বিয়ের দুই মাস পর লাশ হলেন মুনিয়া | | ajkerparibartan.com বিয়ের দুই মাস পর লাশ হলেন মুনিয়া – ajkerparibartan.com
বিয়ের দুই মাস পর লাশ হলেন মুনিয়া

2:46 pm , October 13, 2019

রাজাপুর প্রতিবেদক ॥ রাজাপুরের সাতুরিয়া ইউনিয়নের উত্তর তারাবুনিয়া ঈদগা সংলগ্ন শ্বশুরবাড়ি থেকে মুনিয়া আক্তার (১৯) নামে গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। রোববার সকালে ময়নাতদন্তের জন্য তার লাশ ঝালকাঠি সদর হাসপাতাল মর্গে গ্রেরণ করা হয়। মুনিয়ার স্বজনদের অভিযোগ তাকে হত্যার করা হয়েছে, তবে তার স্বামীর পরিবারের দাবি, ব্রেনস্টোকে মুনিয়ার মৃত্যু হয়েছে। নিহত মুনিয়া ভান্ডারিয়ার রাজপাশা গ্রামের সোহবার হাওলাদারের মেয়ে ও রাজাপুরের উত্তর তারাবুনিয়া গ্রামের মতিয়ার রহমান মোল্লার ছেলে সুমন মোল্লার স্ত্রী। মুনিয়ার ভাই মো. সোলায়মান ও মা নাসিমা বেগম জানান, দুই মাস পূর্বে সুমন মোল্লার সাথে মুনিয়ার প্রেমের সম্পর্ক মাধ্যমে বিবাহ হয়। যশোরে একটি প্রাইভেট কোম্পানিতে চাকরি করার সুবাদে স্বামী-স্ত্রী যশোরের রানির হাট এলাকায় বসবাস করতো। সুমন শুক্রবার রাতে মোবাইলের মাধ্যমে মুনিয়া ব্রেস্টোক করেছে বলে জানায়। ভোররাতে যশোর থেকে মুনিয়ার মৃতদেহ নিয়ে স্বামী সুমন রাজাপুরের নিজ বাড়িতে আসে। মৃতদেহ দেখে হত্যা করা হয়েছে এমন সন্দেহ হলে শনিবার রাজাপুর থানায় লিখিত অভিযোগ দিলে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে রাতে থানায় রাখে। মুনিয়ার শাশুড়ি নুরবানু জানান, তার পুত্রবধূ মুনিয়া হঠাৎ অসুস্থ্য হয়ে হলে সুমন মুনিয়াকে স্থানীয় হাসপাতালে নিলে ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করে। রাজাপুর থানা ওসি জাহিদ হোসেন জানান, অভিযোগের ভিত্তিতে মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় অপমৃত্যু মামলা রেকর্ড করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পেলে মৃত্যুর আসল কারন জানা যাবে।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ




মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT