সিটি ভোটের তিন পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় ১৩৫ প্রার্থী | | ajkerparibartan.com সিটি ভোটের তিন পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় ১৩৫ প্রার্থী – ajkerparibartan.com
সিটি ভোটের তিন পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় ১৩৫ প্রার্থী

4:59 pm , July 9, 2018

রুবেল খান ॥ আসন্ন ৩০ জুলাই বরিশাল সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনো প্রার্থী চূড়ান্ত হয়েছে। মেয়র এবং কাউন্সিলর সহ তিনটি পদের বিপরউতে মোট প্রাথীর্র সংখ্যা দাড়িয়েছে ১৩৫ জনে। গতকাল সোমবার মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিন পর্যন্ত ২০ জন প্রার্থী’র মনোনয়ন প্রত্যাহারের মাধ্যমে ওই সংখ্যক প্রার্থী চূড়ান্ত হয়েছে। এদের মধ্যে মেয়র পদে ৬ জন, ৯টি সংরক্ষিত ওয়ার্ড কাউন্সিলর পদে ৩৫ জন এবং ২৭টি সাধারণ ওয়ার্ডের বিপরিতে ৯৪ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন। চূড়ান্ত হওয়া প্রার্থীদের মাঝে আজ ১০ জুলাই নির্বাচনী প্রতীক বরাদ্দ দেয়া হবে। প্রতীক পাওয়ার পর পরই প্রার্থীরা শুরু করতে পারবেন আনুষ্ঠানিক প্রচার প্রচারনা বলে জানিয়েছেন রিটার্নিং কর্মকর্তা ও আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা মো. মজিবর রহমান।
তিনি জানান, ৩০ জুলাই বরিশাল সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের ভোট গ্রহনের লক্ষ্যে গতকাল সোমবার ছিলো মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিন। এই দিন পর্যন্ত মোট ১টি মেয়র, ১২টি সাধারণ ও দুটি সংরক্ষিত ওয়ার্ড থেকে মোট ২০ জন প্রার্থী তাদের মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করে নির্বাচন থেকে সড়ে দাড়িয়েছেন। রিটার্নিং অফিসারের দেয়া তথ্য অনুযায়ী আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ, বিএনপি’র প্রার্থী আলহাজ্ব মজিবর রহমান সরওয়ার, জাতীয় পার্টির মো. ইকবাল হোসেন তাপস, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ’র ওবায়েদুর রহমান মাহবুব, বাংলাদেশ সমাজতান্ত্রিক দল (বাসদ) এর ডা. মানীষা চক্রবর্তী ও কমিউনিস্ট পার্টি’র প্রার্থী এ্যাড. একে আজাদ প্রার্থী হিসেবে মাঠে রয়েছেন। মেয়র পদে সাত জন প্রার্থীর মধ্যে খেলাফত মজলিস’র প্রার্থী অধ্যাপক একেএম মাহবুব আলম বিএনপি’র প্রার্থী মজিবর রহমান সরওয়ারকে সমর্থন জানিয়ে মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেছেন। এছাড়া জাতীয় পার্টির বিদ্রোহী বশির আহমেদ ঝুনু’র মনোনয়নপত্র বাতিল করেছে নির্বাচন কমিশন ও আপীল কর্তৃপক্ষ।
অপরদিকে সাধারণ ওয়ার্ড কাউন্সিলর পদে মোট ১১৩ জন প্রার্থীর মধ্যে ১৭ জন প্রার্থী তাদের মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করে নিয়েছেন। বাকি ২ জনের প্রার্থীতা বাতিল হয়েছে। শেষ পর্যন্ত নির্বাচনী প্রতিদ্বন্দ্বিতার মাঠে চূড়ান্ত প্রার্থী হয়েছেন ৯৪ জন। মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করা প্রার্থীদের মধ্যে রয়েছেন চার বারের নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিও। তিনি হলেন বিসিসি’র ১৫নং ওয়ার্ডের বর্তমান কাউন্সিলর সৈয়দ জাকির হোসেন জেলাল। তৎকালিন বরিশাল পৌরসভা থেকে টানা ২৩ বছর জনপ্রতিনিধিত্ব করেছেন তিনি। পারিবারিক কারন দেখিয়ে লেখা সৈয়দ জাকির হোসেন জেলাল এর সাক্ষর সম্বলিত প্রত্যাহারপত্র তারই আপন ভাই নির্বাচন অফিসে পৌছে দিয়েছেন বলে জানিয়েছেন রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. মজিবর রহমান।
মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারকারী অন্যান্য প্রার্থীরা হলেন- বিসিসি’র ২নং ওয়ার্ডের ৪ প্রার্থীর মধ্যে দু’জন মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেছেন। এরা হলেন- বর্তমান কাউন্সিলর এ্যাড. একেএম মুরতজা আবেদীন’র স্ত্রী নাসিমা নাজনিন, শ্যালক এসএম মাওয়াদী, ৩নং ওয়ার্ডে ৮ জন প্রার্থীর মধ্যে ২ জন প্রার্থীতা প্রত্যাহার করেছেন। এরা হলেন- মো. শামীম খান ও শাহজাহান সিরাজ, ৪নং ওয়ার্ডের ৬ জন প্রার্থীর মধ্যে একজন হারুন অর রশীদ, ৫নং ওয়ার্ডের ৭ জন প্রার্থীর মধ্যে একজন জাহিদুল ইসলাম সবুজ, ৬নং ওয়ার্ডের ৫ জন প্রার্থীর মধ্যে একজন প্রত্যাহার করেছে। তিনি হলেন ওই ওয়ার্ডে প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে টিকে থাকা মো. আতাউল গনির ছেলে মো. রাকিবুল ইসলাম, ১৫নং ওয়ার্ডের ৩ জন প্রার্থীর মধ্যে ২ জনই মনোনয়পত্র প্রত্যাহার করেছেন। একজন বর্তমান কাউন্সিলর সৈয়দ জাকির হোসেন জেলাল ও অপরজন আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী মাকসুদ আলম মাসুদ, ১৬নং ওয়ার্ডের ৩জন প্রার্থীর মধ্যে দু’জনই মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেছেন। এরা হলেন- বর্তমান কাউন্সিলর মোশারেফ আলী খান বাদশা’র স্ত্রী রুবীনা আক্তার ও বিএনপি’র প্রার্থী যুবদল নেতা কামরুল হাসান রতন, ১৮নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর এ্যাড. মীর একেএম জাহিদুল কবিরের স্ত্রী সাহানা বেগম, ২১নং ওয়ার্ডের বর্তমান কাউন্সিলর আলতাফ মাহমুদ সিকদারের ভাতিজা মো. তারিকুল ইসলাম, ২২নং ওয়ার্ডের তানভির হোসেন রানা, ২৫নং ওয়ার্ডে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী সুলতান মাহমুদ ও মো. ফজলুর রহমান এবং ২৮নং ওয়ার্ডের মো. জাহিদ হোসেন মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের মাধ্যমে নির্বাচন থেকে সড়ে দাড়িয়েছেন।
এছাড়া সংরক্ষিত ১০টি ওয়ার্ডের মধ্যে ৪নং (১০.১১.১২) ওয়ার্ডে ৩ জন প্রার্থী ছিলেন। তার মধ্যে শিক্ষাগত সনদ জাল হওয়ায় বর্তমান কাউন্সিলর মাকসুদা আক্তার মিতু’র মনোনয়নপত্রটি বাতিল হয়েছে। এছাড়া তাসমিমা আক্তার তার বোন আয়শা তৌহিদ লুনাকে সমর্থন জানিয়ে মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করে নিয়েছেন। এর আইরে সংরক্ষিত ৬নং (১৬.১৭.১৮) ওয়ার্ডের অপর প্রার্থী নাসিমা হান্নান মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের মাধ্যমে নির্বাচন থেকে সড়ে দাড়িয়েছেন।
বিসিসি নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. মজিবর রহমান বলেন, আজ মঙ্গলবার চূড়ান্ত হওয়া মেয়র এবং কাউন্সিলর প্রার্থীদের মাঝে নির্বাচনী প্রতীক বরাদ্দ দেয়া হবে। সকালে ১০টার পর পরই সবাই প্রতীক পেয়ে যাবেন। মেয়র পদে যে ৬ জন প্রার্থী হয়েছেন তারা সাবাই স্ব-স্ব দলের প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করবেন। তবে কাউন্সিলর প্রার্থীদের নির্বাচন কমিশন কর্তৃক বরাদ্দকৃত প্রতীক দেয়া হবে। অবশ্য এ ক্ষেত্রে প্রার্থীদের পছন্দের উপর গুরুত্ব দেয়া হবে। একাধিক প্রার্থী সবাই একই প্রতীক দাবী করলে সে ক্ষেত্রে লটারী করে প্রতীক বরাদ্দ দেয়া হবে। সংরক্ষিত ওয়ার্ড কাউন্সিলরদের ক্ষেত্রেও একই নিয়মে প্রতীক দেয়া হবে।
তিনি বলেন, যে ২০ জন প্রার্থী তাদের মনোনয়নপত্র বাতিলের আবেন করেছে তাদের আবেদন এবং স্বাক্ষর ভালোভাবে যাচাই বাছাই করে দেখা হয়েছে। বিশেষ করে যে প্রার্থী নিজে আসেন নাই তার আবেদনের বিষয়টিতে আমরা বেশি গুরুত্ব দিয়েছে। যাতে কোন প্রার্থী ষড়যন্ত্রের শিকার না হয়। বিশেষ করে ১৫নং ওয়ার্ডের বর্তমান কাউন্সিলর সৈয়দ জাকির হোসেন জেলাল’র প্রার্থীতা প্রত্যাহারের আবেদন ভালোভাবে যাচাই বাছাই করা হয়েছে। কেননা তিনি নিজে না এসে তার ভাই প্রার্থীতা প্রত্যাহারের আবেদনপত্রটি নিয়ে আসেন। তাই বিষয়টি নিয়ে সৈয়দ জাকির হোসেন জেলাল এর সাথে মুঠোফোনে কথা বলেছি। তিনি পারিবারিক কারনে স্বেচ্ছায় প্রার্থীতা প্রত্যাহার করছেন বলে জানিয়েছেন।
উল্লেখ্য আগামী ৩০ জুলাই বরিশাল সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন। এবারের নির্বাচনে মোট ভোটার সংখ্যা মোট ২ লাখ ৪২ হাজার ১৬৬ জন। এর মধ্যে নতুন ভোটার সংখ্যা ৩০ হাজার ৯০৯ জন। মোট ভোটারের মধ্যে পুরুষ ভোটারের সংখ্যা বেশি। পুরুষ ভোটার ১ লাখ ২১ হাজার ৩৩৬ এবং নারী ভোটার সংখ্যা ১ লাখ ২০ হাজার ৭৩০ জন। ১০টি সংরক্ষিত ওয়ার্ড ভিত্তিক সংরক্ষিত আসন-১ (১.২.৩) ভোটার সংখ্যা ২৮ হাজার ৯৫১ জন, সংরক্ষিত-২ (৪.৫.৬) ভোটার সংখ্যা ৩১ হাজার ৪১৮ জন, সংরক্ষিত-৩ (৭.৮.৯) ভোটার সংখ্যা ১৯ হাজার ৯৬২ জন, সংরক্ষিত-৪ (১০.১১.১২) ভোটার সংখ্যা ২০ হাজার ২৩৫ জন, সংরক্ষিত-৫ (১৩.১৪.১৫) ১৯ হাজার ৬৪৬ জন, সংরক্ষিত-৬ (১৬.১৭.১৮) ভোটার সংখ্যা ১৪ হাজার ৭২৬ জন, সংরক্ষিত-৭ (১৯.২০.২১) ভোটার সংখ্যা ২২ হাজার ৪৭৩ জন, সংরক্ষিত-৮ (২২.২৩.২৭) ভোটার সংখ্যা ২৬ হাজার ৯০০ জন, সংরক্ষিত-৯ (২৪.২৫.২৬) ভোটার সংখ্যা ৩২ হাজার ৪৬৭ জন এবং সরক্ষিত আসন-১০ (২৮.২৯.৩০) নং ওয়ার্ডে মোট ভোটার সংখ্যা ২৫ হাজার ৩৮৮ জন। বিসিসি’র নতুন-পুরাতন মিলিয়ে মোট ১২৩ টি কেন্দ্রে ওই সংখ্যক ভোটারদের ভোট গ্রহন করা হবে বলে আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্র নিশ্চিত করেছে।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০৩১  
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT