রঙিন আলো, গান আর ঢাকের বাজনায় মুখরিত নগরী | | ajkerparibartan.com রঙিন আলো, গান আর ঢাকের বাজনায় মুখরিত নগরী – ajkerparibartan.com
রঙিন আলো, গান আর ঢাকের বাজনায় মুখরিত নগরী

5:41 pm , October 17, 2018

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ নানান রঙের আলোয় আর গান-ঢাক-ঢোলের বাজনায় মুখরিত নগরী। সনাতন হিন্দু ধর্মালম্বীদের শারদীয় দুর্গাপূজাকে ঘিরে নগরীতে এখন উৎসব মুখর পরিবেশ। প্রধান সড়ক সদর রোডসহ ৩৮ পূজা মন্ডপ এলাকায় দিনভর ভীড় করছে ভক্ত ও দর্শনার্থীরা। দিনভর ধর্মীয় গান, পূজা, প্রসাদ বিতরনের মাধ্যমে কাটিয়েছে ভক্তরা। সন্ধ্যার পর দলবেধেঁ মন্ডপে মন্ডপে গিয়ে প্রতিমা দর্শন করেছে সব বয়সীরা। উপভোগ করছেন প্রতিমার শৈল্পিকতা, আলোক সজ্জা ও বিভিন্ন ধরনের ব্যতিক্রমী সাজ। অন্যান্য বছরের চেয়ে এবার নগরীতে ব্যাপকভাবে চলছে শারদীয় দুর্গা উৎসব।
ভক্তরা জানিয়েছে, এবার স্বর্গ থেকে মত্য বা পৃথিবীতে দেবীর আগমন হয়েছে ঘটকে। ষষ্ঠীর পূর্বে বোধন’র মাধ্যমে মত্য আসা দেবি দূর্গা থাকবেন পাঁচদিন। আর এই পাঁচদিনকে ঘিরে চলবে এ উৎসব। ষষ্ঠী ও সপ্তমী শেষ হয়েছে। গতকাল ছিল অষ্টমী বা কুমারী পুজা। কাল নবমী ও শুক্রবার দশমী পূজা শেষে দোলায় চরে আবার স্বর্গে ফিরে যাবেন দেবী। ওই দিন তাকে বিসর্জনের মাধ্যমে বিদায় দিয়ে উৎসবের পর্দা নামবে।
গতকার অষ্টমী পুজা উপলক্ষে সকালে ¯œান সেরে নতুন জামা-কাপড় পরিধান করে ভক্তরা ভীড় করে মন্ডপে। তারপর পূজো দেখা ও অঞ্জলী দিয়ে দিন পার করেছে ভক্তরা। বিকেলের পর থেকে গভীর রাত পর্যন্ত ভক্তরা পরিবার পরিজন নিয়ে ছুটেছে মন্ডপে। শুধু সনাতন ধর্মাবলম্বীরাই নন, সকল ধর্মের দর্শনার্থীদের ভিরে পরিপূর্ন থাকছে মন্ডপ এলাকা। পরিবার পরিজন নিয়ে তারাও আসছেন উৎসবের আনন্দ ভাগ করে নিতে।
সূত্র মতে, গত ১৫ অক্টোবর শুরু হয় দূর্গা পুজা। এক মাস আগ থেকে এই উৎসবের প্রস্তুতি নেয়া হয়। জেলা ও মহানগরে মোট ৬০১ মন্ডপে এই উৎসব হচ্ছে। মহানগরে ব্যক্তিগত ৫ টিসহ মোট ৩৮ টি মন্ডপে পূজা হচ্ছে। প্রতিটি মন্ডপ সাজানো হয়েছে নানা ব্যতিক্রমী সাজে। এর মধ্যে প্রধান প্রধান মন্ডপ ফলপট্রি মহানগর পূজা মন্ডপ, কাটপট্রি, শংকর মঠ, ভটিখানা মন্ডগুলোতে দর্শনার্থীদের উপচে পড়া ভীড় দেখা গেছে। বাহারী আলোকসজ্জা, বিশালাকার প্রবেশদার, উন্নত সাউন্ড সিস্টেম এ নানা ধরনের গান ভক্তদের সাথে সাথে আকৃষ্ট করছে সাধারন পথচারীদেরও। অনেকই শিশু সন্তানকে নিয়ে পূজা দেখতে এসে মুগ্ধ হয়ে হারাচ্ছেন ছেলে বেলার স্মৃতিতে। প্রতিটি মন্ডপে দর্শনার্থীরা কোন ধরনের বিপত্তি ছাড়াই পরিবার পরিজন নিয়ে আসছে বলেও জানায় তারা। আইনশৃংখলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে রয়েছে এবং কোন ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি বলেও জানায় তারা।
দর্শনার্থী মিঠু সাহা সাথে আলাপকালে তিনি জানান, এ বছর ব্যাপক আয়োজনে পালিত হচ্ছে উৎসব। পরিবার নিয়ে এমন উৎসবের আনন্দ নির্বিঘেœ নিতে পেরে বেশ আনন্দিত ভক্তরা। নবমী ও দশমীর এই দুই দিন একই রকম সুন্দর পরিবেশে তারা এই উৎসব পালন করতে চান। এমন পরিবেশ রক্ষা করায় পূজা উদযাপন পরিষদ ও প্রশাসনের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন তিনি।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০৩১  
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT