আজ চাঁদ দেখা গেলে কাল ঈদ

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ আজ শাওয়াল মাসের চাঁদ দেখা গেলে আগামীকাল সোমবার পবিত্র ঈদ-উল ফিতর উদযাপিত হবে। যথাযথ ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্য ও ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্যদিয়ে সারাদেশের মুসলমানরা তাদের বৃহত্তম ধর্মীয় উৎসব ঈদ-উল-ফিতর উদযাপন করবে। পবিত্র ঈদ-উল-ফিতরের তারিখ নির্ধারণে জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির সভা থেকে ঈদের ঘোষণা দেবেন। ধর্মপ্রাণ মুসুল্লীরা কঠোর সিয়াম সাধনার মাধ্যমে পবিত্র রমজানের এক মাস অতিক্রম করে এখন ঈদ জামাতে নামাজ আদায়ের প্রস্তুতি গ্রহণ করছে। এদিকে সরকারি-বেসরকারি উদ্যোগে গ্রহণ করা সকল ঈদ জামাতের সব প্রস্তুতি ইতোমধ্যেই সম্পন্ন হয়েছে। নগরীতে ঈদের প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হবে সকাল সাড়ে ৮টায় বরিশাল কেন্দ্রিয় হেমায়েত উদ্দিন ঈদগাহ ময়দানে। ঈদের এ প্রধান জামাতে ইমামতি করবেন স্টিমার ঘাট মসজিদের খতিব শরফউদ্দিন বেগ।
রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, জনপ্রতিনিধি ও প্রশাসনের কর্তা ব্যক্তিরা ঈদগাহে ঈদের নামাজ আদায় করবেন। ঈদগাহে মহিলাদের জন্যও আলাদা নামাজের ব্যবস্থা করা হয়েছে। বরিশাল সিটি কর্পোরেশন ঈদগাহের প্রধান জামাত অনুষ্ঠানের সকল প্রস্তুতি ইতোমধ্যে সম্পন্ন করেছে। পবিত্র ঈদ-উল-ফিতর উপলক্ষে গতকাল থেকে চার দিনের সরকারি ছুটি শুরু হয়েছে। রাষ্ট্রপতি মো.আবদুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, সংসদের বিরোধী দলীয় নেতা বেগম রওশন এরশাদ এবং বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া পবিত্র ঈদ-উল-ফিতর উপলক্ষে পৃথক পৃথক বাণীতে দেশবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানাবেন। ঈদের দিন সরকারি, আধা সরকারি ও স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠানসমূহের ভবনে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হবে। প্রধান প্রধান সড়কসমূহে জাতীয় পতাকা এবং বাংলা ও আরবিতে ঈদ মোবারক লেখা ব্যানার ও ফেস্টুন দিয়ে সজ্জিত করা হবে। ঈদের দিন দিবাগত রাতে গুরুত্বপূর্ণ সরকারি ভবনসমূহে আলোকসজ্জা করা হবে।
ঈদের দিন দেশের বিভিন্ন হাসপাতাল, কারাগার, সরকারি শিশু সদন, ছোটমনি নিবাস, সামাজিক প্রতিবন্ধী কেন্দ্র, আশ্রয়কেন্দ্র, ভবঘুরে কল্যাণ কেন্দ্র ও দুস্থ কল্যাণ কেন্দ্রসমূহে উন্নতমানের খাবার পরিবেশন করা হবে। ঈদ উপলক্ষে মুসুল্লীদের নিরাপত্তা এবং আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে নগরজুড়ে বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।