অবসরে যাওয়ার দুই মাস পর আবার শেবাচিমের ভারপ্রাপ্ত পরিচালক

নিজস্ব প্রতিবেদক॥ অবসর গ্রহনের প্রায় দুই মাস পর পূনরায় শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভারপ্রাপ্ত পরিচালক হিসেবে দায়িত্ব গ্রহন করলেন ডা. মু. কামরুল হাসান সেলিম। গত ১৯ এপ্রিল রবিবার স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যান মন্ত্রনালয় থেকে তাকে মুক্তিযোদ্ধা কোঠায় দুই বছর চাকুরীর সময় বৃদ্ধির আদেশ জারি করেন। মহামান্য রাস্ট্রপতির আদেশক্রমে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যান মন্ত্রনালয়ের উপ-সচিব (পার-২) একেএম ফজলুল হক স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে এই পদায়ন দেয়া হয়েছে। ইতোমধ্যে আদেশ হাতে পেয়ে গতকাল সোমবার দুপুরে পূনরায় ভারপ্রাপ্ত পরিচালক হিসেবে দায়িত্ব ভার গ্রহন করেছেন ক্ষমতাসীন দলের স্বাচিপ নেতা ডা. মু. কামরুল হাসান সেলিম। পূনরায় তিনি হাসপাতালের পরিচালক হিসেবে যোগাদন করায় গতকাল তাকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন চিকিৎসক, নার্স ও কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ।
স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যান মন্ত্রনালয়ের জারিকৃত প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের ৬ এপ্রিল ৪৮০০০০০০০০৩১২০৩৯১৪২১৩ সংখ্যক শর্ত মোতাবেক মুচলেকা প্রদান করায় শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের প্রাক্তন ভারপ্রাপ্ত পরিচালক ডা. মু. কামরুল হাসানকে ঞযব ঢ়ঁনষরপ ংবৎাধহঃং (ৎবঃরৎবসবহঃ) অপঃ,১৯৭৪ (ধসবহফসবহঃ ২০১০) এবং ঞযব ঢ়ঁনষরপ ংবৎাধহঃং (ৎবঃরৎবসবহঃ) অপঃ. ১৯৭৪ (ধসবহফসবহঃ ২০১৩) অনুযায়ী মুক্তিযোদ্ধা সরকারি কর্মকর্তার অবসর গ্রহণের বয়স ৬০ বছরে উন্নীতপূর্বক শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ভারপ্রাপ্ত পরিচালক পদে পদায়ন করা হলো। একই সাথে বলা হয়েছে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রদত্ত শর্ত পূরণে ব্যর্থ হলে ডা. মু. কামরুল হাসান (৩২০৬৬) এর মুক্তিযোদ্ধা কর্মকর্তা হিসেবে প্রদত্ত আর্থিক সুবিধা ফেরত প্রদান করতে বাধ্য থাকবেন। গত ২৮ ফেব্রুয়ারী হতে এ আদেশ অনুযায়ী যোগদান পর্যন্ত সময় কালকে বাধ্যতামূলক অপেক্ষমান কাল হিসেবে গণ্য করা হলো।
উল্লেখ্য, গত ২৮ ফেব্রুয়ারী শেবাচিম হাসপাতালের ভারপ্রাপ্ত পরিচালক হিসেবে দায়িত্বে থাকা অবস্থায় অবসর গ্রহন করেছিলেন ডা. মু. কামরুল হাসান সেলিম। তবে পরবর্তীতে তিনি মুক্তিযোদ্ধা কোঠায় দুই বছর চাকুরী বাড়াতে আবেদন করেন। এর প্রেক্ষিতে মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক মন্ত্রনালয়ের শুপারিশক্রমে এবং রাষ্ট্রপতির নির্দেশক্রমে ডা. কামরুল হাসান সেলিমের চাকুরীর মেয়াদ কাল বাড়িয়ে দেয় স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয়।