সাবেক কাউন্সিলর জাকিরের অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ নিয়ে বিভ্রান্তির ব্যাখ্যা দিলেন মেয়র সাদিক আবদুল্লাহ | | ajkerparibartan.com সাবেক কাউন্সিলর জাকিরের অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ নিয়ে বিভ্রান্তির ব্যাখ্যা দিলেন মেয়র সাদিক আবদুল্লাহ – ajkerparibartan.com
সাবেক কাউন্সিলর জাকিরের অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ নিয়ে বিভ্রান্তির ব্যাখ্যা দিলেন মেয়র সাদিক আবদুল্লাহ

3:08 pm , October 8, 2019

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ বরিশাল সিটি কর্পোরেশন কর্তৃক শহীদ আবদুর রব সেরনিয়াবাত বরিশাল প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদকের নির্মাণাধীন অবৈধ ভবন উচ্ছেদের সার্বিক বিষয় নিয়ে সংবাদ সম্মেলন করেছেন সিটি মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ। গতকাল মঙ্গলবার সন্ধ্যায় এনেক্স ভবনের সভা কক্ষে সাংবাদিকদের নিয়ে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় মেয়র বলেন অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা সিটি কর্পোরেশনের দায়িত্ব। কিন্তু সাবেক কাউন্সিলর জাকিরের নির্মানাধীন অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ নিয়ে নানা মহলে বিশেষ করে সাংবাদিকদের মধ্যে বিরুপ প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে। তাই বিষয়টি পরিস্কার করার জন্যই মূলত এ আলোচনা। মেয়র বলেন আইনের উর্ধ্বে কেউ নয়। আমরা নিয়ম মাফিক ওই অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করতে গিয়েছিলাম। কিন্তু অবৈধ স্থাপনাটি রক্ষা করতে বিষয়টি তিনি ভিন্ন ভাবে উপস্থাপন করে উদ্যত পরিবেশ সৃষ্টি করে বিরুপ আলোচনার জন্ম দিয়েছেন। মূলত প্রভাবশালী হবার কারনে তিনি এই সুযোগটি ব্যবহার করেছেন। তার মুল উদ্দেশ্যে ছিল, সাংবাদিকদের সাথে মেয়র ও কাউন্সিলরদের সম্পর্ক নষ্ট করা। সেই উদ্দেশ্য সফল হয়নি। এই নগরীতে অবৈধ কিছু করে কোন প্রভাবশালী তা বৈধ করতে পারবে না জানিয়ে মেয়র বলেন একটি অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করতে যেসব ধাপ বা কার্যক্রম করতে হয় কর্পোরেশন তা সবই করেছে। অবৈধ স্থাপনা ভাঙ্গতে গিয়ে কর্পোরেশনের কর্মীরা যে নির্যাতনের শিকার হয়েছে, তা একজন সাবেক কাউন্সিলরের কাছ থেকে আমি আশা করিনি। কিন্তু জাকির নিয়মের তোয়াক্কা না করে নিজের ইচ্ছাই ফলাতে চেয়েছেন। মেয়র বলেন, জাকির মূলত পরিবেশ ঘোলাটে করে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ বন্ধ করার প্রয়াস চালিয়েছে। তার স্থাপনা সম্পূর্ন অবৈধ। তাই নিয়ম অনুযায়ী তা উচ্ছেদ করা হবে। বিষয়টি নিয়ে বিভ্রান্ত না হয়ে কর্পোরেশনের কাজে সহযোগিতা করার জন্য তিনি সকল সাংবাদিকদের অনুরোধ করেছেন। মেয়র বলেন, আমাকে সংশোধন করার জন্য যে কেউ নিউজ করতে পারে। কিন্তু মঙ্গলবারের প্রকাশিত কয়েকটি পত্রিকায় উদ্দেশ্যে প্রনোদিতভাবে সিটি কর্পোরেশনের কাউন্সিলর ও কর্মকর্তাদের টার্গেট করেছে। এই সংবাদ ব্যক্তিগত আক্রোসের জেরে করা হয়ে বলে আমরা মনে করছি বলেন মেয়র। সংবাদ সম্মেলনে প্যানেল মেয়র-১ কাউন্সিলর গাজী নঈমুল হোসেন বলেন, সিটি কর্পোরেশন আইনগতভাবে যা যা করা দরকার, সেই মোতাবেক ব্যবস্থা নিয়েছিল। কিন্তু অবৈধ উচ্ছেদ যাতে না হয়, সেই জন্য সু-পরিকল্পিতভাবে প্রশাসন এবং সাংবাদিকদের কাছে ভুল ব্যাখ্যা করা হয়েছে। এছাড়াও বিসিসির প্যানেল মেয়র রফিকুল ইসলাম খোকন, গাজী নঈমুল ইসলাম লিটুসহ বেশ কয়েকজন কাউন্সিলর বক্তব্য রাখেন। অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন প্যানেল মেয়র-৩ আয়শা তৌহিদ লুনা, এটিএম শহীদুল্লাহ কবীর, আনিছুর রহমান দুলাল, জিয়াউর রহমান বিপ্লব, তৌহিদুর রহমান ছাবিদ, সাইয়েদ আহম্মেদ মান্না প্রমুখ। উল্লেখ্য সোমবার বিকেলে নগরীর ২০নং ওয়ার্ডের কলেজ রো এলাকায় বিসিসির সাবেক কাউন্সিলর জাকিরের অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করতে অভিযানে যায় সিটি কর্পোরেশন।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০৩১  




মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT