আজ মহান মে দিবস

কাজী রাকিন ॥ আন্তর্জাতিক শ্রমিক দিবস যা সচরাচর মে দিবস নামে অভিহিত তা প্রতিবছর ১লা মে তারিখে বিশ্বব্যাপী উদযাপিত করা হয়। এটি মূলত আর্ন্তজাতিক শ্রমিক আন্দোলন ও বামপন্থী আন্দোলনের উদযাপন দিবস। পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে বিভিন্নভাবে এ দিনটি পালিত হয়ে থাকে। বিশ্বের প্রায় ৮০টি দেশে ১লা মে জাতীয় ছুটির দিন। ১৮৮৬ সালে আমেরিকার শিকাগো শহরের হে মার্কেটের ম্যাসাকার শহীদদের আত্মত্যাগকে স্মরণ করে পালিত হয় মে দিবস। সেদিন দৈনিক আট ঘন্টা কাজের দাবিতে শ্রমিকরা হে মার্কেটে জমায়েত হয়েছিল। তাদেরকে ঘিরে থাকা পুলিশের প্রতি এক অজ্ঞাতনামার বোমা নিক্ষেপের পর পুলিশ শ্রমিকদের উপর গুলিবর্ষণ করে। ফলে সেদিন প্রায় ১০-১২ জন শ্রমিক নিহত হয়। ১৮৮৯ সালে প্যারিসে অনুষ্ঠিত কংগ্রেসে ১৮৯০ সাল থেকে শিকাগো প্রতিবাদের বার্ষিকী আন্তর্জাতিভাবে বিভিন্ন দেশে পালনের প্রস্তাব করেন রেমন্ড লাভিনে। ১৮৯১ সালে আর্ন্তজাতিক দ্বিতীয় কংগ্রেসে এই প্রস্তাব আনুষ্ঠানিকভাবে গৃহীত হয়। এর পরপরই ১৮৯৪ সালের মে দিবসের দাঙ্গার ঘটনা ঘটে। পরে ১৯০৪ সালে আর্মস্টারডাম শহরে অনুষ্ঠিত সমাজতন্ত্রীদের আন্তর্জাতিক সম্মেলনে এই উপলক্ষে একটি প্রস্তাব গৃহীত হয়। প্রস্তাবে দৈনিক আট ঘন্টা কাজের সময় নির্ধারণের দাবী আদায়ের জন্য শান্তি প্রতিষ্ঠায় বিশ্বজুড়ে পহেলা মে তারিখে মিছিল ও শোভাযাত্রা আয়োজনের সকল সমাজবাদী গণতান্ত্রিক দল এবং শ্রমিক সংঘের প্রতি আহ্বান জানানো হয়। সেই সম্মেলনে বিশ্বজুড়ে সকল শ্রমিক সংগঠন মে মাসের ১ তারিখে বাধ্যতামূলকভাবে কাজ না করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে। সে সময় অনেকে দেশের শ্রমজীবী জনতা মে মাসের ১ তারিখকে সরকারি ছটির দিন হিসেবে পালনের দাবি জানায় এবং অনেক দেশেই এটা কার্যকরী হয়। বিশ্বের অনেক দেশেই মে দিবস একটি তাৎপর্যপূর্ণ দিন। *বাংলাদেশের বিভিন্ন স্থানে বিভিন্ন শ্রমিক সংগঠন ৮ ঘন্টা কাজের দাবী এবং অন্যান্য সুযোগ সুবিধা চাইলেও সেই দাবি আদৌ প্রতিষ্ঠিত হয়নি।
**বাংলাদেশে আনুষ্ঠানিকভাবে প্রতিবছর মে দিবস পালন করা হয়।