝালকাঠীর যুবদল নেতা নজরুল ইসলাম খানকে (৪০) নির্মমভাবে হত্যার চেষ্টা করা হয়েছে। বেদম মারধরে গুরুতর আহত হয়েছেন তার স্ত্রী আসমা আক্তার রুমা। নজরুল ইসলাম খান ঝালকাঠী সদর উপজেলা যুবদলের সহ-আইন বিষয়ক সম্পাদক ও বিনয়কাঠী ইউপি যুবদলের যুগ্ম আহ্বায়ক। মা, স্ত্রী ও সন্তানদের আকুতি এবং নগদ টাকা ও স্বর্ণালংকার পেয়ে দুর্বৃত্তরা অর্ধমৃত অবস্থায় নজরুল ইসলামকে ফেলে রেখে যায়। তার মাথায় ধারালো অস্ত্র দিয়ে তিনটি কোপ দেওয়া হয়েছে। বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে ডান হাতের একটি আঙ্গুল। শনিবার মধ্যরাতে এ লোমহর্ষক ঘটনা ঘটে। আশংকাজনক অবস্থায় নজরুল ইসলাম বরিশাল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।
নজরুল ইসলামের পারিবারিক সহৃত্র জানায়, শনিবার রাতে নজরুল ইসলাম স্ত্রী, দুই সন্তান ও বৃদ্ধা মাকে নিয়ে বিনয়কাঠী ইউপির বাহেরদিয়া গ্রামের বাড়িতে ঘুমিয়ে পড়েন। নজরুল ইসলামের স্ত্রী আসমা আক্তার রুমা জানান, গভীর রাতে একদল দুর্বৃত্ত ঘরের জানালার গ্রিল কেটে ভেতরে ঢোকে। ঘরে ঢুকেই ধারালো অস্ত্র দিয়ে ওই দুর্বৃত্তরা নজরুলের মাথা লক্ষ্য করে একাধিক কোপ দেয়। হাত দিয়ে প্রতিরোধ করতে গেলে তার ডান হাতের একটি আঙ্গুল বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। এমন ভয়াল অবস্থায় দুর্বৃত্তরা নজরুলের হাত-পা বাঁধার চেষ্টা করে। এ সময় তারা সবাই (দুই শিশু সন্তান ও বৃদ্ধা মা) নজরুলের প্রাণভিক্ষা চায় এবং ৪০ হাজার নগদ টাকা ও কিছু স্বর্ণালংকার দিলে দুর্বৃত্তরা চলে যায়।
আসমা আক্তার জানান, দলীয় কোন্দলের জের ধরে হত্যার উদ্দেশ্যেই দুর্বৃত্তরা নজরুলের ওপর হামলা করে। তবে হামলাকারীদের কাউকে তিনি চিনতে পারেননি। তিনি বলেছেন, মামলা দায়ের করলেও কাউকে চিনতে না পারায় কোন আসামির নাম উল্লেখ করবেন না।
শনিবার রাতেই ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন ঝালকাঠী সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শীলমনি চাকমা। ঘটনা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, নজরুল ইসলাম বিনয়কাঠী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন করার জন্য প্রচারণা শুরু করেছিলেন। এ কারণে প্রতিপক্ষ গ্রুপ তার ওপর হামলা চালাতে পারে। ওই পরিবার থেকে কোন অভিযোগ না দেওয়ায় মামলা হয়নি। এদিকে গতকাল সকালে কেন্দ্রীয় বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য ও বিএম কলেজের সাবেক ভিপি মাহাবুবুল হক নান্নু গতকাল শেবাচিম হাসপাতালে আহত নজরুল ইসলামকে দেখতে যান। তিনি এ ঘটনার তীব্র নিন্দা জানান এবং দোষীদের দ্রুত গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনার দাবি জানান।