আলতাফ গাজী হত্যা মামলা নিয়ে বাকেরগঞ্জ উপজেলা আ’লীগের সংবাদ সম্মেলন

বাকেরগঞ্জ প্রতিবেদক॥ বাকেরগঞ্জ উপজেলায় আওয়ামীলীগ নেতা আলতাফ গাজী হত্যার প্রায় তিন মাস অতিবাহিত হলেও মামলার কোনো ক্লু বের করতে পারেনি পুলিশ। মামলার তদন্ত কাজে তেমন কোনো অগ্রগতিও নেই। এ পর্যন্ত কোনো আসামী গ্রেফতার বা হত্যাকান্ডের রহস্য উদঘাটন করতে পারেনি পুলিশ। নিহতের পরিবারসহ এলাকাবাসীর দাবি, পূর্ব শত্রুতার জের ধরেই তাকে হত্যা করা হয়েছে। এ হত্যা মামলা ভিন্নখাতে প্রবাহিত করার অপচেষ্টা হচ্ছে বলে দাবি করেছে বাকেরগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগ  নেতৃবৃন্দ। গতকাল সোমবার খুনিদের গ্রেফতারপূর্বক ফাঁসির দাবীতে বাকেরগঞ্জ প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেছেন তারা। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন কলসকাঠী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদক মাইনুল হক লিটন গাজী। লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, পূর্বশত্রুতার জের ধরে খুনিরা তার চাচাতো ভাই আওয়ামীলীগ নেতা আলতাফ গাজীকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করেছে। হত্যাকান্ডের পরদিন নিহতের পুত্র সাইদুল ইসলাম গাজী শুভ ৬ জনকে আসামী করে বাকেরগঞ্জ থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলা নং-২১। মামলার এজাহারে উলে¬¬খিত আসামীরা গ্রেফতার হলেই হত্যার মূল রহস্য বেরিয়ে আসতো। কিন্তু স্থানীয় বিএনপি-জামায়াত সমর্থিত একটি কুচক্রিমহল হত্যা মামলা ভিন্নখাতে প্রবাহিত করতে হত্যাকান্ডের আড়াই মাস পরে নিহতের বড় ভাই আব্দুল ওহাব গাজী রাজাকে বাদী করে তিনি ও তার বড় ভাই আনোয়ার হোসেন খোকনসহ ৪ জনকে আসামী করে গত ১২ অক্টোবর বরিশালের অতিরিক্ত চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে আরেকটি হত্যা মামলা দায়ের করিয়েছেন। এমপি মামলা নং-২৬২। তিনি বলেন, হত্যাকান্ডের সময়, নিহতের জানাজায় কিংবা দাফনের সময়ও ওহাব গাজী রাজা বাড়ীতে উপস্থিত ছিলেন না। অথচ তিন মাস পরে তিনি খুলনা থেকে এসে প্রকৃত খুনিদের বাঁচাতে একটি হত্যা মামলা তদন্তাধীন অবস্থায় আরেকটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। এনিয়ে তিনিসহ এলাকাবাসী বিস্মিত-হতবাক। মামলাটি ভিন্নখাতে প্রবাহিত করতেই মূলত তার এ হীন অপচেষ্টা। লিখিত বক্তব্যে তিনি ওই কুচক্রি মহলের অপপপ্রচারে কান না দিয়ে প্রশাসনের নিকট সঠিক তদন্তের মাধ্যমে খুনিদের গ্রেফতারপূর্বক ফাঁসির দাবী জানান। একটি কুচক্রিমহল এ হত্যা মামলা ভিন্নখাতে প্রবাহের অপচেষ্টা করে আসামীদের বাঁচাতে উঠে পড়ে লেগেছে বলেও তিনি অভিযোগ করেন। উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মোখলেচুর রহমান বলেন, আওয়ামীলীগের নিবেদিত প্রাণ আলতাফ গাজীর খুনিদের সঠিক বিচার না হলে ইউনিয়ন যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ একযোগে গণপদত্যাগ করবে। অনতিবিলম্বে তিনি খুনিদের গ্রেফতারপূর্বক ফাঁসির দাবী জানান। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা আওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদক পৌর মেয়র লোকমান হোসেন ডাকুয়া, প্রচার সম্পাদক নিয়ামত আবদুল্ল¬াহ পলাশ, উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মোখলেচুর রহমান, উপজেলা কৃষকলীগ সভাপতি আবুল কারিকর, কলসকাঠী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি আব্দুস সালাম তালুকদার, ইউনিয়ন যুবলীগ আহবায়ক মোঃ নেছার উদ্দিন খান, যুগ্ম-আহবায়ক আহসান হাবিব আকন, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সাইফুল ইসলাম ডাকুয়া, সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আমিরুজ্জ্মান রিপন, যুবলীগ নেতা রবি কুন্ড, জব্বার হাওলাদার, ইউনিয়ন শ্রমিকলীগ সভাপতি মন্নাফ হাওলাদার প্রমুখ। উল্লেুুু¬¬খ্য চলতি বছরের গত ২৭ জুলাই রাত ১১ টায় বাকেরগঞ্জের কলসকাঠী ইউনিয়নের ৫ নং ওয়ার্ড ঢাপরকাঠী গ্রামের নিজ বাসভবন থেকে মোবাইল ফোনে কথা বলতে বের হন আলতাফ গাজী। এরপর থেকে তিনি নিখোঁজ। পরদিন বাড়ীর সামনের একটি ডোবা থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়।