অস্বাভাবিক শিশুর জন্ম

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ নগরীর একটি ক্লিনিকে অস্ত্রপচারের মাধ্যমে পুরুষাঙ্গ, পাইয়ুপথ এবং নাভী বিহীন এক শিশুর জন্ম হয়েছে। গত মঙ্গলবার রাতে নগরীর কালীবাড়ি রোডের ফেয়ার ক্লিনিকে সিজারিয়ামের মাধ্যমে ওই শিশু ভুমিষ্ট হয়। জন্ম নেয়া শিশুটি জেলার উজিরপুর উপজেলার মুন্ডুপাশা গ্রামের ইউসুফ সরদারের পুত্র। ওই রাতেই শিশুটিকে শেবাচিম হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তার মা হীরা বেগম ফেয়ার ক্লিনিকে চিকিৎসাধীন।
নবজাতকের পিতা ইউসুফ সরদার বলেন, তার সন্তান সম্ভাবা স্ত্রী হীরা বেগম কিছুদিন ধরে শ^শুড় বাড়ি অবস্থান করছিলেন। ৮ মাসের অন্তঃস্বত্তা হীরা বেগম গত মঙ্গলবার রাতে হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে তার শ^শুর বাড়ির লোকজন নগরীর ফেয়ার ক্লিনিকে ভর্তি করেন। ওই রাতেই সিজারিয়ান অপারেশনের মাধ্যমে একটি পুত্র সন্তানের জন্মদেন তার স্ত্রী। কিন্তু জন্মের পরপরই তার শিশুর কিছু ত্রুটি ধরা পড়ে। এগুলো চিকিৎকদের নজরে আসার পর ওই রাতেই শিশুটিকে শেরে-ই বাংলা মেডিকেলে ভর্তি করেন।
ফেয়ার ক্লিনিকের সত্ত্বাধিকারী শেবাচিম হাসপাতালের সার্জারী বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. জহুরুল হক মানিক বলেন, এটা জন্মগত সমস্যা। জরুরী ভিত্তিতে শিশুটির পায়ুপথ তৈরী করা প্রয়োজন। বাকী বিষয়গুলো সময় সাপেক্ষে। সে এডাল্ট হলে তার পুরুষাঙ্গ প¬ান্ট করা যেতে পারে। এ ধরনের ঘটনা প্রায়ই ঘটে বলে জানিয়েছেন তিনি।
শেরে-ইবাংলা মেডিকেলের শিশু বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ডা. অসীম কুমার সাহা বলেন, বিরল এই রোগের নাম ক্লোয়েক্যাল ম্যালফরমেশন। মায়ের গর্ভাবস্থায় শিশুটির পায়ুপথ এবং পুরুষাঙ্গ ডেভলপ হয়নি। শিশু বিভাগে এই রোগের চিকিৎসা না থাকায় তাকে শিশু সার্জারী বিভাগে প্রেরন করা হয়েছে।
তবে শেবাচিম হাসপাতালের পরিচালক ডা. এসএম সিরাজুল ইসলাম জানিয়েছেন, শিশুর জটিল এই রোগের সু-চিকিৎসার ব্যবস্থা আমাদের এই হাসপাতালে নেই। তাই তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় নিয়ে যাবার জন্য অভিভাবকদের পরামর্শ দেয়া হয়েছে।