নলছিটিতে একটি পরিবারকে ভিটা ছাড়া করার চেষ্টা | | ajkerparibartan.com নলছিটিতে একটি পরিবারকে ভিটা ছাড়া করার চেষ্টা – ajkerparibartan.com
নলছিটিতে একটি পরিবারকে ভিটা ছাড়া করার চেষ্টা

3:35 pm , November 4, 2019

নলছিটি প্রতিবেদক ॥ নলছিটি উপজেলার কুশঙ্গল গ্রামের বাসিন্দা সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত কার্পেন্টার আব্দুল মজিদ হাওলাদারকে নিজ বসতভিটা থেকে উচ্ছেদ করার জন্য হত্যার হুমকি এবং দীর্ঘদিন ধরে একাধিক মিথ্যা মামলায় হয়রানি করা হচ্ছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। নিরীহ এই ব্যক্তির পরিবারকে একই বাড়ির মো. হানিফ হাওলাদার পক্ষ নানামুখী চাপ সৃষ্টি করছে বলে জানা গেছে। গত ২৭ অক্টোবর দুপুরে হানিফ হাওলাদারের পরিবারের সদস্যরা আব্দুল মজিদ হাওলাদারকে প্রাণনাশের হুমকি দিলে ওইদিন বিকেলে তিনি নলছিটি থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন। বর্তমানে ওই পরিবারটি রয়েছে চরম নিরাপত্তাহীনতায়। নলছিটি থানার ডিউটি অফিসার এএসআই অনিক সিদ্দিকী জিডির বিষয়টি বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
জিডি সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার কুশঙ্গল গ্রামের আব্দুল মজিদ হাওলাদারের সঙ্গে একই বাড়ির মো. হানিফ হাওলাদার গংদের জমিজমা নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলছে। ওই বিরোধের জের ধরে মজিদ হাওলাদারের পরিবারের সদস্যদের বিরুদ্ধে একাধিক মিথ্যা মামলা দায়ের করেন হানিফ হাওলাদারের ভাই হাবিব হাওলাদার ও তার আত্মীয়-স্বজনরা। সম্প্রতি মজিদ হাওলাদারের বাগানের বিভিন্ন ধরনের চারা গাছ ভেঙে ও কেটে ফেলে হানিফ পক্ষ। এর প্রতিবাদ করলে হানিফ হাওলাদারের স্ত্রী হেনারা বেগম, ছেলে মো. রুম্মান ও তাদের আত্মীয় পারুল বেগম ও সুফিয়া বেগম ওইদিন দুপুর ১টার দিকে আব্দুল মজিদ হাওলাদারকে বিভিন্নভাবে ভয়-ভীতি দেখিয়ে বসতবাড়ি থেকে উচ্ছেদ ও প্রাণনাশের হুমকি দেয়।
নির্যাতিত আব্দুল মজিদ হাওলাদার সাংবাদিকদের বলেন, ঘটনার বিচার ও নিজেদের নিরাপত্তার জন্য তিনি থানায় জিডি করেছেন।
তবে হানিফ হাওলাদার অভিযোগ অস্বীকার বলেন, এসব মিথ্যা অভিযোগ দিয়ে তাদের হয়রানি করা হচ্ছে।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০  




মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT