স্কুলের গন্ডি পার হয়নি সংরক্ষিত ও সাধারন কাউন্সিলর পদের সিংহভাগ প্রার্থী | | ajkerparibartan.com স্কুলের গন্ডি পার হয়নি সংরক্ষিত ও সাধারন কাউন্সিলর পদের সিংহভাগ প্রার্থী – ajkerparibartan.com
স্কুলের গন্ডি পার হয়নি সংরক্ষিত ও সাধারন কাউন্সিলর পদের সিংহভাগ প্রার্থী

7:35 pm , July 3, 2018

রুবেল খান ॥ আসন্ন বরিশাল সিটি কর্পোরেশন (বিসিসি) নির্বাচনে সাধারণ ও সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে শিক্ষিত প্রার্থীর সংখ্যা কমেছে। বরং বেড়েছে অক্ষর জ্ঞান সম্পন্ন ও স্ব-শিক্ষিত প্রার্থীর সংখ্যা। বিশেষ করে এসএসসি’র গন্ডি পার হয়নি পারেনি এমন প্রার্থীর সংখ্যাই বেশি। আওয়ামী লীগের সমর্থিত প্রার্থী, বিএনপি নেতা এমনকি বর্তমান জনপ্রিয় কাউন্সিলররাও রয়েছেন স্ব-শিক্ষিত, অষ্টম শ্রেণি এবং চতুর্থ শ্রেণি পাশের তালিকায়।

বরিশাল আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, আগামী ৩০ জুলাই বরিশাল সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের ভোট গ্রহন। এজন্য নির্বাচনে সাধারণ ও সংরক্ষিত ওয়ার্ডে প্রতিদ্বন্দ্বিতার জন্য মোট ১৫১ জন প্রার্থী তাদের মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। তাদের মধ্যে থেকে যাচাই বাছাইতে ২ জনের মনোনয়নপত্র বাতিল হয়েছে। সে হিসেবে বর্তমানে কাউন্সিলরের দুটি পদে বর্তমানে মোট প্রার্থীর সংখ্যা ১৪৯। যার মধ্যে ৭৫ জন প্রার্থী’র কেউ উচ্চ মাধ্যমিকের গন্ডি পেরুতে পারেনি। তাদের মধ্যে কেউ স্ব-শিক্ষিত, কেউ ৪র্থ শ্রেণি, ৫ম শ্রেণি, ৮ম শ্রেণি এবং এসএসসি পাশ।

নির্বাচন কমিশনে প্রার্থীদের জমা দেয়া হলফনামা সূত্রে জানাগেছে, যাচাই বাছাই শেষে সাধারণ ওয়ার্ড কাউন্সিলর পদে ১১১ জন প্রার্থী’র মনোনয়নপত্র বৈধতা পেয়েছে। যার মধ্যে ৫৬ জনের কেউ উচ্চ মাধ্যমিকে পৌছতে পারেনি। সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর পদে ৩৮ জনের মধ্যে ২৬ জন প্রার্থীর অবস্থা আরো খারাপ।

হলফনামায় প্রার্থীদের উল্লেখিত তথ্য অনুযায়ী ৮ম শ্রেণি পাশ করা প্রার্থীদের সংখ্যা মোট ৩৬ জন। এসএসসি পাশ প্রার্থীর সংখ্যা ২৬, স্ব-শিক্ষিত প্রার্থী ৭ জন, পঞ্চম শ্রেণি পাশ ২ জন, চতুর্থ শ্রেণি পাশ ও নিজের নাম লিখতে পারা অক্ষর জ্ঞান সম্পন্ন প্রার্থীর সংখ্যা দু’জন।

প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী বিসিসি’র ১নং ওয়ার্ডে মোট প্রার্থীর সংখ্যা ৩ জন। তাদের মধ্যে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করা আউয়াল মোল্লা’র শিক্ষাগত যোগ্যতা অষ্টম শ্রেনী পাশ, ২নং ওয়ার্ডে যে ক’জন প্রার্থী তাদের যোগ্যতা এইচএসসি কিংবা তার উপরে। ৩নং ওয়ার্ডে বর্তমান কাউন্সিলর সহ মোট প্রার্থীর সংখ্যা ৮ জন। যার কেউ উচ্চ মাধ্যমিকে পৌছেনি। অষ্টম থেকে এসএসসি পর্যন্ত তাদের শিক্ষাগত যোগত্যা সিমাবদ্ধ রয়েছে। এদের মধ্যে বিএনপি’র কাউন্সিলর প্রার্থী ও বর্তমান কাউন্সিলর সৈয়দ হাবিবুর রহমান ফারুক অষ্টম শ্রেণি, প্রার্থী হালিমা বেগম অষ্টম শ্রেণি, কামরুজ্জামান জুয়েল রানা এসএসসি, মাহবুবুল আলম খান এসএসসি, আওয়ামী লীগ সমর্থীত প্রার্থী মজিবুর রহমান মৃধা অষ্টম শ্রেণি, মো. শহীদুল ইসলাম হাওলাদার অষ্টম শ্রেণি, মো. শামীম খান অষ্টম শ্রেণি ও মো. শাহজাহান সিরাজ এসএসসি পাশ।

৪নং ওয়ার্ডে প্রার্থীর সংখ্যা ৬ জন। যার মধ্যে হারুন অর রশীদ ও এমরান হোসেন শরীফ এসএসসি পাশ হলেও বর্তমান কাউন্সিলর মো. ইউনুস মিয়া হলফনামায় অষ্টম শ্রেণির সনদ দাখিল করেছেন। ৫নং ওয়ার্ডে ৭ জন প্রার্থীর মধ্যে ৫ জনের কেউ এসএসসি’র উপরে যেতে পারেনি। বরং রয়েছেন ৫ম শ্রেণি এবং স্ব-শিক্ষিত প্রার্থী। এরা হলেন যুবলীগ নেতা মো. আলম বিশ্বাস অষ্টম শ্রেণি, আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী শেখ আনোয়ার হোসেন ছালেক ৫ম শ্রেণি, মো. জাহিদুল ইসলাম সবুজ এসএসসি, মো. মন্টু স্ব-শিক্ষিত এবং জিয়াউল হক চিশতী অষ্টম শ্রেণি পাশ দাবী করেছে। ৬নং ওয়ার্ডে ৫ জন প্রার্থীর মধ্যে ২ জন অষ্টম শ্রেণি পাশ। এরা হলেন মো. আতাউল গনি ও মো. রাকিবুল ইসলাম।

৭নং ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে ৩ জন প্রার্থীর মধ্যে দু’জনই অষ্টম শ্রেণির গন্ডি পেরুতে পারেনি। এর মধ্যে বর্তমান কাউন্সিল সৈয়দ আকবর স্ব-শিক্ষিত এবং অপরজন শেখ মো. আলম ৮ম শ্রেণি পাশের সনদ জমা দিয়েছেন। ৮নং ওয়ার্ডে ৩ জন প্রার্থীর কেউ এসএসসি’র গন্ডি পেরুতে পারেননি। তাদের মধ্যে বর্তমান কাউন্সিলর মো. সেলিম হাওলাদার ৮ম শ্রেণি, মো. আল আমিন এসএসসি ও আওয়ামী লীগের প্রার্থী সুরঞ্জিত দত্ত লিটু স্ব-শিক্ষিত বলে হলফনামায় উল্লেখ করেছেন। ৯নং ওয়ার্ডে ৪ জন প্রার্থীর মধ্যে ৩ জনই অষ্টম শ্রেণির গন্ডি পেরুতে পারেনী। এর মধ্যে বর্তমান কাউন্সিলর হারুন অর রশীদ অষ্টম শ্রেণি, আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী এএসএম মোস্তাফিজুর রহমান মাসুম এসএসসি ও শামীম রহমান অষ্টম শ্রেণি পাশ।

১০নং ওয়ার্ডে ২ জন প্রার্থীর মধ্যে বর্তমান কাউন্সিলর জয়নাল আবেদীন হাওলাদার ৮ম শ্রেণি, ১১নং ওয়ার্ডে ৩ জন প্রার্থীর মধ্যে বর্তমান কাউন্সিলর আ’লীগ প্রার্থী মো. মজিবর রহমান অষ্টম শ্রেণি, মো. রাজা অষ্টম শ্রেণি এবং মারুফ হোসেন জিয়া এসএসসি পাশ। ১২নং ওয়ার্ডের দুই প্রার্থীর মধ্যে বর্তমান এবং বার বার নির্বাচিত জনপ্রিয় কাউন্সিলর ও প্যানেল মেয়র আলহাজ্ব কেএম শহীদুল্লাহ ৮ম শ্রেণি পাশ। ১৩নং ওয়ার্ডে ৩ জন প্রার্থীর মধ্যে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী একমাত্র পলাশ ৮ম শ্রেণি পাশ, ১৫নং ওয়ার্ডে ৩ জন প্রার্থীর মধ্যে আওয়ামী লীগ সমর্থীত একমাত্র প্রার্থী লিয়াকত হোসেন খান স্ব-শিক্ষিত, ১৬নং ওয়ার্ডে ৩ জন প্রার্থীর মধ্যে মনোনয়ন দাখিল করা বর্তমান কাউন্সিলর মোশারেফ আলী খান বাদশা’র স্ত্রী রুবিনা আক্তার অষ্টম শ্রেণি পাশ। ১৭নং ওয়ার্ডে ২ জন প্রার্থীর মধ্যে বিএনপি’র প্রার্থী মো. আনোয়ার হোসেন এসএসসি, ১৯নং ওয়ার্ডে ৩ জন প্রার্থীর মধ্যে একজন জাতীয় পার্টির প্রার্থী মো. হানিফ চৌধুরী অষ্টম শ্রেণি পাশ। এই ওয়ার্ডে তিনজন প্রার্থী থাকলেও যাচাই বাছাইতে একজন বাতিল হয়েছে।

২২নং ওয়ার্ডে ৩ জন প্রার্থীর মধ্যে একমাত্র স্ব-শিক্ষিত প্রার্থী তানভীর হোসেন রানা। ২৩নং ওয়ার্ডে ৪ জন প্রার্থীর মধ্যে এনামুল হক বাহার এসএসসি ও এমরান চৌধুরী জামাল ৮ম শ্রেণি পাশ। ২৪নং ওয়ার্ডে ৪ জন প্রার্থীর মধ্যে দু’জন বর্তমান কাউন্সিলর ও বিএনপি’র প্রার্থী ফিরোজ আহমেদ অষ্টম শ্রেণি ও মো. জাকির হোসেন স্ব-শিক্ষিত প্রার্থী। ২৫নং ওয়ার্ডে ৫ জন প্রার্থীর মধ্যে ৩ জন অর্থাৎ মো. আবু হানিফ ৮ম শ্রেণি, মো. ফজলুর রহমান হাওলাদার ৮ম ও বর্তমান কাউন্সিলর বিএনপি’র প্রার্থী জিয়াউদ্দিন সিকদার এসএসসি পাশ। ২৬নং ওয়ার্ডে ৩ জন প্রার্থীর মধ্যে দু’জনের একজন বর্তমান কাউন্সিলর বিএনপি’র প্রার্থী মো. ফরিদ উদ্দিন হাওলাদার এসএসসি ও মো. হাসান ইমাম অষ্টম শ্রেণি পাশ। ২৭নং ওয়ার্ডে ৫ জন প্রার্থীর মধ্যে ৪ জন এসএসসি ও স্ব-শিক্ষিত। এরা হলেন আওয়ামী লীগ সমর্থীত প্রার্থী আব্দুর রশীদ হাওলাদার এসএসসি, মো. আলতাফ হোসেন সিকদার হাবুল স্ব-শিক্ষিত, মো. মনিরুজ্জামান তালুকদার এসএসসি ও বর্তমান কাউন্সিলর মো. নূরুল ইসলাম স্ব-শিক্ষিত প্রার্থী।

২৮নং ওয়ার্ডে ৩ জন প্রার্থীর মধ্যে ২ জন এসএসসি ও অষ্টম শ্রেণি পাশ। এরা হলেন মো. হুমায়ুন কবির এসএসসি ও আওয়ামী লীগের প্রার্থী মো. জাহাঙ্গীর হোসেন ৮ম শ্রেণি পাশ। ২৯নং ওয়ার্ডে ৩ জন প্রার্থীর মধ্যে একজন মো. মনিরুজ্জামান খান এসএসসি পাশ। এছাড়া ৩০ নং ওয়ার্ডে ৩ জন প্রার্থীর মধ্যে আওয়ামী লীগ সমর্থীত প্রার্থী আজাদ হোসেন মোল্লা কালাম ওরফে কালাম মোল্লা ১০ শ্রেণি পর্যন্ত শিক্ষাগত যোগ্যতা রয়েছে বলে হলফনামায় উল্লেখ করা হয়েছে।

এর বাইরে সংরক্ষিত ১নং ওয়ার্ডে ৪ জন প্রার্থীর মধ্যে দু’জনই অষ্টম শ্রেণি এবং একজন এসএসসি পাশ। এরা হলেন মিনু রহমান অষ্টম শ্রেণি, নুরুন্নাহার বেগম পুষ্প অষ্টম শ্রেণি ও বর্তমান কাউন্সিলর শরীফ তাসলিমা কামাল পলি এসএসসি পাশ। সংরক্ষিত ২নং ওয়ার্ডে ৬ জন প্রার্থীর মধ্যে আলমতাজ বেগম অষ্টম শ্রেণি, ফাতেমা রহমান ৪র্থ শ্রেণি, জাহানারা বেগম ৮ম শ্রেণি, জোছনা বেগম স্ব-শিক্ষিত ও কানন বেগম স্বাক্ষর দিতে যানা অক্ষর জ্ঞান সম্পন্ন কাউন্সিলর প্রার্থী।

সংরক্ষিত ৩নং ওয়ার্ডে ২ জন প্রার্থী। যার মধ্যে একজন জোহরা বেগম স্ব-শিক্ষিত ও বর্তমান কাউন্সিলর কহিনুর বেগম এসএসসি পাশ। সংরক্ষিত ৪নং ওয়ার্ডে ৩ জন প্রার্থীর মধ্যে একমাত্র আয়শা তৌহিদ লুনা এসএসসি পাশ। ৫নং ওয়ার্ডে ৪ জন প্রার্থীর মধ্যে তিন জন অর্থাৎ হোসনেয়ারা বেগম ৮ম শ্রেণি, মো. কামরুন্নার রোজী আন্ডার মেট্রিক, ও শাহীনা পারভীন দাখিল পাশ। ৬নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ৬ জন আবেদন করেছেন। যার মধ্যে ৩ জন এসএসসি এবং দু’জন অষ্টম শ্রেণি পাশ। এরা হলেন হোসনে আরা বেগম এসএসসি, বর্তমান কাউন্সিলর ইসরা আমান রুপা’র মা মোর্শেদা বেগম কাজল এসএসসি, মজিদা বোরহান ৮ম শ্রেণি, নাসিমা হান্নান অষ্টম শ্রেণি ও সালমা আক্তার এসএসসি পাশ।

সংরক্ষিত ৮নং ওয়ার্ডে ৩ জন প্রার্থীর মধ্যে পারুল আক্তার এসএসসি ও রেশমী বেগম ৮ম শ্রেণি পাশ। সংরক্ষিত ৯নং ওয়ার্ডে ৩ জন প্রার্থীর কেউ ৮ম শ্রেণির গন্ডি পেরুতে পারেনি। এরা হলেন বতর্মান কাউন্সিলর সেলিনা বেগম ৫ম শ্রেণি, ডালিম বেগম ৮ম শ্রেণি ও মোসা. আয়শা বেগম ৮ম শ্রেণি। এছাড়া সংরক্ষিত ১০নং ওয়ার্ডে ২ জন প্রার্থীর মধ্যে বর্তমান কাউন্সিলর রাশিদা পারভীন এসএসসি ও মো. রোজী বেগম ৮ম শ্রেণি পাশ বলে হলফনামায় উল্লেখ করেছেন।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০৩১  
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT