আগৈলঝাড়া মাদ্রাসা ছাত্র নেয়ামতুল্লাহকে পরিবারের কাছে হস্তান্তর

আগৈলঝাড়া প্রতিবেদক ॥ বরিশালের আগৈলঝাড়ায় মাদ্রাসা ছাত্র রহস্যজনকভাবে নিখোঁজের ১১ দিন পর পুলিশ প্রশাসন শনিবার রাত ৯টায় তার পরিবারের কাছে হস্তান্তর করেছে। থানা সূত্রে জানা গেছে, উপজেলা সদরের জামিয়াতুল নাফিজিয়া আল ইসলামিয়া মার্কাস মাদ্রাসার ছাত্র বাকাল গ্রামের খোরশেদ বেপারীর ছেলে নেয়ামতুল্লাহ বেপারীকে (১৬) ঢাকার গেন্ডারিয়া কদমরসুল মসজিদের সামনের মোকলেসের হোটেল থেকে ৮ ডিসেম্বর রাতে তাকে উদ্ধার করে গেন্ডারিয়া থানা পুলিশ। সংবাদ পেয়ে আগৈলঝাড়া থানার জিডির তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই শাহ জালাল ৯ ডিসেম্বর ঢাকায় গিয়ে নেয়ামতুল্ল¬াহকে নিয়ে বরিশাল পৌছেন। শনিবার দিনব্যাপী বিভিন্ন আইন-শৃংখলা বাহিনীর জিজ্ঞাসাবাদ শেষে বরিশাল অতিরিক্ত ডিআইজি মো.আকরাম হোসেন সংবাদ সম্মেলনে নেয়ামতুল্লাহ’র জঙ্গীর সম্পৃকক্তার প্রমান পায়নি বলে জানান। পরে শনিবার রাতে এসআই শাহ জালাল আগৈলঝাড়া থানায় নেয়ামতুল্লাহকে নিয়ে আসেন। ওই রাতেই মাদ্রাসা ছাত্র নেয়ামতুল্লাহকে তার আত্বীয়-স্বজনের উপস্থিতিতে পিতা খোরশেদ বেপারী, মাতা কোহিনুর বেগম, মামা শাহাদাত হোসেনের কাছে হস্তান্তর করে। এ ব্যাপারে থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো.মনিরুল ইসলাম সাংবাদিকদের জানান, জঙ্গীর সম্পৃকক্তার প্রমান না পাওয়ায় নেয়ামতুল্লাহকে তার পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। উল্লেখ্য উপজেলা সদরের জামিয়াতুল নাফিজিয়া আল ইসলামিয়া মার্কাস মাদ্রাসার ছাত্র নেয়ামতুল্লাহ ৩০ নভেম্বর জহুরের নামাজ শেষে নিখোঁজ হয়। পরে তার পিতা খোরশেদ বেপারী থানায় সাধারণ ডায়েরী করেন। পুলিশ আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে অবশেষে ঢাকার গেন্ডারিয়া থেকে তাকে উদ্ধার করা হয়।