১৩নং ওয়ার্ডবাসীর প্রথম পছন্দ শাহিন খান | | ajkerparibartan.com ১৩নং ওয়ার্ডবাসীর প্রথম পছন্দ শাহিন খান – ajkerparibartan.com
১৩নং ওয়ার্ডবাসীর প্রথম পছন্দ শাহিন খান

6:37 pm , July 25, 2018

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ বরিশাল সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে ১৩নং ওয়ার্ডে জমে উঠেছে শেষ সময়ের প্রচার-প্রচারনা। ৩০ জুলাই ভোট গ্রহনের দিনকে সামনে রেখে রাত-দিন সমান তালে ভোটারদের দ্বারে-দ্বারে ছুটছেন চারজন সাধারণ কাউন্সিলর প্রার্থী। ওয়ার্ডটিতে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় চারজন থাকলেও প্রচার যুদ্ধে এগিয়ে আছেন দুইজন প্রার্থী। এদের মধ্যে একজন হলেন ১৩নং ওয়ার্ডের জনপ্রিয়মুখ ‘ঠেলাগাড়ি’ প্রতীকের প্রার্থী মেজবাউল মোর্শেদ খান শাহিন। শুধু প্রচারনার দিক থেকেই নয়, সৎ, যোগ্য এবং কর্মঠ ব্যক্তি হিসেবে এবং জনসমর্থনের দিক থেকেও এগিয়ে রয়েছেন তিনি। তাই আসন্ন ৩০ জুলাই’র নির্বাচনে শাহিন খানের জয়ের বিষয়ে আশাবাদী ওয়ার্ডের নবীন-প্রবীন থেকে শুরু করে সর্বস্তরের ভোটাররা।

জানাগেছে, সিটি কর্পোরেশনের ১৩নং ওয়ার্ডটি দীর্ঘ দিনের অবহেলিত। বিগত ২০০৮ সালের নির্বাচনের পরে ওয়ার্ডটিতে কিছুটা উন্নয়ন হয়েছে। কিন্তু ২০১৩ সালের নির্বাচনের পরে থুবড়ে পড়ে ওয়ার্ডটির সকল উন্নয়ন। ওয়ার্ডটিতে মেহেদী পারভেজ খান আবির কাউন্সিলর নির্বাচিত হলেও অভিজ্ঞতার অভাবে উন্নয়নের দিক থেকে পিছিয়ে পড়েন। যার দরুণ সীমাহীন ভোগান্তিতে পড়তে হয় ওয়ার্ডবাসীর। ওয়ার্ডের অভ্যন্তরে প্রধান সড়কগুলোও পরিনত হয় ময়লার ভাগারে। দুর্গন্ধে মানুষের পথচলা দুস্কর হয়ে পড়েছে। তাছাড়া ওয়ার্ডটিতে দ্বিতীয় বারের মত প্রতিদ্বন্দ্বিতায় অংশ নেয়া বর্তমান কাউন্সিলর মেহেদী পারভেজ খান আবিরের বিরুদ্ধে কিছু গুঞ্জনও রয়েছে। তিনি নিজের জনসমর্থন বাড়াতে এলাকার বিভিন্ন পর্যায়ের ব্যক্তিকে পুলিশ দিয়ে আটক করিয়ে আবার নিজেই ছাড়িয়ে আনেন। সালিশ বৈঠকে পক্ষপাতিত্ব এবং মুরুব্বী সমাজ থেকে দুরের থাকার অভিযোগও রয়েছে তার বিরুদ্ধে। এসব কারনে ওয়ার্ডটিতে সৎ, যোগ্য, অভিজ্ঞ, জনবান্ধব এবং কর্মঠ প্রার্থীর সন্ধানে নামেন ওয়ার্ডবাসী। তাদের দাবীর পরিপ্রেক্ষিতে সর্বশেষ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নামেন ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মেজবাউল মোর্শেদ খান শাহিন। তিনি একজন আওয়ামী লীগ নেতা হলেও দলমত নির্বিশেষে তাকেই কাউন্সিলর হিসেবে দেখতে চান ১৩নং ওয়ার্ডবাসী।

১৩নং ওয়ার্ডের বাসিন্দারা বলেন, ‘ঠেলাগাড়ি’ প্রতীকের প্রার্থী মেজবাউল মোর্শেদ খান শাহিন একজন ব্যবসায়ী। নগরীর সিকদারপাড়া এলাকাধীন খান সড়কের বাসিন্দা শাহিন খান’র পিছুটান নেই। পূর্ব পুরুষ থেকেই তারা মানুষের সেবা করে আসছেন। কারোর ক্ষতি নয়, বরং জনপ্রতিনিধি না হলেও একজন ভালোমানুষ হয়ে সাধারণ মানুষের পাশে থেকেছেন। কারোর মৃত্যুর খবরে ছুটে গেছেন দাফন-কাফনের ব্যবস্থা করতে। অসহায় এবং দুস্থ মানুষের পুনর্বাসন এবং তাদের সন্তানদের লেখা-পড়ার’র জন্য সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন। একজন জনপ্রতিনিধি’র যে কাজ তা জনপ্রতিনিধি না হয়েও করেছেন শাহিন খান। যিনি জনপ্রতিনিধি না হয়েও মানুষের পাশে ছিলেন তিনি জনপ্রতিনিধি হলে মানুষের উন্নয়ন না হলেও ক্ষতির সম্ভাবনা নেই। যে কারনে তাকে একটা সুযোগ দেয়া প্রয়োজন বলে মন্তব্য করেন ওয়ার্ডের সাধারণ ভোটাররা। তাদের মতে সুষ্ঠু ভোট হলে বিশাল ভোটের ব্যবধানেই বিজয়ী হবেন শাহিন খান।

অপরদিকে খোঁজ নিয়ে জানাগেছে, ১৩নং ওয়ার্ডে আওয়ামী লীগ থেকে সমর্থন পেয়েছেন কাউন্সিলর মেহেদী পারভেজ খান আবীর। তবে ওয়ার্ডের তৃনমুল পর্যায় থেকে শাহিন খানকে মৌন সমর্থন জানানো হয়েছে। তবে দলীয় কারনে তারা প্রকাশ্যে আসতে পারছে না। তাছাড়া শাহিন খানের একটি বিজয়ের ক্ষেত্রে সহায়ক ভুমিকা রাখতে পারে তার বোন জামাতা ও সাবেক কাউন্সিলর মীর আলতাফ উদ্দিন জসিম। কেননা ওয়ার্ডটিতে ভোটের রাজনীতিতে আলফাজ উদ্দিন জসিম ফ্যাক্টর হয়ে দাড়িয়েছে। ওয়ার্ডের ভোটারদের বিশাল একটি অংশ তার সমর্থক। মীর জসিম তার সম্বন্ধী’র শাহিন খানের পক্ষে প্রচারনায় নেমেছেন। যে কারনে অন্য প্রার্থীর অনেকটা ঘুমহারা হয়েছে।

ঠেলাগাড়ি প্রতীকের প্রার্থী মেজবাউল মোর্শেদ খান শাহিন বলেন, ভোট জণগনের নাগরিক অধিকার। তারা ভোট দিয়ে পাঁচ বছরের জন্য তাদের জনপ্রতিনিধি নির্বাচিত করবেন। আমার বিশ্বাস ১৩নং ওয়ার্ডের ভোটাররা কখনই ভুল সিদ্ধান্ত নেয়নি, আর ভবিষ্যতেও নিবে না। আমি আমাকে ভোট দিতে বলব না, উন্নয়নের সার্থে সৎ ও যোগ্য প্রার্থীকে ভোট দিতে বলব। জনগন যদি মনে করে আমি যোগ্য তবে আমাকে ভোট দিবে। তবে সুযোগ পেলে অবহেলিত ১৩নং ওয়ার্ডকে উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে গড়ে তোলার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন তিনি।

 

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০৩১  
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT