অবৈধ দখলদারদের হামলায় আইনজীবী সহকারিসহ আহত-৫

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ আইনজীবীদের ভূমি থেকে অবৈধ স্থাপনা সরাতে বলায় হামলার অভিযোগ করেছে আইনজীবীদের সহকারিরা। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে শহীদ আবদুর রব সেরনিয়াবাত আইনজীবী সমিতি সংলগ্ন স্থানে এ ঘটনা ঘটে। এতে এক মহিলাসহ কমপক্ষে ৫জন আহত হয়েছে। আহত আইনজীবী সহকারি শাহ আলম জানান, অনেক আগে থেকেই আইনজীবীদের জমি দখল করে একটি পরিবার অবৈধ স্থাপনা গড়ে বাস করে আসছিল। তাদের ঐ স্থাপনাটি সরানোর জন্য নোটিশও দেয়া হয়। কিন্তু এতে তারা কর্ণপাত না করে অবৈধভাবে ঐ ঘরে বসবাস করে আসছিল। গতকাল আইনজীবী সহকারি সমিতির সদস্য শাহ আলম সহ অন্যান্যরা পুনরায় ঘরটি সরানোর জন্য বললে সেখানে বসবাসরত মনোয়ারা বেগম, তার ৩ ছেলে ও মেয়ে উত্তেজিত হয়ে পড়ে। এসময় তারা হামলা করে শাহ আলম, আসলাম, হনুফা, রোকেয়া, শাহজাহান ও জব্বার সহ কয়েকজনকে আহত করেন। অপরদিকে বসবাসরত আহত মনোয়ারা বেগম জানান, বেলা আড়াইটার দিকে সহকারি সমিতির সদস্যরা তাদের বসত ঘর ছেড়ে দিতে বলে। সময়ের আবেদন জানালে সদস্যরা তাদের উপর ক্ষিপ্ত হয়ে অতর্কিত হামলা চালায়। ঘরবাড়ি ভাংচুর করে। এতে বাঁধা দিলে মনোয়ারাকে সহ তার ছেলেদের মারধর করে। এ বিষয়ে আইনজীবী সমিতির সভাপতি মোঃ মজিবর রহমান বলেন, মনোয়ারা বেগমের স্বামী মৃত. মোবারক আলী সমিতির নৈশ প্রহরী ছিল। ঐ সময় সমিতির সদস্যরা তাদের ঐ বসতঘরে থাকতে অনুমতি দেয়া হয়। পরবর্তীতে মোবারক আলী মারা যাওয়ায় তার ৩ ছেলে পিন্টু, মিন্টু ও সেন্টুকে নৈশ প্রহরী হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয়। এসময় তাদের বিরুদ্ধে মাদক সহ বোনের অসামাজিক কার্যাকলাপের অভিযোগ পায় আইনজীবী সমিতি। যার ফলে ঐ তিন ভাইকে চাকুরীচ্যুত করে ঘরটি ছেড়ে দিতে বলা হয় এবং বিভিন্ন সময়ে ঘর ছাড়ার জন্য নোটিশ দেয়া হয়। এ নোটিশ উপেক্ষা করেও তারা বসবাস করতে থাকে। গতকাল পুনরায় তাদের ঘর থেকে নেমে যেতে বলা হলে তারা হামলা চালায়। এসময় মরিচের গুড়া নিক্ষেপ সহ লাঠি-সোটা নিয়ে হামলা করে। এতে বেশ কয়েকজন আহত হয়। পরবর্তীতে ঐ জায়গাটি জেলা প্রশাসনের দাবী করে না ছাড়ার হুমকি দেয়। এ ঘটনায় জেলা প্রশাসক ড. গাজী মো. সাইফুজ্জামান সম্পত্তিটি আইনজীবী সমিতির বলেই প্রকাশ করেন।