আলতাফ মাহমুদ সিকদারের উঠান বৈঠকে জনতার ঢল | | ajkerparibartan.com আলতাফ মাহমুদ সিকদারের উঠান বৈঠকে জনতার ঢল – ajkerparibartan.com
আলতাফ মাহমুদ সিকদারের উঠান বৈঠকে জনতার ঢল

6:10 pm , July 27, 2018

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ আসন্ন ৩০ জুলাই বরিশাল সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনকে সামনে রেখে নির্বাচনী উঠান বৈঠক করেছেন ২১নং ওয়ার্ডের জননন্দিত কাউন্সিলর প্রার্থী আলহাজ্ব আলতাফ মাহমুদ সিকদার। গতকাল শুক্রবার বিকাল ৩টায় নিজ নির্বাচনী এলাকা নগরীর অক্সফোর্ড মিশন রোডে এই উঠান বৈঠকটি অনুষ্ঠিত হয়েছে। ওয়ার্ডের সহ¯্রাধিক নারী এবং পুরুষের অংশগ্রহনে উঠান বৈঠকটি কানায় কানায় পূর্ণ হয়ে যায়। ওয়ার্ডবাসীর নিঃশর্ত ভালোবাসা এবং তাদের প্রকাশ্য জনসমর্থন দেখে আবেগে আপ্লুত হয়ে পড়েন আলতাফ মাহমুদ সিকদার।

উঠান বৈঠকে আলতাফ মাহমুদ সিকদার বলেন, দীর্ঘ ২৪ বছর ধরে আমি আপনাদের জনপ্রতিনিধি হিসেবে সেবা করে আসছি। আপনারাই আমাকে সেই দায়িত্ব দিয়েছেন। একজন কাউন্সিলরের করার মত কতটুকু ক্ষমতা আছে তা আপনারা যানেন। তার মধ্যেই আমি চেষ্টা করেছি আপনাদের চাহিদামত দাবী পূরন করার। আমার কাছে কেউ এসে খালি হাতে ফিরে গেছেন তা কেউ বলতে পারবে না।

তিনি বলেন, নির্বাচন করে আমার ব্যক্তিগত কোন উপকার হয় না। জনগনের ভালো করার জন্য এবং তাদের দাবিতেই আমি নির্বাচন করছি। এবারের নির্বাচনের পূর্বেও ওয়ার্ডের অনেক মানুষ আমার কাছে এসেছেন। জয়-পরাজয় পরের কথা। আগে আমাকে নির্বাচনে অংশ নেয়ার তারা অনুরোধ করেছে। তারা বলেছেন, ‘এমন কাউকে তারা কাউন্সিলর বানাবেন না যার কাছে দাঁড়ানো যাবে না, কথা বলা যাবে না। ভোটারদের আগ্রহের কারণেই আমি নির্বাচন করছি। ’

আলতাফ মাহমুদ সিকদার ভোটারদের উদ্দেশ্যে বলেন, আপনারা আমার পক্ষে স্বেচ্ছায় প্রচার-প্রচারনা করেছেন। আমার নিষেধ সত্ত্বেও মানুষের বাড়ি বাড়ি গিয়ে ভোট চেয়েছেন। আর ভোট চাইতে গিয়ে অনেক হুমকি-ধামকির সম্মুখিন হতে হয়েছে আপনাদের। মা-বোনদের ওড়না টেনে ধরেছে। নির্বাচনের পরে আপনাদের দেখিয়ে দেয়ার হুমকিও দিয়েছে। তার পরেও আপনারা ঝুকি নিয়ে আমার পক্ষে ভোট চেয়েছেন। ইভিএম’র প্রশিক্ষণ নিতে গিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থী’র লোকজন আপনাদের লাঞ্ছিত এবং বেইজ্জতি করেছে। যার সবকিছুই আমি জানি। আপনাদের সম্মান বাঁচাতে এবং হুমকি-ধামকির হাত থেকে রক্ষা করতেই আমি এযাবত কোন উঠান বৈঠক করিনি। আমার উঠান বৈঠকে আপনারা আসলে আপনারা ঘরে থাকতে পারতেন না। এজন্য আমি গোটা নির্বচনের মধ্যে একটি মাত্র উঠান বৈঠক করেছি।

তিনি বলেন, জয়-পরাজয় আল্লাহ’র হাতে। তিনি যাকে কামিয়াবী করবেন তিনিই বিজয়ী হবেন। আল্লাহ’র ইচ্ছায় আমি যদি আবার নির্বাচিত হই তবে আমার অসমাপ্ত উন্নয়ন সম্পন্নের মাধ্যমে ২১নং ওয়ার্ডকে একটি মডেল ওয়ার্ডে রুপান্তরিত করবো। পূর্বের মত করেই আপনাদের সুখ-দুঃখে পাশে থাকব। আর আল্লাহ যদি আমার ভাগ্যে বিজয় না লিখে থাকে, আমি যদি বিজয়ী না হই তবুও আমি খুশি যে আপনারা শেষ পর্যন্ত আমার পাশে ছিলেন এবং আছেন। আমিও প্রতিজ্ঞা করছি ভোটের ফলাফল যাই হোক আমি আপনাদের পাশে ছিলাম, আছি এবং থাকব।

বারবার নির্বাচিত জনপ্রিয় কাউন্সিলর আলতাফ মাহমুদ সিকদার বলেন, যারা ভোটারদের হুমকি-ধামকি দিচ্ছে তার জনগনের প্রতিনিধি হতে চায় না। তারা মানুষের জনসেবা করতে করার জন্য আসেনি। কিন্তু মানুষকে হুমকি দিয়ে লাভ নেই। আপনারা মনে রাখবেন সাপকে খেপিয়ে মেরে ফেলা যায় কিন্তু মানুষকে খেপিয়ে তুলে ভালো থাকা যায় না। তাই আগের দিন ভুলে যান। যার যার ভোট তার তার গণতান্ত্রিক অধিকার। তাদের শান্তিপূর্নভাবে ভোট দেয়ার সুযোগ দিন। পথে আটকে রেখে ভোট কেন্দ্রে যেতে দিবেন না এমন পরিকল্পনা থেকে সরে আসুন। জণগন আপনাদের প্রতিরোধ করে ভোট কেন্দ্রে যাবে। আগামী ৩০ জুলাই ভোট কেন্দ্রে গিয়ে সবাইকে পছন্দের প্রার্থীকে ভোট দিয়ে বিজয়ী করার আহ্বান জানান আলতাফ মাহমুদ সিকদার। সেই সাথে ২১নং ওয়ার্ডে সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ন ভোট গ্রহনের জন্য প্রশাসনের সহযোগিতাও চান তিনি।

উঠান বৈঠকে গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- আবুল খায়ের সিকদার, সিরাজুল আলম সিকদার, ডা. আবদুল খালেক, প্রকৌশলী আবদুর রব, হাবিবুর রহমান জাহাঙ্গীর, ব্যাংক’র এজিএম চুন্নু হাওলাদার, শেখ নজরুল ইসলাম, আবদুল হালিম হারুন, মো. শাহেব আলী প্রমুখ।

 

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০৩১  
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT