আইএইচটিতে পরীক্ষায় ছাত্রলীগ নেতাদের ফ্রি-ষ্টাইলে নকল মহোৎসব

নিজস্ব প্রতিবেদক॥ নগরীর ইনস্টিটিউট অব হেলথ্ টেকনোলজীতে (আইএইচটি) চলছে নকলের মহোৎসব। ছাত্রলীগের নেতাকর্মিদের সাথে সাথে পরীক্ষার্থীদের প্রকাশ্যে নকল সরবরাহ করছে শিক্ষকরাও। যে কারনে সাধারন মেধাবী শিক্ষার্থীরা ক্ষুদ্ধ হলেও নিরব ভুমিকায় রয়েছেন কর্তৃপক্ষ।
আইএইচটি সূত্রে জান াগেছে, বিভিন্ন অনুষদের চুড়ান্ত পর্বের পরীক্ষা চলছে। পরীক্ষার শুরু থেকে অধিকাংশ হলে প্রকাশ্যে নকল করে শিক্ষার্থীরা। বিশেষ করে ইনস্টিটিউট শাখা ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দকে উত্তীর্ন করতে জ্যেষ্ঠ এবং কনিষ্ঠ ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীরা হলের মধ্যে নকল নিয়ে প্রবেশ করে। আবার কখনো কখনো হলের মধ্যে বই খুলে ফিল্মি স্টাইলে বাধাহীন পরীক্ষা দিচ্ছে ছাত্রলীগের নেতা-কর্মি শিক্ষার্থীরা। পরিদর্শন দল এলে মদদ দাতা কিছু শিক্ষক সকলকে সতর্ক করে দেয়। তাই ঝামেলা ছাড়া আইএইচটিতে প্রকাশ্য নকল করে পরীক্ষা দিচ্ছে শিক্ষার্থীরা। নকলে সহযোগিতাকারী হিসেবে ইনস্টিটিউটের প্রভাবশালী শিক্ষক সুবদ ও অনিমেশকে অভিযুক্ত করেছে সাধারন শিক্ষকরা। এমনকি নকলে সহায়তার জন্য অধ্যক্ষ’র ইন্দন রয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।
পরীক্ষায় অংশগ্রহনকারী একাধিক সাধারন এবং মেধাবী শিক্ষার্থীরা অভিযোগ করেন, ছাত্রলীগের শিক্ষার্থীরা যেভাবে নকল করছে তা দেখে মনে হয় তারা বাসায় পড়ার টেবিলে বসে পরীক্ষা দিচ্ছে। কিন্তু সাধারন শিক্ষার্থীদের বেলায় কড়া নজরদারী রাখছে। তাছাড়া একই একই কেন্দ্রে প্রাইভেট এডভান্স কলেজের শিক্ষার্থীরাও পরীক্ষা দিচ্ছে। তারাও নকলের সুযোগ ভোগ করছে। কিন্তু আমরা শিক্ষকদের কাছে কিছু জানতে চাইলেও ধমক দিয়ে খাতা নিয়ে আটকে রাখছে বলে অভিযোগ সাধারন শিক্ষার্থীরা।
গতকাল মঙ্গলবার সকালে পরীক্ষা চলাকালে আইএইচটি’র পরীক্ষার হলে গেলে এমন অভিযোগের সত্যতা পাওয়া গেছে। অবশ্য সাংবাদিক দেখা মাত্র সবাই সতর্ক হয়ে যান। তবে অভিযোগ অসত্য দাবী করে ইনস্টিটিউটের অধ্যক্ষ ডা. স্বপন কুমার দাস বলেন, আমাদের এখানে কোন নকলের সুযোগ নেই। শিক্ষকরা নিয়মিত কক্ষে গার্ড দিচ্ছেন। তাছাড়া ম্যাজিষ্ট্রেট এসেও কেন্দ্র পরির্দশন করে যাচ্ছেন। কিন্তু কোন অনিয়ম পাচ্ছে না। কেন্দ্রে নকল কিংবা অনিয়ম পেলে তাৎক্ষনিক ভাবে ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে বলে দাবী করেন অধ্যক্ষ।