বাকেরগঞ্জে ৬ স্বর্ণের দোকানে ডাকাতি | | ajkerparibartan.com বাকেরগঞ্জে ৬ স্বর্ণের দোকানে ডাকাতি – ajkerparibartan.com
বাকেরগঞ্জে ৬ স্বর্ণের দোকানে ডাকাতি

3:07 pm , September 19, 2019

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ বাকেরগঞ্জের কলসকাঠি বাজারে গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশ পরিচয়ে ৬টি স্বর্ণের দোকানে ডাকাতি হয়েছে। টহল পুলিশ ও নৈশ প্রহরীসহ বেশ কয়েকজনকে অস্ত্রের মুখে বেঁধে রেখে ডাকাতরা লুট করেছে বিপুল পরিমাণ স্বর্ণালঙ্কারসহ নগদ টাকা। খবর পেয়ে প্রতিরোধে এগিয়ে গিয়ে ডাকাতদের হামলায় আহত হয়েছে বাকেরগঞ্জ থানায় সহকারি উপ-পরিদর্শক (এএসআই)। আহত এএসআই মো. জসিমকে উদ্ধার করে প্রথমে বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ (শেবাচিম) হাসপাতালে ও পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় পাঠানো হয়েছে। পুলিশ জানায়, বুধবার রাতে গভীর রাতে ২/৩টি স্পিডবোটযোগে ১০ থেকে ১৫ ব্যক্তি কলসকাঠি বাজারে প্রবেশ করে নিজেদেরকে ডিবি পুলিশ পরিচয় দেয়। একপর্যায়ে তাদের কিছু সদস্য বাজারে ব্যাংক শাখার নিরাপত্তায় নিয়োজিত নাইট গার্ডসহ বাজারের লোকেদের ধরে পেছন থেকে হাত রশি দিয়ে বেঁধে পাশের সেবা ফার্মেসিতে নিয়ে আটকে রাখে।
অন্য ডাকাত সদস্যরা কলসকাঠি বাজারের লক্ষী জুয়েলার্স, কলসকাঠি অলঙ্কার ভবন, কানাই কর্মকারের স্বর্ণের দোকান, পাল অলঙ্কার ভবন ও সোনার গহনা ভবনসহ ৬ টি দোকানে লুট করে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, ঘটনাস্থলের কাছাকাছি থাকা বাকেরগঞ্জ থানার টহল টিম ঘটনা টের পেয়ে বাজারে ছুটে এসে ডাকাত সদস্যদের চ্যালেঞ্জ করে। এ সময় ডাকাত সদস্যরা তাদের চারদিক থেকে ঘিরে ফেলে। একপর্যায়ে টহল টিমের নেতৃত্বে থাকা এএসআই জসিম উদ্দিনের মাথায় লোহার রড দিয়ে আঘাত করলে তিনি মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। পরে ডাকাতরা স্বর্ণালঙ্কার ও নগদ টাকা নিয়ে স্পিডবোটযোগে পালিয়ে যায়।
ব্যবসায়ীদের দাবি, ডাকাত দল ৬০ ভরির বেশি পরিমান স্বর্নালংকার, ১ শত ভরির উপরে রুপা ও নগদ কয়েক লাখ টাকা লুট করেছে।
এদিকে ‘এএসআই জসিম এর নেতৃত্বে ওই টহল দলে দুই জন কনষ্টেবল ছিল। এএসআই জসিমকে মারধর করে বেধে ফেলা হলেও ওই দুই কনষ্টেবল রহস্যজনক কারণে ডাকাতদের প্রতিরোধে এগিয়ে আসেনি। দুই কনষ্টেবলের ভুমিকা নিয়ে রহস্যের সৃষ্টি হয়েছে।
এ বিষয়ে বাকেরগঞ্জ থানার ওসি আবুল কালামকে বলেন, ‘খবর পেয়ে রাতেই ঘটনাস্থলে আরও পুলিশ নিয়ে যান। কিন্তু ডাকতরা দ্রুত স্থান ত্যাগ করায় তাদের আটক করতে পারেননি। ডাকাতির মালামাল উদ্ধার এবং ডাকাতদের গ্রেপ্তারে পুলিশের একটি টিম মাঠে নেমেছে বলে জানান ওসি।’
ওই কনষ্টেবলের ভুমিকা নিয়ে বাকেরগঞ্জ থানার ওসি আবুল কালামকে প্রশ্ন করা হলে তিনি বিষয়টি এড়িয়ে যাবার চেষ্টা করেন। পরে ওই দুই কনষ্টেবল কলসকাঠি ইউনিয়ন পরিষদের মধ্যে ছিলো বলে মুঠোফোনের সংযোগ কেটে দেন ওসি। এদিকে ডাকাতির ঘটনায় মামলা হবে বলেও জানিয়েছেন ওসি।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০  




মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT