মাত্র ৬ ঘন্টায় কোরবানির বর্জ্য মুক্ত নগরী | | ajkerparibartan.com মাত্র ৬ ঘন্টায় কোরবানির বর্জ্য মুক্ত নগরী – ajkerparibartan.com
মাত্র ৬ ঘন্টায় কোরবানির বর্জ্য মুক্ত নগরী

2:47 pm , August 14, 2019

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ কথা রেখেছেন বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ। পূর্ব ঘোষনা অনুযায়ী নির্ধারিত সময়ের দুই ঘন্টা আগেই অর্থাৎ মাত্র ৬ ঘন্টার মধ্যেই কোরবানীর বর্জ্য মুক্ত করা হয়েছে নগরী। এমনকি রাত ১১টার মধ্যে অপসারণ হয়েছে গৃহস্থলির নিয়মিত বর্জ্যও। সিটি মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহ’র নির্দেশে ৯শত পরিচ্ছন্নতা কর্মী কোরবানীর বর্জ্য সঠিক সময়ের মধ্যে অপসারন করে বেশ সাড়া ফেলেছেন। শুধু তাই নয়, প্রথম বারের মত মাত্র ৬ ঘন্টার মধ্যে কোরবানীর বর্জ্য অপসারণ কার্যক্রম নতুন এক দৃষ্টান্ত বলেও মনে করছেন নগরবাসি। তথ্য নিশ্চিত করে সিটি কর্পোরেশনের জনসংযোগ কর্মকর্তা বেলায়েত হাসান বাবলু জানান, মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ’র দিকে নির্দেশনা অনুযায়ী ঈদের দিন বেলা ২ টা থেকে নগরীর ওয়ার্ডগুলো থেকে পরিচ্ছন্নতা কর্মীরা কোরবানির বর্জ্য অপসারণ শুরু করেন। তারা রাত ৮ টা নাগাদ কোরবানির বর্জ্য নেয়ার কাজ শেষ করে। তাছাড়া রাত ১১টার মধে গৃহস্থলির নিত্যদিনের ময়লা-আবর্জনাও অপসারন করে ফেলেন পরিচ্ছন্নতা কর্মীরা। নিত্যদিনের বর্জ্য অপসারণ ইতিপূর্বে রাত ১০টায় শুরু হলেও ঈদের দিন তা দুই ঘন্টা আগেই শুরু হয়।
বিসিসির পরিচ্ছন্নতা কর্মকর্তা ডা. রবিউল ইসলাম বলেন, ৩০টি ওয়ার্ডে পশু কোরবানির জন্য ১৪২টি স্থান নির্ধারণ ছিলো। তবে তার বাইরেও বিভিন্ন পারা মহল্লায় পশু কোরবানী করা হয়। যা মেয়রের নির্দেশে আমরা যতো দ্রুত সম্ভব নগরী থেকে অপসারণ করে নির্দিষ্ট স্থানে ফেলা হয়েছে।
তিনি বলেন, আমাদের ৩ শত পরিচ্ছন্নতা কর্মী ছিলো। কোরবানির সময়ে আরো ৬ শত কর্মী যুক্ত করা হয় এই কাজে। যাদের দিয়ে একযোগে পরিচ্ছন্নতা কাজ কারানো হয়েছে। বিগত সময়ের থেকে ময়লাবহনকারী যানবাহনের সংখ্যাও বেশি ছিলো। সর্বোপরি মেয়র এর দিক নির্দেশনায় মাত্র ৬ ঘন্টার মধ্যেই বর্জ্য অপসারণ সম্ভব হয়েছে।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০৩১  




মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT