পায়রা তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রে নির্মান কাজ শুরু | | ajkerparibartan.com পায়রা তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রে নির্মান কাজ শুরু – ajkerparibartan.com
পায়রা তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রে নির্মান কাজ শুরু

3:17 pm , June 22, 2019

কলাপাড়া প্রতিবেদক ॥ পটুয়াখালীর কলাপাড়া পায়রা তাপ বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মান কাজে যোগ দিয়েছেন চায়না এবং বিসিপিসিএল এর শ্রমিকরা। শনিবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে বিদ্যুত প্লান্ট অভ্যন্তরে বাংলা ক্যান্টিন এলাকায় বাঙালি ও চায়না শ্রমিকদের উপস্থিতিতে মতবিনিময় সভা হয়। সেখানে হৃদ্যতাপুর্ণ পরিবেশে আলোচনা চলে। সবাই আন্তরিকভাবে একমত পোষন করেন কর্মকান্ড চালিয়ে যাওয়ার। সভার সিদ্ধান্ত মোতাবেক আগামি ১৫ দিনের জন্য বাঙালি শ্রমিকদের ছুটি দেয়া হয়েছে। যাদের ঈদের বেতনসহ বকেয়া পাওনা রয়েছে তা আগামি তিন দিনের মধ্যে পরিশোধের সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিসিপিসিএল কর্তৃপক্ষ। বিসিপিসিএল এর প্রশাসনিক কর্মকর্তা শাহমনি জিকো এ খবর নিশ্চিত করেছেন। অপরদিকে নিহত শ্রমিকের লাশ গুজবের খবরে শ্রমিক সংঘাত, প্লান্ট অভ্যন্তরে চুরিসহ ভাংচুর হামলার ঘটনায় কলাপাড়া থানায় দায়ের করা মামলায় ঢাকার কেরানিগঞ্জ থেকে গ্রেফতারকৃত ১২ বাঙালি শ্রমিককে শনিবার দুপুরে কলাপাড়ায় আদালতে হস্তান্তর করে কলাপাড়া থানা পুলিশ। আদালত তাদের পটুয়াখালী জেলহাজতে পাঠিয়ে দেন বলে নিশ্চিত করেছেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এস,আই মেজাম্মেল হোসেন। আদালতে মাধ্যমে গ্রেফতারকৃত শনিবার দুপুরেই কঠোর নিরাপত্তার মাধ্যমে পটুয়াখালী জেলা কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয়। গ্রেফতারকৃত ১২ বাঙ্গালী শ্রমিকরা হচ্ছে- নারায়নগঞ্জের ইমাম হাসান, মামুন গোলাম শেষ এর বাড়ি সিরাজগঞ্জের দত্তবাড়ি। মো. নাসির, সুজন, আবদুল লতিফ, আতিকুর রহমান, মেহেদী হাসান, রাসেল আলী, শামিম মিয়া, আইয়ুব, ফারুক ও বেল্লাল এদেও বাড়ি টাঙ্গাইল জেলার বিভিন্ন থানায়। এছাড়া বৃহস্পতিবার গ্রেফতার কলাপাড়া উপজেলার ধানখালী ইউনিয়নের মুধাপাড়া গ্রাম থেকে সুজন তালুকদার ও মরিচ বুনিয়া গ্রাম থেকে মামুন তালুকদার,সজিব শরীফ,জলিল ফকিরকে গ্রেফতার করার পর তাদেও বৃহস্পতিবার আদালতের মাধ্যমে জেলা কারাগারে প্রেরন করে আদালত। এঘটনায় গ্রেফতার হওয়া ১৬ জনকে কারাগারে পাঠিয়েছে আদালত।
পায়রা তাপ বিদ্যুত কেন্দ্রের অপ্রত্যাশিত এ ঘটনায় চায়নার এনইপিসির কোম্পানির সেফটি ডিরেক্টর ওয়াং লি বিং এর দায়ের করা দু’টি মামলায় অজ্ঞাত ১২ শ’ জনকে আসামি করা হয়েছে। কলাপাড়া থানার ওসি মো. মনিরুল ইসলাম জানান, পুরো ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের শণাক্ত করে আইনের আওতায় আনা হবে। এমনকি ঘটনার শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত কিংবা এখন পর্যন্ত যারা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে গুজব কিংবা অপ্রপচার ছড়াচ্ছে তাও গুরুত্বের সঙ্গে দেখা হচ্ছে। বর্তমানে পায়রা তাপ বিদ্যুত কেন্দ্র এলাকায় ব্যাপক নিরাপত্তা বেষ্ঠিত অবস্থায় রয়েছে। অপরদিকে এ সম্পর্কিত গঠিত তদন্ত কমিটি তাদেও তদন্ত কার্যক্রম শুরু করেছে বলে সংশ্লিষ্টসুত্রে জানা গেছে। উল্লেখ্য মঙ্গলবার বিকেল থেকে পায়রা ১৩২০ মেগাওয়াট তাপ বিদদ্যুত কেন্দ্রে বাঙালি এক শ্রমিক সাবিন্দ্র দাস বয়লার থেকে সেফটি বেল্ট ছিড়ে নিচে পড়ে মারা যায়। লাশ গুমের গুজবে বাঙ্গালী শ্রমিকরা বিক্ষুদ্ধ হয়ে হামলা, ভাংচুর চালায় একই সঙ্গে চায়না শ্রমিকরাও সংঘর্ষে জড়িয়ে পরে। এতে সৃষ্ট অনভিপ্রেত ঘটনাকে কেন্দ্র করে সকল ধরনের কর্মকান্ড বন্ধ থাকে। শ্রমিকরা সংঘাতে জড়িয়ে পড়েন। ক্ষুব্ধ শ্রমিকরা প্লান্ট অভ্যন্তরে লুটপাট ও ভাংচুর চালায়। নিহত বাঙ্গালী শ্রমিক সবিন্দ্র দাস মৃত্যুর ঘটনায় কলাপাড়া থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে এবং বিদেশী শ্রমিক ইলেকট্রিশিয়ান জাং ইয়াং ফাং নিহত হওয়া এবং বিদ্যুৎ কেন্দ্রে হামলা, ভাংচুর, লুটপাটের ঘটনায় পায়রা তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রের সেপ্টি পরিচালক ওয়াংলিবিং কলাপাড়া থানায় পৃথক দুটি মামলায় দায়ের করেন।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT