বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় সংরক্ষিত কাউন্সিলর হচ্ছেন লুনা | | ajkerparibartan.com বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় সংরক্ষিত কাউন্সিলর হচ্ছেন লুনা – ajkerparibartan.com
বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় সংরক্ষিত কাউন্সিলর হচ্ছেন লুনা

7:03 pm , July 5, 2018

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ বরিশাল সিটি কর্পোরেশনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় বিজয়ী হতে পারেন সংরক্ষিত-৪ (১০.১১.১২) নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত কাউন্সিলর প্রার্থী আয়শা তৌহিদ লুনা। তার প্রতিদ্বন্দ্বি হিসেবে থাকা বর্তমান কাউন্সিলর মাকসুদা আক্তার মিতু’র মনোনয়নপত্র আপীল কর্তৃপক্ষ বাতিল করায় এমন সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। আর তাই বিসিসি’র ৩০টি সাধারণ এবং ১০টি সংরক্ষিত ওয়ার্ডের মধ্যে একমাত্র প্রার্থী আয়শা তৌহিদ লুনা যিনি বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় বিজয়ী হতে পারেন।

বরিশাল আঞ্চলিক নির্বাচন কমিশন কার্যালয় সূত্রে জানাগেছে, আসন্ন বরিশাল সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে সংরক্ষিত-৪ (১০.১১.১২) নং ওয়ার্ড থেকে প্রতিদ্বন্দ্বিতার জন্য তিনজন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। এরা হলেন বর্তমান কাউন্সিলর সরকার দলীয় আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী মাকসুদা আক্তার মিতু, সাবেক কাউন্সিলর ও বিএনপি সমর্থীত প্রার্থী আয়শা তৌহিদ লুনা এবং অপর জন তাসমিমা আক্তার। এদের মধ্যে মাকসুদা আক্তার মিতু এবং আয়শা তৌহিদ লুনা’র মধ্যেই প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে বলে ধরে নেন ভোটাররা। কেননা সম্ভাব্য প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র দাখিল করা তাসমিমা আক্তার সাবেক কাউন্সিলর আয়শা তৌহিদ লুনা’র আপন বোন। কোন প্রকার আশংকা এড়াতে ডামী প্রার্থী হিসেবে তাসমিমা আক্তার মনোনয়নপত্র দাখিল করেছিলেন। যাচাই বাছাই এবং সর্বশেষ আপীলে আয়শা তৌহিদ লুনা প্রার্থী হিসেবে টিকে যাওয়ায় মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করে নিতে পারেন তার বোন তাসমিমা আক্তার। তাছাড়া তাসমিমা আক্তারের দেয়া অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী মাকসুদা আক্তার মিতু’র এমএ পাশের সনদ জাল বলে প্রমানিত হয়। এজন্য তার মনোনয়নপত্রটি বাতিল করেছে আপীল কর্তৃপক্ষ। সে হিসেবে ১০.১১.১২ নং ওয়ার্ডের একমাত্র প্রার্থী হিসেবে শেষ পর্যন্ত টিকে থাকতে পারেন আয়শা তৌহিদ লুনা। তাই আগামী ৯ জুলাই মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের দিন অতিবাহিত হলেই বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় বিজয়ী হতে পারেন তিনি।

খোঁজ নিয়ে জানাগেছে, আয়শা তৌহিদ লুনা ২০০৮ সালের নির্বাচনে ১০.১১.১২ নং ওয়ার্ড থেকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে বিপুল ভোটে বিজয়ী হয়েছিলেন। এমনকি নির্বাচন পরবর্তী সিটি’র মেয়র এবং কাউন্সিলরদের ভোটে প্যানেল মেয়র নির্বাচিত হয়েছিলেন তিনি। সদা হাস্যউজ্জল ও সদালাপী আয়শা তৌহিদ লুনা ২০১৩ সালের নির্বাচনে শুধুমাত্র ১১নং সাধারণ ওয়ার্ডে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। ওই নির্বাচনে পরাজিত হন তিনি। যে কারনে দীর্ঘ পাঁচ বছর নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি হিসেবে জনপ্রতিনিধিত্ব করতে পারেননি তিনি। অব্যশ ২০১৩ সালের নির্বাচনের সুষ্ঠতা নিয়ে অভিযোগ রয়েছে তার। তবে এবারের নির্বাচনে জনগনের ভোট ছাড়াই বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় সংরক্ষিত ওয়ার্ড কাউন্সিলর হতে চলেছেন জনপ্রিয় সাবেক কাউন্সিলর আয়শা তৌহিদ লুনা।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০৩১  
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
: SYSTEM DEVELOPMENT :
SPIDYSOFT IT GROUP