বৃষ্টিতে স্বপ্নভঙ্গ দুই শতাধিক চাকুরী প্রত্যাশীর | | ajkerparibartan.com বৃষ্টিতে স্বপ্নভঙ্গ দুই শতাধিক চাকুরী প্রত্যাশীর – ajkerparibartan.com
বৃষ্টিতে স্বপ্নভঙ্গ দুই শতাধিক চাকুরী প্রত্যাশীর

3:04 pm , June 21, 2019

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ বৈরী আবহাওয়ায় যথা সময় উপস্থিত হতে না পারায় সরকারি প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা কেন্দ্রে প্রবেশ করতে দেয়া হয়নি দুই শতাধিক পরীক্ষার্থীকে। এর ফলে পরীক্ষা শুরুর পূর্বে কেন্দ্রের সামনে অবস্থান নিলেও পরীক্ষা দিতে পারেনি তারা। এর প্রতিবাদে পরীক্ষা দিতে না পারা পরীক্ষার্থীরা কেন্দ্রের সামনে বিক্ষোভ করে কেন্দ্রে প্রবেশের চেষ্টা পুলিশ লাঠি চার্জ করে ভঙ্গ করে দেয়। এতে কেন্দ্রের সামনে কান্নায় ভেঙে পড়েন শিক্ষার্থীরা। গতকাল শুক্রবার সকালে নগরীর বরিশাল সরকারি কলেজ এই ঘটনা ঘটে। বরিশাল জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস সূত্রে জানাগেছে, শুক্রবার সকাল সাড়ে ১০টায় নগরীর ৩২টি কেন্দ্রে এক যোগে প্রথম ধাপে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা শুরু হয়। প্রবেশ পত্রের শর্তানুযায়ী পরীক্ষা শুরুর এক ঘন্টা পূর্বে পরীক্ষার্থীদের কেন্দ্রে উপস্থিত থাকতে হবে। কিন্তু বৈরী আবহাওয়ার কারনে সরকারি বরিশাল কলেজ কেন্দ্রে দুই শাধিক পরীক্ষার্থী পরীক্ষা শুরুর আধা ঘন্টা পূর্বে অর্থাৎ ১০টার দিকে কেন্দ্রের সামনে এসে পৌছায়। এসময় তারা কেন্দ্রে প্রবেশের চেষ্টা করলে দেরিতে আসার অজুহাত দেখিয়ে দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা তাদের বাধা দেয়। এতে ক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা কলেজের প্রধান ফটক খুলে কেন্দ্রের ভেতরে প্রবেশ করে। পরে কেন্দ্রে দায়িত্বে থাকা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নির্দেশে পুলিশ তাদের কেন্দ্র থেকে বের করে দেয়ার চেষ্টা করলে পরীক্ষার্থীরা পরীক্ষা দেয়ার দাবীতে বিক্ষোভ করে। তখন পুলিশ লাঠি চার্জ করে তাদের কেন্দ্র থেকে বের করে দেয়। পরীক্ষা দিতে না পারা বেশ কয়েকজন পরীক্ষার্থী অভিযোগ করে বলেন, সকাল থেকে আবহাওয়া পরিস্থিতি ভালোছিলো না। তাই কেন্দ্রে পৌছতে দেরি হয়েছে। তার পরেও অন্যান্য কেন্দ্রে ১০ মিনিট আগে পৌছানো পরীক্ষার্থীদেরও তল্লাশী করে কেন্দ্রে প্রবেশের সুযোগ দেয়া হয়েছে। কিন্তু বরিশাল কলেজ কেন্দ্রে দায়িত্বরত ম্যাজিস্ট্রেট আমাদের সেই সুযোগ দেয়নি। এমনকি পুলিশও বিনা কারনে পরীক্ষার্থীদের উপর লাঠিচার্জ করেছে বলে অভিযোগ পরীক্ষার্থীদের। এ প্রসঙ্গে মহানগরের উপ-পুলিশ কমিশনার (দক্ষিণ) মোয়াজ্জেম হোসেন ভূঁঞা বলেন, নকল ও প্রশ্নফাঁস ঠেকাতে কঠোর নির্দেশনা রয়েছে। সেই নির্দেশনা অনুযায়ী দেরিতে আসা পরীক্ষার্থীদের কেন্দ্রে প্রবেশ করতে দেয়া হয়নি। এটা মন্ত্রনালয় থেকেই নির্দেশিত এবং পরীক্ষার প্রবেশপত্রেও উল্লেখ রয়েছে। উল্লেখ্য, বরিশাল সিটি কর্পোরেশন এলাকা সহ জেলার ১০টি উপজেলায় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শূণ্য থাকা প্রায় দুইশটি পদে শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষায় ৬২ হাজার পরীক্ষার্থী আবেদন করে। যার মধ্যে বরিশাল সদরে ১টি শূণ্য পদের বিপরিতে আবেদন পড়ে ১৫ হাজার। প্রথম ধাপে ৩২টি কেন্দ্রে এদের পরীক্ষা গ্রহন করা হয়। আগামী ২৮ জুন দ্বিতীয় ধাপের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০




মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT