আইনজীবীর চেম্বার থেকে ফেন্সিডিল উদ্ধার

নিজস্ব প্রতিবেদক॥ নগরীর জেলা আইনজীবী সমিতির ভবনের একটি কক্ষ থেকে ৩৯ বোতল ফেন্সিডিল উদ্ধার করেছে মহানগর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশ। গতকাল রবিবার রাত সোয়া ১১টার দিকে আইনজীবী সমিতির বর্ধিত ভবনের নিচতলায় এ্যাড. রিয়াজ উদ্দিন মিলন এর চেম্বার সিলিং এর উপর থেকে এই ফেন্সিডিল উদ্ধার করা হয়। তবে অভিযানের বিষয়টি টের পেয়ে আগে ভাগেই পালিয়েছে আইনজীবী রিয়াজ উদ্দিন মিলন। মিলন নগরীর কাউনিয়া ব্রাঞ্চ রোড এলাকার মসজিদ সংলগ্নের বাসিন্দা।
অভিযানের নেতৃত্বদানকারী বরিশাল মেট্রো পলিটন পুলিশের মুখপাত্র এবং গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের জ্যেষ্ঠ সহকারী কমিশনার মো. আনছার উদ্দিন জানান, তারা গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারেন জেলা ও দায়রা জজ কম্পাউন্ডে জেলা আইনজীবী সমিতি ভবনের নিচ তলায় দীর্ঘ দিন যাবত ফেন্সিডিল ব্যবসা করে আসছে এ্যাড. রিয়াজ উদ্দিন মিলন। এমন সংবাদের ভিত্তিতে গোয়েন্দা নজরদারী বৃদ্ধি করা হয়।
তিনি জানান, রবিবার দুপুর ১টা থেকে গোয়েন্দা পুলিশ সদস্যরা জেলা আইনজীবী সমিতি ভবন এবং এ্যাড. রিয়াজ উদ্দিন মিলন’র চেম্বারের আশপাশে নজরদারীতে থাকে। পরবর্তীতে বিষয়টি ভালো ভাবে নিশ্চিত হয়ে রাতে আইনজীবী সমিতির ঐ চেম্বারে অভিযান পরিচালনা করেন। সর্বশেষ রাত সোয়া ১১টার দিকে জেলা ও দায়রা জজ আনোয়ারুল হক এর অনুমতি নিয়ে এ্যাড. রিয়াজ উদ্দিন মিলন এর কক্ষের ফটকের তালা ভেঙ্গে ভেতরে প্রবেশ করে গোয়েন্দা পুলিশেল টিম। এসময় বরিশাল জেলা আইনজীবী সমিতির সাধারন সম্পাদক কাজী মনিরুল হাসান, ডিবি পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) আহসান কবির সহ বেশ কয়েকজন আইনজীবী উপস্থিত ছিলেন।
এদিকে গোয়েন্দা পুলিশ সদস্যরা চেম্বারের মধ্যে বৈদ্যুতিক পাখা সংলগ্ন সিলিং এর উপর তল্লাশী করে ৩৯ বোতল ফেন্সিডিল উদ্ধার করেন বলে জানিয়েছেন সহকারী কমিশনার মো. আনছার উদ্দিন। এ ঘটনায় মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রন আইনে মামলা দায়ের করা হবে বলেও জানিয়েছেন তিনি।
অপরদিকে জেলা আইনজীবী সমিতির সাধারন সম্পাদক কাজী মনিরুল হাসান বলেন, আইন চর্চার জন্য এ্যাড. রিয়াজ উদ্দিন মিলন এর কাছে রুমটি ভাড়া দেয়া হয়েছে। তবে সেখানে আইন চর্চার নামে সে যেই কাজটি করেছে তা সম্পূর্ণ ন্যাক্কার জনক। তাই রিয়াজ উদ্দিন মিলন এর বিরুদ্ধে ১৯৭২ সালের বার কাউন্সিল ট্রাইব্যুলালে মামলা করা হবে। সেখানে আইন অনুযায়ী তার বিচার করা হবে বলেও জানিয়েছে তিনি।