আইএইচটি থেকে আটক ৩

নিজস্ব প্রতিবেদক॥ নগরীর ইনস্টিটিউট অব হেলথ্ টেকনোলজী (আইএইচটি) থেকে এক কথিত সাংবাদিক সহ তিন শিক্ষার্থীকে আটক করেছে পুলিশ। একাডেমিক ভবনে দুই শিক্ষার্থীর অনৈতিক কর্মকান্ড এবং তাদের কাছে ২০ হাজার টাকা চাঁদা দাবীর অভিযোগে তিন জনকেই আটক করা হয়েছে। গতকাল বেলা সাড়ে ১১টার দিকে শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ কম্পাউন্ড আইএইচটিতে এই ঘটনা ঘটে। আটককৃতরা হরো- আইএইচটি’র ফার্মেসী অনুষদের ২য় বর্ষের ছাত্র মশিউর রহমান একই অনুষদের ছাত্রী সিনথিয়া আক্তার এবং দৈনিক বাংলাদেশ বানী পত্রিকার সাংবাদিক পরিচয়ধারী ফরহাদ। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, আইএইচটি’র ফার্মেসী অনুষদের ছাত্র মশিউর এবং ছাত্রী সিনথিয়ার সাথে দীর্ঘ দিন যাবত প্রেমের সম্পর্ক চলে আসছে। গতকাল বৃহস্পতিবার বেলা ১১টার দিকে তারা দু’জন ইনস্টিটিউটের একাডেমিক ভবনের দ্বিতীয় তলার বাথরুমে অনৈতিক কর্মে লিপ্ত হয়। এসময় অন্যান্য শিক্ষার্থীরা তাদের হাতে নাতে ধরে ফেলে। ছাত্র মশিউর রহমানের বাবা আজাহারুল ইসলাম অভিযোগ করেন, ফরহাদ নামের এক যুবক বরিশাল থেকে প্রকাশিত দৈনিক বাংলাদেশ বানী পত্রিকার সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে তার ছেলে এবং সিনথিয়া নামের ছাত্রীর ছবি তোলে। পরে তা পত্রিকায় প্রকাশের হুমকি দিয়ে ২০ হাজার টাকা চাঁদা দাবী করে। ঘটনাটি নিয়ে ক্যাম্পাস জুড়ে ব্যাপক আলোড়ন সৃষ্টি হলে অন্যান্য শিক্ষার্থীরা পুলিশকে খবর দেয়। পরে পুলিশ সাংবাদিক পরিচয়ধারী ফরহাদ সহ প্রেমিক যুগলকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়। জানতে চাইলে আইএইচটি’র অধ্যক্ষ ডা. স্বপন কুমার মিত্র বলেন, কলেজে কোন ছাত্র-ছাত্রী অনৈতিক কর্মকান্ড করেনি এমনকি ধরাও পড়েনি। কিন্তু ফরহাদ নামের ঐ যুবক মিথ্যা নাটক সাজিয়ে দুই শিক্ষার্থীর কাছ থেকে চাঁদা আদায় করতে চেয়েছিলো। তাই বিষয়টি সমাধানের জন্য তিন জনকেই পুলিশের হেফাজতে দেয়া হয়েছে বলে তিনি জানিয়েছেন।