আদালত পাড়ার পুকুর ভরাট শুরু

নিজস্ব প্রতিবেদক॥ বহুতল বিশিষ্ট আদালত ভবন নির্মানে আদালত চত্বরের ঐতিহাসিক বহু ঘটনার স্বাক্ষী এতিহ্যবাহী পুকুরটি ভরাটের মাধ্যমে মেরে ফেলার কাজ শুরু হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে আইনজীবী সমিতির সভাপতি আনিছ উদ্দিন সহিদ ও সম্পাদক কাজী মনিরুল হাসান বালি ফেলে ভরাটের কাজ উদ্বোধন করেন। ব্রিটিশ আমলের এই পুকুরটি আদালতের ঐতিহ্য বহন করে আসছিল। প্রায় দেড়শ বছরের বেশি পুরোনো এই পুকুরটি ভরে ১০ তলা বিশিষ্ট ভবন নির্মান করা হবে বলে জানা গেছে। আইনজীবী সমিতির সভাপতি জানান, পুকুরটি ভরাট করে আদালত নির্মানের পরিকল্পনা কয়েক বছর ধরেই ছিল। কিন্তু বিভিন্ন সমস্যার কারনে সম্ভব হয় নি। এর পূর্বেও পুকুরটি ভরাট এবং দালান নির্মানের জন্য টেন্ডার দেওয়া হয়। এই টেন্ডার নিয়ে মামলা হওয়ায় পুকুর ভরাটের কাজ স্থগিত থাকে। প্রায় ২ বছর মামলা চলার পর নিষ্পত্তি হয়। তিনি আরও জানান, নতুন করে পুকুর ভরাট ও ভবন নির্মানে ২৬ কোটি টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। যত শিঘ্রই সম্ভব ভবন নির্মানের কাজ শুরু করা হবে। অন্যান্য জেলা গুলোতে জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতের জন্য বহুতল বিশিষ্ট ভবন থাকলেও বরিশাল আদালতে নেই। এই ভবনটিকে জুডিসিয়াল আদালত করা হবে বলেও তিনি উল্লেখ করেন। উল্লেখ্য কয়েকদিন আগে আদালত পাড়ার নকলখানায় অগ্নিকান্ডের ঘটনায় এই পুকুর থেকে ফায়ার সার্ভিস পানি নিয়ে অগ্নি নির্বাপন করে। পুকুরটি না থাকলে আগুনের লেলিহান শিখায় আদালতের পিছনের অংশের বাসাবাড়ি পুড়ে যাওয়া সহ ব্যাপক প্রাণহানির ঘটনা ঘটতো। এছাড়াও এই পুকুরটি ভরাট করার কারনে আদালত প্রাঙ্গনে আসা বিচারপ্রার্থী, আইনজীবী এবং স্থানীয় লোকজন পানির সমস্যার পড়বে।