আজ শুরু হচ্ছে বৃক্ষ মেলা

নিজস্ব প্রতিবেদক॥ আজ থেকে শুরু হচ্ছে বরিশাল বিভাগীয় বৃক্ষ মেলা। প্রতিবছরের ন্যায় বৃক্ষরোপন সপ্তাহ উদযাপন উপলক্ষে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর, সামাজিক বন বিভাগ ও জেলা প্রশাসনের আয়োজনে বঙ্গবন্ধু উদ্যানে শুরু হচ্ছে মেলাটি। বিভাগের বিভিন্ন স্থান থেকে আসা নার্সারী মালিকরা অংশ নিয়েছে মেলাটিতে। মোট ৫০টি স্টলের এই মেলাটি চলবে আগামি ১৫ দিন ব্যাপী। ইতিমধ্যেই স্টল এর সজ্জা, কাঠামো প্রস্তুতসহ সকল কাজ সম্পন্ন হয়েছে বলে জানিয়েছে মেলা কর্তৃপক্ষ। বৈরি আবহাওয়ার জন্য প্রস্তুতি কিছুটা কষ্টসাধ্য হলেও তা সম্পন্ন হয়েছে এবং আজ সকাল ১০টায় সাংসদ জেবুন্নেছা আফরোজ মেলার উদ্বোধন করবেন বলেও জানান তারা। এবারের মেলায় বিভিন্ন প্রজাতির উন্নত প্রজাতির ধান এর নমুনা, বিভিন্ন ধরনের ফলজ, ঔষধি সহ থাকছে সজ্জার জন্য ব্যবহৃত নানা প্রজাতির গাছ। তবে বৃক্ষ মেলায় মূল উদ্দেশ্য হিসেবে থাকবে কিভাবে বৃক্ষ রোপন করতে হ, তা তদারকি ও তত্ত্ববধান করতে হয় তার নির্দেশনা দেয়ার ব্যবহারিক প্রক্রিয়াও। মেলায় অংশ গ্রহণকারী মরিয়ম নার্সারী এর সত্ত্বাধিকারী মোঃ মিলন শেখ জানান, তিনি প্রতি বছরই বৃক্ষ মেলায় অংশ নেন। প্রায় সব প্রজাতির গাছই বিক্রি করবেন তারা। দেশীয় ফলজ গাছের মধ্যে আছে- আম, জাম, লিচু, নানা জাতের পেয়ারা, লেবু, লটকন, আতা, বহই ইত্যাদি। ঔষধি গাছের মধ্যে আছে হরতকি, বহিরা, অর্জুন, নিম, মহুয়া, আমলকি ইত্যাদি। বিভিন্ন ফুল গাছ যেমন- গোলাপ, টিউলিপ, গন্ধরাজ, বকুল, নানা প্রজাতির জবা ইত্যাদি। এছাড়া আছে সজ্জার কাজে ব্যবহৃত নানা ধরনের গাছ যেমন- পাতা বাহার, স্বর্ণলতা, সেঞ্চুরি, দেশি-বিদেশি ক্যাকটাস, বনসাই ইত্যাদি। এই গাছগুলো তারা বিক্রি করেন আগের বছরের তুলনায় কিছুটা বেশি দামে বলে জানান মিলন শেখ। কারন হিসেবে তিনি বলেন, বর্তমানে খরচ বৃদ্ধির বিষয়টি। তাদের সংগৃহিত প্রায় সকল গাছগুলোই আসে স্বরূপকাঠি থেকে। এ বছর মেলা আয়োজকদের ওপর কিছু ক্ষোভ প্রকাশ করে তিনি আরও জানান, মেলার স্থানটি নির্বাচনে কর্তৃপক্ষ এবার দায়িত্বহীনতা দেখিয়েছেন। মেলাটি যদি আরো একটু ভাল স্থানে তথা শুকনো স্থানে দেয়া হতো তবে তারা লাভবান হতেন। কারণ মেলার স্টলের শুধুমাত্র কাঠামোটিই তৈরি করেছে কর্তৃপক্ষ, বাকি সব করতে হয়েছে তাদের নিজেদের। এজন্য বেড়েছে খরচ যা প্রভাব ফেলবে চারার দামের ওপরে। মেলা আয়োজন কৃর্তৃপক্ষের পক্ষে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সাবিকা ইয়াসমিন পরিবর্তনকে জানান, আজ থেকে ১৫ দিন ব্যাপী চলবে মেলাটি। এবারের মেলায় নানা উন্নত জাতের বৃক্ষ প্রদর্শন বিক্রয়ের সাথে থাকবে তা সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনায় সঠিক উপায় প্রদর্শন। একটি বসতবাড়ী কেমন হওয়া উচিত, বাড়িটির কোথায় বাগান থাকা উচিত, কি উপায়ে তার রক্ষনাবেক্ষণ করা উচিত মূলত এসকল বিষয়ের উপরই গুরুত্ব দেয়া হবে এবং তার ব্যবহারিক প্রদর্শনও হবে। বৈরি আবহাওয়ার কারনে প্রস্তুতি কিছুটা সমস্যা হলেও তা সত্ত্বেও সম্পূর্ণ হয়েছে এবং আজ থেকে মেলার উদ্বোধন হবে বলেও জানান তিনি।