আগৈলঝাড়ার পয়সারহাট বন্দরে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে পুড়েছে আট দোকান | | ajkerparibartan.com আগৈলঝাড়ার পয়সারহাট বন্দরে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে পুড়েছে আট দোকান – ajkerparibartan.com
আগৈলঝাড়ার পয়সারহাট বন্দরে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে পুড়েছে আট দোকান

3:48 pm , November 22, 2019

 

কেএম আজাদ রহমান, আগৈলঝাড়া ॥ এলপি গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরনে গোপালগঞ্জের সীমান্তবর্তি আগৈলঝাড়া উপজেলার পয়সারহাটের আলীম উদ্দিন মার্কেটে এক ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে কোটি টাকার সম্পদ পুড়ে গেছে। বৃহস্পতিবার রাতের ওই অগ্নিকান্ডে বরিশালের গৌরনদী-আগৈলঝাড়াÑগোপালগঞ্জ মহাসড়কের পয়সার হাট ব্রীজের পশ্চিম প্রান্তের ঐ মার্কেটে অগ্নিকান্ডে ৮টি দোকান সম্পুর্ন ভস্মিভূত হয়েছে। ফায়ার সার্ভিসের গৌরনদী, কোটালিপাড়া ও গোপালগঞ্জের ৩টি ইউনিট প্রায় আড়াই ঘন্টার চেষ্টায় আগুন আয়ত্বে আনতে সক্ষম হয়। এ সময় বরিশালÑগৌরনদী-আগৈলঝাড়া-গোপালগঞ্জÑখুলনা মহাসড়কে যানবাহন চলাচল প্রায় ৩ ঘন্টা বন্ধ ছিল। ফলে রাতের আঁধারে কয়েক হাজার যাত্রী নিয়ে বিপুল সংখ্যক যানবাহন পয়সার হাট সেতুর দু প্রান্তে আটকে ছিল। ক্ষতিগ্রস্থ ব্যবসায়ী, প্রত্যক্ষদর্শী ও এলাকাবাসী জানিয়েছে, বৃহস্পতিবার রাত পৌনে ১০টার দিকে আলীম উদ্দিন মার্কেটের ঢাকা ডেন্টাল ক্লিনিকের নিচে পেট্রোল তেল ব্যবসায়ী আলমগীর দাড়িয়া’র এলপিজি গ্যাসের গোডাউনে রাখা সিলিন্ডার বিস্ফোরিত হয়ে অগ্নিকান্ডের সূত্রপাত হয়। মুহুর্তের মধ্যে বিকট শব্দে আগুনের লেলিহান শিখা ৩০/৩৫ ফুট উচ্চতায় উঠে চার দিকে ছড়িয়ে পড়ে। হঠাৎ বিস্ফোরনের শব্দ ও সাথে আগুনের লেলিহান শিখা দেখে মার্কেটের ব্যবসায়ী-ক্রেতা, সাধারন পথচারী ও এলাকাবাসীর মধ্যে ভয়াবহ আতংক ছড়িয়ে পড়ে। আগৈলঝাড়াতে কোন ফায়ার স্টেশন না থাকায় ১৭ কিলোমিটার দুরে গৌরনদীতে খবর দেয়া হয়। সেখান থেকে দমকল ইউনিট এসে পৌছার আগেই পার্শ্ববর্তি কোটালীপাড়া দমকল ইউনিট দূর্ঘটনাস্থলে পৌছে কাজ শুরু করে। একইসাথে গোপালগঞ্জ সদর ফায়ার ষ্টেশনেও খবর দেয়া হয়।
পাশাপাশি স্থানীয় ব্যবসায়ী সহ এলাকাবাসী মিলে লাগসই প্রযুক্তিতে পানি ছুড়ে আগুন নেভানোর চেষ্টা চালান। রাত সোয়া ১০টার দিকে কোটালীপাড়া ফায়ার ষ্টেশনের একটি ইউনিট এসে আগুন নেভানোর কাজ শুরু করে। এর পরপরই গৌরনদী ফায়ার সার্ভিস ষ্টেশন ও গোপালগঞ্জ সদর ফায়ার সার্ভিস ষ্টেশনের আরো দুটি ইউনিট দূঘটনাস্থলে পৌছে এলাকাবাসী ও ব্যবসায়ীদের সহয়তায় আগুন নেভানোর কাজে অংশ নেয়। ফায়ার সার্ভিসের ৩টি ইউনিটের চেষ্টায় রাত সাড়ে ১১টার দিকে আগুন নিয়ন্ত্রনে আসে। ততক্ষণে বাজারের মিঠু বেপারী ফার্নিচারের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, মনোতোষ এর ফানির্চারের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, আলমগীর দাড়িয়ার হার্ডওয়ারে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, সুমন মোল্লার হার্ডওয়ারে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, পরিমল হালদারের ডেন্টাল ক্লিনিক, অমল শীলের সেলুন, আনোয়ার হোসেন অষুধের ফার্মেসী, সোবাহান মিয়ার মিষ্টির ব্যবসা প্রতিষ্ঠানসহ ৮টি পুরোপুরিভাবে পুড়ে যায় এবং আংশিক ক্ষতিগ্রস্ত হয় আরও ৩টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান। এদিকে, রাত ১২টার দিকে পুরোপুরি আগুন নেভানোর পরে ক্রমে মহাসড়কটি খুলে দেয়া হয়।
গৌরনদী ফায়ার স্টেশনের ষ্টেশন অফিসার মোঃ কাঞ্চন আলী মৃধা জানান, মার্কেটের ঢাকা ডেন্টাল ক্লিনিকের নিচে এলপি গ্যাসের গোডাউনে রাখা সিলিন্ডার বিস্ফোরিত হয়ে অগ্নিকান্ডের সূত্রপাত ঘটেছে। ব্যবসায়ীদের ক্ষয়ক্ষতির পরিমান প্রায় কোটি টাকা বলে প্রাথমিকভাবে অনুমান করছেন দায়িত্বশীল মহল।
অপরদিকে, খবর পেয়ে ওই রাতেই উপজেলা চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রইচ সেরনিয়াবাত, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বিপুল চন্দ্র দাস, উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি সুনীল কুমার বাড়ৈ, সাধারণ সম্পাদক আবু সালেহ মোঃ লিটন সেরনিয়াবাত, থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আফজাল হোসেন, বাকাল ইউপি চেয়ারম্যান বিপুল দাস তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। এসময় উপজেলা পরিষদ থেকে ক্ষতিগ্রস্থ ব্যবসায়ীদের সার্বিক সহযোগীতার আশ্বাস দেয়া হয়।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০  




মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT