রাজাপুরে পিতার মাথায় লোহা রড ঢুকিয়ে হত্যা | | ajkerparibartan.com রাজাপুরে পিতার মাথায় লোহা রড ঢুকিয়ে হত্যা – ajkerparibartan.com
রাজাপুরে পিতার মাথায় লোহা রড ঢুকিয়ে হত্যা

2:42 pm , November 9, 2019

রাজাপুর প্রতিবেদক ॥ রাজাপুরের ছোট কৈবর্তখালি গ্রামের ফকিরহাট এলাকায় ছেলে হৃদয় খানের (২০) রডের আঘাতে পিতা দেলোয়ারা হোসেন খানের (৪৫) মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার রাত ৮টার দিকের এ ঘটনায় আহত পিতা শেবাচিমে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাত আড়াইটার দিকে তিনি মারা যান। এ ঘটনায় পুলিশ ছেলে হৃদয়কে শনিবার দুপুর পর্যন্ত গ্রেফতার করতে পারেনি। স্থানীয়রা জনান, বখাটে ও উগ্র প্রকৃতির বেকার ঘুরে বেড়ানোর ছেলে হৃদয় কোন কাজকর্ম না করে প্রতিদিন দিনমজুর বাবার কাছ থেকে বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন অঙ্কের টাকা দাবি করতেন। কিন্তু দিনমজুর বাবা ছেলের এতো টাকার চাহিদা মেটাতে ব্যর্থ হতো। এ নিয়ে বিভিন্ন সময় বাবার উপর চড়াও হতো। ঘটনার সময় এসব বিষয় নিয়ে কথা কাটাকাটির এক পর্যায় ঘরে থাকা রড নিয়ে মাথায় ঢুকিয়ে দেয়। স্ত্রী নিয়ে হৃদয় বাবার সংসারেই থাকতো এবং একাধিক বিয়ে করা হৃদয় এলাকায় উগ্র বখাটে হিসেবে পরিচিত। নিহত দেলোয়ার হোসেন খান এর মা কোহিনুর বেগম জানান, তিনি তার ছেলেহত্যার বিচার চান। বখাটে হৃদয় ইতিপূর্বে তিনটি বিবাহ করেছে। সে পরিবারের লোকজনকে প্রতিনিয়ত শারীরিক নির্যাতন করে। রাজাপুর থানার ওসি জাহিদ হোসেন জানান, বেকার বিবাহিত ছেলের হাত খরচের টাকা না দেয়ায় বাকবিতন্ডার এক পর্যায় ক্ষিপ্ত হয়ে দিনমজুর পিতার মাথায় লোহার রড দিয়ে আঘাত করলে মাথায় রড ঢুকে যায়। এতে তিনি জ্ঞান হারিয়ে ফেলে এবং মাথা দিয়ে প্রচুর রক্তক্ষরন হয়। রাতেই তাকে উদ্ধার করে প্রাথমিক রাজাপুর স্বাস্থ্য কেন্দ্রে নিয়ে গেলে দ্রুত তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বরিশাল শেবাচিমে প্রেরণ করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গভীর রাত আড়াইটার দিকে তার মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে এবং অভিযুক্ত ছেলেকে গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত আছে।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০  




মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT