আগৈলঝাড়া দুস্থ মানবতার হাসপাতালে ভুয়া চিকিৎসকের ছড়াছড়ি

আগৈলঝাড়া প্রতিবেদক॥ “দুস্থ মানবতার হাসপাতাল’’ নামের মধ্যেই দুস্থদের সেবা করার প্রয়াস ফুটে উঠলেও বাস্তবে তার চিত্র ভিন্ন। বরিশালের আগৈলঝাড়ায় নাম সর্বস্ব এই হাসপাতালে ভূয়া ডাক্তারের ছড়াছড়ি। গতকাল বৃহস্পতিবার হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জনরোষ থেকে সরিয়ে দিয়ে বাচিয়ে দিয়েছে ডা. নৃম্ময় বিশ্বাস নামের এক ভূয়া এমবিবিএস ডাক্তার (গাইনী-অবস) পিজিটি (এনেস্থিসিয়া)কে। হাসপাতালের ম্যানেজার রুস্তুম আলী রাঢ়ী জানান, দুস্থ মানবতার হাসপাতলটি যাত্র শুরু করে ২০১১ সালের জুলাই মাসে। যার রেজিষ্ট্রেশন নং-৩৪৫৮(২/৫/১৩) বর্তমানে হাসপাতালে ২ জন এমবিবিএস ডাক্তার, মেডিকেল এ্যাসিসট্যান্ট ১ জন, ডিপে¬ামা নার্স ২ জন, শিক্ষানবিস নার্স ৪ জনসহ ৯জন চিকিৎসা সেবায় কর্মরত ছিল। এরই মধ্যে  ডা. নৃম্ময় বিশ্বাস নামের এক ভূয়া এমবিবিএস ডাক্তার (গাইনী-অবস) পিজিটি (এনেস্থিসিয়া) গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে জনরোষ থেকে পালিয়ে গেছে। কর্তৃপক্ষ তাকে পালাতে সাহায্য করেছে বলে রোগির স্বজনদের অভিযোগ। ওই ডাক্তারের এমবিবিএস সনদ নং ২৬২৩৭। ওই ডাক্তার নিজেকে মাগুরার বাসিন্দা বলে পরিচয় দিলেও হাসপাতালের অফিসে তার কোন ব্যক্তিগত তথ্য বা ছবি পাওয়া যায়নি। অনুসন্ধানে জানা গেছে ডা. নৃম্ময় বিশ্বাস নামের আসল ব্যাক্তি কক্সবাজারের একটি এনজিওতে বর্তমানে চাকুরি করছে। ওই ডাক্তারের সনদ জাল করে গত ১৪ মাস যাবত অসহায় মানুষের সাথে প্রতারনা করে আসছিল। তাকে বেতন দেয়া হত ১ লাখ ২৫ হাজার টাকা। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে এমন অভিযোগের প্রেক্ষিতে পুলিশের এসআই মোস্তাফিজুর রহমান হাসপাতালের বিভিন্ন কক্ষে তল¬াশী চালিয়েও পাননি ভূয়া ডাক্তার নৃম্ময়কে। এসময় তার সাথে পুলিশের কথিত সোর্সরা বিপুল পরিমান অর্থ হাতিয়ে নিয়ে হাসপাতালের পক্ষ হয়ে পুলিশ ও সাংবাদিকদের সাথে কথা বলেন। তবে পুলিশ ওই ডাক্তারের কিছু আলামত সংগ্রহ করেছে। তাতে তার বাড়ি টাঙ্গাইল বলে প্রাথমিকভাকে ধারণা করা হচ্ছে। ডাক্তার অবরুদ্ধকারীরা অভিযোগ করেন পুলিশ আসার খবর পেয়ে কর্তপক্ষ পেছনের দরজা দিয়ে তাকে পালাতে সাহায্য করেন। এর আগেও আনিস নামের একজন ভূয়া মেডিকেল অফিসার ওখানে কর্মরত ছিল। বর্তমানে সে সদর বাজারে প্রবেশের ব্রীজের সাথে চেম্বার করে বসেছেন। অভিযোগ রয়েছে ওই হাসপাতালে অনভিজ্ঞ ও ভূয়া নার্স ও ভূয়া ডাক্তারদের কারণে সিজারিয়ান রোগিদের  অনেক রোগির জীবন সংকটাপন্ন হয়ে পরেছে। গতকালও এক রোগীর সিজার করার পরেই তাকে ফেলে রেখে পালিয়েছে ওই ভুয়া ডাক্তার নৃম্ময় বিশ্বাস। হাসপাতাল থেকে পালিয়ে যাওয়ার ঘটনায় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে দায়ি থাকলেও তারা ওই ভুয়া ডাক্তারের ব্যপারে কোন তথ্য দিতে পারেনি। ম্যানেজার জানান, তাকে নিয়োগ দিয়েছে মালিক আমেরিকা প্রবাসী জুবায়ের হোসেন। এব্যাপারে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লে´ে স্বাস্থ্য ও প.প.কর্মকর্তা ডা.সেলিম মিয়া জানান, ডাক্তার নৃম্ময় এর প্রায়োজনীয় কাগজপত্র চাওয়া হবে। কাগজ দেখে তার বিরুদ্ধে প্রায়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।