ইউপি নির্বাচনে চরবাড়িয়াসহ বিভিন্নস্থানে চলছে আচরনবিধি লংঘন ও হুমকি, জাপার উদ্বেগ

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ ইউপি নির্বাচনে আ’লীগ মনোনীত প্রার্থীদের বিরুদ্ধে আচরনবিধি লংঘন ও প্রতিপক্ষ প্রার্থীদের হুমকিসহ নানা অভিযোগ উঠেছে। জাতীয় পার্টির জেলা ও মহানগর শাখা প্রতীক বরাদ্দের পূর্বে আচরনবিধি লংঘনসহ সহিংসতা ও সন্ত্রাসী কান্ডে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে। এছাড়াও চরবাড়িয়া ইউপির বিএনপি মনোনীত প্রার্থী অভিযোগ করেছেন, ক্ষমতাসীন দলের প্রার্থীসহ নেতাকর্মীরা মোটর সাইকেল বহর নিয়ে মহড়া দিচ্ছে। ইউপির বিভিন্ন ওয়ার্ডে গিয়ে উঠান বৈঠকসহ নানা কর্মকান্ড করে আচরন বিধি লংঘন করছে। অপরদিকে বিএনপি মনোনীত প্রার্থী জিয়াউল ইসলাম সাবুর কর্মীসহ অনুসারীরা অভিযোগ করেছে, প্রার্থীর পক্ষে কোন কর্মসূচীতে অংশ নিলেই পুলিশী গ্রেপ্তারসহ নানা হয়রানির শিকার হতে হবে বলে হুমকিমূলক মৌখিক বার্তা পাঠাচ্ছে।
এলাকাবাসী অভিযোগ করেছে, শুক্রবার চরবাড়িয়া ইউপির রাড়ী মহল টান্সমিটার এলাকার এক বাসায় আ’লীগ মনোনীত প্রার্থী মাহতাব হোসেন সরুজসহ নেতা কর্মীরা সভা করেছে। সেখানে চেয়ারম্যান প্রার্থীসহ কোন ওয়ার্ডে কোন ইউপি সদস্যকে জয়ী করা হবে তা নির্ধারণ করা হয়। এছাড়াও কোন কোন কেন্দ্র কার নেতৃত্বে প্রভাব বিস্তার করবে সেই সব নেতাদের তালিকাও করা হয়েছে বলে সভায় উপস্থিত নির্ভরযোগ্য সূত্র নিশ্চিত করেছে।
অপরদিকে গতকাল শনিবার রাড়ী মহল গ্রামের বাসিন্দা ডাক বিভাগে কর্মরত মো. আলাউদ্দিনের বাড়ীতে নেতা কর্মীদের নিয়ে বৈঠক করেছে আ’লীগ মনোনীত প্রার্থী মাহতাব হোসেন সরুজ। মোটর সাইকেলে বহর নিয়ে মহড়া দিয়ে ওই সভায় অংশ নিয়েছেন তিনি।
এদিকে, জাপার জেলা শাখার দপ্তর সম্পাদক আ. আলীম স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জানানো হয়েছে, বাকেরগঞ্জের পাদ্রিশিবপুর ইউপির ৫নং ওয়ার্ড প্রার্থী রফিক খানকে মারধর ও জুতা পেটা করা হয়েছে। তাকে প্রার্থীতা প্রত্যাহারের জন্য হুমকি দিয়েছে। একইভাবে আগৈলঝাড়ার রতœপুর ইউপির জাপা চেয়ারম্যান প্রার্থী শরিফুল ইসলামের প্রার্থীতা প্রত্যাহারের জন্য হুমকি দিয়েছে আ’লীগ মনোনীনত প্রার্থী মোস্তফা সরদার।
এছাড়াও খাঞ্জাপুর ইউপিতে জাপা প্রার্থীকেও আ’লীগ মনোনীত প্রার্থী বহর নিয়ে গিয়ে অশ্লীল ভাষায় গালি দেয়াসহ হুমকি দিয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।
এসব ঘটনায় জাপার কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক অধ্যক্ষ মহসিন-উল-ইসলাম হাবুল, এ্যাড. আব্দুল জলিল, জাহাঙ্গীর হোসেন মানিক, মনজুরুল আলম খোকন, বাকেরগঞ্জ উপজেলার নেতা মানিক হাওলাদার, জাহাঙ্গীর খন্দকার, অধ্যাপক বিপ্লব মিত্র, অধ্যাপক শহীদুল ইসলাম, পাদ্রিশিবপুর ইউপির সভাপতি গোলাম মোস্তফা, সাধারন সম্পাদক হাবিবুর রহমান, নাজেম শরীফ প্রমুখ উদ্বেগ প্রকাশ করেন ।