শ্বশুড়ের বিরুদ্ধে অভিযোগ এনে মিন্নি'র সংবাদ সম্মেলন | | ajkerparibartan.com শ্বশুড়ের বিরুদ্ধে অভিযোগ এনে মিন্নি’র সংবাদ সম্মেলন – ajkerparibartan.com
শ্বশুড়ের বিরুদ্ধে অভিযোগ এনে মিন্নি’র সংবাদ সম্মেলন

3:12 pm , July 14, 2019

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ বরগুনায় আলোচিত রিফাত শরীফ হত্যাকান্ড নিয়ে পাল্টা পাল্টি অবস্থান নিয়েছে তার বাবা ও স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নি’র পরিবার। ছেলের হত্যাকান্ডের পেছনে পুত্রবধূ মিন্নি জড়িত বলে তাকে গ্রেফতার দাবীতে সংবাদ সম্মেলনের এক দিন পর পাল্টা সংবাদ সম্মেলন করেছে পুত্রবধূ মিন্নি। তিনি সংবাদ সম্মেলন করে রিফাতের হত্যাকারীদের আড়াল করার অভিযোগ করেছেন শ^শুর দুলাল শরীফের বিরুদ্ধে। পাশাপাশি হত্যাকান্ডে মিন্নিকে জড়িয়ে অপপ্রচারকারীদের গ্রেফতার সহ বিচারের দাবীও জানানো হয়েছে। গতকাল রোববার দুপুরে বরগুনায় নিজ বাড়িতে নিহত রিফাত শরীফের বাবা’র করা সংবাদ সম্মেলনের প্রেক্ষিতে আয়োজিত পাল্টা সংবাদ সম্মেলনে আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নি সাংবাদিকদের সামনে এমন অভিযোগ তুলে ধরেন। এর আগে শনিবার রাতে বরগুনা প্রেসক্লাবে রিফাত শরীফ হত্যাকান্ড নিয়ে সংবাদ সম্মেলন করেন তার বাবা দুলাল শরীফ। এসময় তিনি ছেলের হত্যাকান্ডের পেছনে পুত্রবধূ মিন্নি’র নেপথ্যে থেকে মদদ দেয়ার দেয়া সহ ১০টি অভিযোগ তুলে ধরে তাকে গ্রেফতার করে জিজ্ঞাসাবাদের দাবী জানান।
এদিকে রিফাত হত্যার প্রতিবাদে বরগুনা শহরে রোববার সকালে মানববন্ধন করা হয়। ওই মানববন্ধন থেকেও রিফাতের হত্যাকারী হিসেবে তার স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নি’র জড়িত থাকার বিষয়ে অভিযোগ তুলে তার শাস্তির দাবী জানানো হয়।
এরপর নিজ বাড়িতে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে রিফাতের স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নি অভিযোগ করে বলেন, রিফাতকে কুপিয়ে হত্যার ঘটনায় দায়ের হওয়া মামলার অভিযুক্ত আসামিদের আড়াল করতেই আমার বিরুদ্ধে অপ্রচার চালানো হচ্ছে।
সংবাদ সম্মেলনে রিফাতের বাবার অভিযোগ ভিত্তিহীন অপ প্রচার দাবী করে আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নি বলেন, আমার শ^শুর অসুস্থ। তিনি কখন কি বলেন তার কোন ঠিক নেই। কোন মহল স্বার্থ হাসিলের জন্য তাকে দিয়ে আমাকে জড়িয়ে এমন ভিত্তিহীন অপ্রচার চালাচ্ছে। যাতে রিফাত হত্যা মামলাটি হালকা হয়ে যায় এবং অভিযুক্ত আসামিরা ছাড়া পেয়ে যায়। লিখিত বক্তব্যে মিন্নি প্রশ্ন তুলে বলেন, নয়ন বন্ডের সাথে আমার যদিই বিয়েই হবে তবে রিফাতের সঙ্গে বিয়ের সময় নয়ন কেন বাধা দিলো না ? মুলত কোন একটি মহলের চাপে পড়ে আমার শ^শুর দিয়ে মিথ্যা বলাচ্ছে।
তিনি বলেন, রিফাত শরীফই আমার একমাত্র স্বামী ছিলেন। বিয়ের পর থেকেই নয়ন বন্ড আমাকে উত্যক্ত করে। যা আমি আমার স্বামীকেও বলেছি। এমনকি আমার শ^শুর এই বিষয়টি জানতো। রিফাতের মৃত্যুতে আমার শ^শুর যেমন ছেলে হারিয়েছেন তেমনি আমিও বিধবা হয়েছি। তাই রিফাতের খুন হওয়াতে আমিও কম ব্যথিত নই। এজন্য রিফাত শরীফ হত্যাকান্ডের সাথে জড়িতদের দৃষ্টান্তমুলক শাস্তি’র দাবী জানান আয়শা সিদ্দিকা মিন্নি। এদিকে রোববার রাতে সংবাদ সম্মেলনের রিফাত হত্যাকান্ড নিয়ে ভাইরাল হওয়া তিনটি ভিডিও ফুটেজ এর দৃশ্যপট তুলে ধরেন তার বাবা দুলাল শরীফ। যা থেকে হত্যাকান্ডের সাথে আয়শা সিদ্দিকা মিন্নি’র জড়িত থাকার বিষয়টি প্রমান পায় বলে দাবী তার। সংবাদ সম্মেলনে দুলাল শরীফ সাংবাদিকদের বলেন, নয়ন বন্ডের সঙ্গে মিন্নি’র বিয়ের বিষয়টি মিন্নি ও তার পরিবার সুকৌশলে গোপন করেছে। নয়ন বন্ডের স্ত্রী থাকা অবস্থায় আমার ছেলে রিফাতকে বিয়ে করেছে মিন্নি। যা এরই মধ্যে নয়ন বন্ডের মা একাধিক সংবাদমাধ্যমকে এ বিষয়ে অনেক তথ্য দিয়ে সাক্ষাৎকার দিয়েছে।
দুলাল শরীফ অভিযোগ করেন, রিফাতের সঙ্গে বিয়ের পরেও নয়ন বন্ডের বাসায় মিন্নি’র নিয়মিতর আসা যাওয়া ছিলো। তাদের মধ্যে নিয়মিত যোগাযোগ হতো। রিফাতের ওপর হামলার ঘটনার পরও তার সঙ্গে নয়নের যোগাযোগ ছিলো। এমনকি হত্যাকান্ডের আগের দিন সকাল ৯টার দিকে নয়নের সঙ্গে দেখা করতে যায় মিন্নি। একই দিন সন্ধ্যায় নয়ন বন্ডের বাসায় যায় মিন্নি। রিফাতের বাবা দুলাল শরীফ অভিযোগ করে বলেন, ঘটনার দিন রিফাতকে ছাড়াই কলেজে যায় মিন্নি। কিন্তু ঘটনার কিছু সময় আগে রিফাতকে বাসা থেকে কলেজে ডেকে নিয়ে যায় মিন্নি। কারণ হত্যাকারীদের সঙ্গে মিন্নি’র আগে থেকেই যোগাযোগ ছিলো। মোটরসাইকেলে কলেজ থেকে মিন্নিকে নিয়ে আসার জন্য রিফাত গেলে হত্যাকারীদের না দেখে আবার কলেজে ঢুকে যায় মিন্নি।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে তিনি আরো বলেন, হত্যাকারীদের উপস্থিতি দেখে মিন্নি কলেজ থেকে বের হয়। ওই সময় মিন্নিকে নিয়ে আসতে গেলে হত্যকারীরা আমার ছেলের ওপর ঝাঁপিয়ে পড়ে। মিডিয়ায় প্রকাশিত নতুন ভিডিওতে যা পরিস্কার হয়ে গেছে। আমার ছেলেকে রিফাত ফরাজী ও অন্যরা যখন মারধর করতে করতে নিয়ে যাচ্ছিলো তখন স্বাভাবিকভাবেই পেছনে হাঁটছিল মিন্নি। এটি দেখে পরিস্কার বোঝা যায় আমার ছেলে হত্যার পেছনে মিন্নির হাত রয়েছে। এ প্রসঙ্গে বরগুনার পুলিশ সুপার মো. মারুফ হোসেন বলেন, আমি আগেও বলেছে হত্যাকারী যেই হোক কাউকেই ছাড় দেয়া হবে না। এ ক্ষেত্রে মিন্নি’র বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগের সত্যতা পেলে তাকেও গ্রেফতার করা হবে। রিফাত শরীফ হত্যাকান্ডের ঘটনা তদন্তে স্বচ্ছতা এবং সুষ্ঠুভাবে করতে পুলিশের পক্ষ থেকে যা করনিয় তার সব কিছুই করা হবে।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ




মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT