মেম্বরের সহযোগীতায় শ্লীলতাহানী ও ইভটিজিংকারীরা মূক্ত | | ajkerparibartan.com মেম্বরের সহযোগীতায় শ্লীলতাহানী ও ইভটিজিংকারীরা মূক্ত – ajkerparibartan.com
মেম্বরের সহযোগীতায় শ্লীলতাহানী ও ইভটিজিংকারীরা মূক্ত

3:15 pm , June 14, 2019

স্বরুপকাঠি প্রতিবেদক ॥ স্বরুপকাঠি উপজেলার সুটিয়াকাঠি ইউনিয়নের বাররা গ্রামের ইভটিজিংকারীদের মহিলা মেম্বর পুলিশে না দিয়ে ছেড়ে দেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এমনকি এসময় প্রতিবাদকারী মেয়ের ভগ্নীপতিকে জনসন্মুখে মহিলা মেম্বর চর থাপ্পর দেন বলেও অভিযোগ পাওয়া গেছে। ইভটিজিং ও শারিরিক নির্যাতনের শিকার ঢাকার একটি স্কুলে নবম শ্রেনী পড়–য়া ওই শিক্ষার্থী জানান এদের মানষিক অত্যাচারে সুটিয়াকাঠির চাঁন মিয়া স্কুল ছেরে গত বছর ঢাকায় চলে যাই এবং সেখানের স্কুলে ভর্তি হই। স্কুল ছুটি থাকায় ঈদের পরে এখানেই থেকে যাই। ১৪ বছরের বাবা হারা ওই শিক্ষার্থী বলেন বাররা বাজার থেকে বিকেল ৫ টার দিকে চটপটি কিনে বাড়ির দিকে আসার সময় আলী হোসেনের ছেলে মোঃ মাসুম, শাহিনের ছেলে আকাশ, নজরুল সুকানীর ছেলে নাসির ও লাল মিয়ার ছেলে ইমরান আমার পথ রোধ করে। এসময় তিনজন পিছনে দাড়িয়ে থাকলেও ইমরান আমার ওড়না টেনে নিয়ে আমার শরীরে স্পর্শকাতর অংশে হাত দিতে থাকে। আমি চিৎকার দেয়া শুরু করলে পার্শবর্তী বাড়ির লোকজন এসে এদের দুজনকে আটক করে। এসময় স্থানীয় সংরক্ষিত মহিলা আসনের সদস্যা হোসনেআরা বেগমকে খবর দেয়া হলে শত শত মানুষের সামনে তিনি আমার ভগ্নীপতি রকি তালুকদারকে চড় দেন। শালিশ বৈঠক সমাপ্ত করে চলে যান। বিষয়টি নিয়ে রকি বলেন গায়ে হাত দেয়া ও ইভটিজিংকারী ওই সদস্যরা মুরব্বীদের সামনে চেয়ারে বসা থাকলে আমি ওদেরকে উঠে মুরব্বীদের চেয়ার দিতে বললে মেম্বর আমার উপর খেপে গিয়ে আমাকে আঘাত করেন।
এ ব্যাপারে ইউনিয়নের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান মোঃ ইদ্রিস মিয়া বলেন আমি ঘটনাটি জানতে পেরে আসামীদেরকে পুলিশে দিতে বলি। এবং জানতে পারি উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ¦ আব্দুল হক মিয়াও হোসনে আরাকে পুলিশের আশ্রয় নেয়ার জন্য বলেন। কিন্ত হোসনে আরা আসামীদের পুলিশে না দিয়ে কেন শালিশ বৈঠকের আয়োজন করলেন তা বলতে পারবোনা।
বিষয়টি নিয়ে মেম্বর মুঠোফোনে বলেন আমি গায়ে হাত দিয়েছি এটা ঠিক নয়। তবে আসামী কেন উপজেলা চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন চেয়ারম্যানের আদেশ অগ্রায্য করে পুলিশে না দিয়ে ছেড়ে দিলেন প্রশ্ন করলে তিনি নিরুত্তর থাকেন।
স্বরুপকাঠি থানা সূত্র জানায় এ ব্যাপারে রোববার রাতেই থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। তবে আসামীরা কেহ গ্রেপ্তার হননি তাদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।
বিষয়টি নিয়ে মেয়ের চাচা বলেন আসামীরা সকলেই পরিবারের সাথে ও মেম্বরের সাথে প্রতিনিয়ত যোগাযোগ রাখছে। মেম্বর সহ অন্যান্ন আসামীর আত্মীয় স্বজন আমাকে মামলা তুলে আনার জন্য বিভিন্য রকমের ভয় ভিতি দেখাচ্ছে বলেও তিনি জানান।
এদিকে একাধিক সূত্র নিশ্চিত করে আসামীরা স্বরুপকাঠি থেকে পালিয়ে সিলেটে অবস্থান করছেন।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০




মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT