অশ্রু ভেজা চোখে হিরনকে স্মরন

রুবেল খান॥ প্রিয়জন হারানো শোকের কান্না আজও থামেনি। সাবেক জননন্দিত সিটি মেয়র প্রয়াত এমপি শওকত হোসেন হিরণ’র মৃত্যুর এক বছর পরেও শোকে কাতর হয়ে আছে তার প্রিয় বরিশালবাসী। গতকাল বৃহস্পতিবার প্রয়াত এই নেতার মৃত্যু বার্ষিকীর দোয়া-মোনাজাত অনুষ্ঠানে নগরবাসীর স্বজন হারা কান্নায় ভারি হয়ে উঠেছিলো প্রয়াতের বাস ভবন হিরন পয়েন্ট ও সদর রোড এলাকা। অশ্রু ভেজা চোখে বার বার মুর্ছাযাওয়া আর প্রিয় নেতার রূহের শান্তি কামনার শব্দ আমিন-আমিন প্রকম্পিত হতে থাকে বার বার। শিশু থেকে আবাল-বৃদ্ধ-বনিতা সবাই যেন প্রিয়জন হারানো শোকে দ্বিতীয়বারের মতো ম্যুহমান হয়েছিলো।
গতকাল ৯ এপ্রিল বৃহস্পতিবার ছিলো আধুনিক নগরীর রূপকার সাবেক সফল জননন্দিত মেয়র প্রয়াত এমপি শওকত হোসেন হিরণ’র ১ম মৃত্যু বার্ষিকী। তার মৃত্যু বার্ষিকী ও রূহের মাগফেরাত কামনায় নানা আয়োজন করে পরিবার, তার প্রিয় সংগঠন মহানগর আওয়ামী লীগ সহ নানা সংগঠন ও ব্যক্তিবর্গ। শোকের অনুভুতি প্রকাশে নগরীর সদর রোড সহ প্রতিটি অলিগলি প্রয়াত শওকত হোসেন হিরণ’র স্মৃতি বিজরীত ছবি আর নানা উন্নয়ন সম্বলিত ব্যানার, পোষ্টার, বিলবোর্ড ও তোড়নে ছেয়ে গেছে।
শওকত হোসেন হিরণ’র রূহের মাগফেতার কামনা ও মৃত্যু বার্ষিকীর কর্মসূচির অংশ হিসেবে পরিবারের পক্ষ থেকে তার সহধর্মীনি এমপি জেবুন্নেছা আফরোজ হিরণ প্রয়াতের নিজ বাস ভবন নগরীর বাংলাবাজার এলাকার নূরীয়া স্কুল সংলগ্ন হিরণ পয়েন্টে মিলাদ ও দোয়া-মোনাজাতের আয়োজন করেন। বেলা সাড়ে ১১টায় হিরণ’র বাস ভবনে মিলাদ ও দোয়া মোনাজাতে অংশ নেয় নগরীর ৩০টি ওয়ার্ড, সদর উপজেলার ১০ ইউনিয়ন ছাড়াও বিভিন্ন জেলা উপজেলার হাজার হাজার মানুষ। নূরীয় স্কুল এবং নূরীয়া কিন্ডার গার্ডেন, শহীদ নজরুল সড়ক, খালেদাবাদ কলনী, নূরীয়া স্কুলের সামনে মূল রাস্তা হিরণ প্রেমিদের ভিড়ে তিল ধারনোর ঠাই ছিলো না।
এছাড়া তার বাস ভবনে বরিশাল গোরস্থান মাদ্রার অধ্যক্ষ পরিচালিত মিলাদ ও দোয়া-মোনাজাতে অংশ নেন বরিশাল জেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক ও বরিশাল-২ আসনের সাংসদ এ্যাড. তালুকদার মো. ইউনুস, বরিশাল-৩ আসনের এমপি এ্যাড. শেখ মোহাম্মদ টিপু সুলতান, বরিশাল মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক এ্যাড. আফজালুল করিম, বরিশাল মহানগর আওয়ামী লীগ ও কেন্দ্রীয় যুবলীগ নেতা সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহ, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান সাইদুর রহমান রিন্টু, মেট্রোপলিটন মেম্বারের সভাপতি নিজাম উদ্দিন, বরিশাল চেম্বার অব কমার্সের পরিচালক এটিএম শহীদুল্লাহ কবির, বরিশাল জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি কেবিএস আহম্মেদ কবির, দৈনিক আজকের পরিবর্তন পত্রিকার সম্পাদক কাজী মিরাজ মাহমুদ, দৈনিক দক্ষিণাঞ্চল প্রকাশক ডা. আনোয়ার হোসেন, জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সম্পাদক এ্যাড. লস্কর নূরুল হক, জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি সুমন সেরনিয়াবাত, নগর ছাত্রলীগ সভাপতি মো. জসিম উদ্দিন সহ আ’লীগ বিএনপি ও জাতীয় পার্টি সহ বিভিন্ন দলের নেতা-কর্মীরা দোয়া-মোনাজাতে অংশ নেন।
এর আগে সকালে নগরীর মুসলিম গোরস্থানের সমাধীস্থলে পূস্পার্ঘ অর্পন ও কবর জিয়ারত করেন প্রয়াতের পরিবারের সদস্যরা। এসময় প্রয়াত শওকত হোসেন হিরন’র সহধর্মিনী ও সংসদ সদস্য জেবুন্নেছা আফরোজ, একমাত্র ছেলে সাজিদ রাফসান আহম্মেদ ও কণ্যা রশনি হুসেইন তৃনা কান্নায় ভেঙ্গে পরেন। যার ফলে সমাধিস্থলে এক হৃদয় বিধায়ক পরিবেশ সৃস্টি হয়। তাদের কান্নার শব্দ আর বিলাপে নেতা-কর্মীদের চোখেও পানি এসে যায়।
পরিবারের পাশাপাশি সকাল থেকেই মুসলিম গোরস্থানে পূষ্পমাল্য হাতে উপস্থিত হন হাজার হাজার সাধারন মানুষ। প্রিয় নেতার কবর জিয়ারত ও শ্রদ্ধা নিবেদন করতে সাড়িবদ্ধ ভাবে ঘন্টার পর ঘন্টা অপেক্ষা করেন তারা।
এদিকে বাদ মাগরিব বরিশাল মহানগর আওয়ামী লীগের উদ্যোগে সদর রোড শহীদ সোহেল চত্ত্বরে দলীয় কার্যালয়ের সামনে মিলাদ ও দোয়া-মোনাজাত অনুষ্ঠিত হয়। দোয়া-মোনাজাতে ছিলেন বন ও পরিবেশ মন্ত্রনালয়ের উপ-মন্ত্রী আব্দুল্লাহ আল ইসলাম জ্যাকব, নগর আ’লীগ সাধারন সম্পাদক এ্যাড. আফজালুল করিম, নগর আ’লীগ ও কেন্দ্রীয় যুবলীগ নেতা সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহ, জেলা আ’লীগের সাবেক সহ-সভাপতি মোহাম্মদ হোসেন চৌধুরী, নগর যুবলীগ যুগ্ম-আহ্বায়ক মো. শাহীন সিকদার, যুবলীগ নেতা রফিকুল ইসলাম খোকন। মিলাদ ও দোয়া- মোনাজাতে নগর আ’লীগের সভাপতি, সাবেক মেয়র ও প্রয়াত এমপি শওকত হোসেন হিরণ’র রূহের মাগফেরাত কামনা করে দোয়া-মোনাজাত অনুষ্ঠিত হয়। এসময় দোয়া-মোনাজাতে উপস্থিত সকলে কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন।
এর আগে বরিশাল বেলা ১১টার দিকে বরিশাল সিটি কর্পোরেশনে সাবেক মেয়র প্রয়াত এমপি শওকত হোসেন হিরণ’র আত্মার শান্তি কামনায় মিলাদ ও দোয়া মোনাজাত অনুষ্ঠিত হয়। এসময় ভারপ্রাপ্ত প্যানেল মেয়র আলহাজ্ব কেএম শহীল্লাহ সহ কাউন্সিলর, কর্মকর্তা-কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন। এছাড়াও নগরীর বিভিন্ন মসজিদে কোরআন খতম, মিলাদ ও দোয়া-মোনাজাত অনুষ্ঠিত হয়।
উল্লেখ্য, ২০১৪ সালের ২২ মার্চ বরিশাল ক্লাবে অসুস্থ হয়ে পড়েন সিটির সাবেক সফল মেয়র আলহাজ্ব এ্যাড. শওকত হোসেন হিরণ। পরে তাকে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, ঢাকা এ্যাপোলো হাসপাতাল ও সিঙ্গাপুরের গ্লেইন ঈগল হাসপাতালে ভর্তি রেখে চিকিৎসা করানো হয়। দীর্ঘ ১৮দিন তাকে হাসপাতালে নিবির পর্যবেক্ষনে রাখা হয় তাকে। এর প্রেক্ষিতে ৯ এপ্রিল মৃত্যুকে আলিঙ্গন করে পরপারে চলে যান শওকত হোসেন হিরণ।