কলাপাড়ায় সাংবাদিক বিপ্লব লাঞ্চিত | | ajkerparibartan.com কলাপাড়ায় সাংবাদিক বিপ্লব লাঞ্চিত – ajkerparibartan.com
কলাপাড়ায় সাংবাদিক বিপ্লব লাঞ্চিত

3:11 pm , June 11, 2019

কুয়াকাটা প্রতিবেদক ॥ কলাপাড়ায় তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে সাংবাদিক ও ইউনিয়ন পরিষদ চেয়াম্যান লাঞ্চিত হওয়ার ঘটনা ঘটেছে। এ সময় উভয় পক্ষের হামলায় আহত হয়েছে ৭ জন। এদের মধ্যে জামাল হোসেন,সলেমান ফকির,চুন্নু হাওলাদার,শাকিল খলিফা, আলমগীর ও সবুর মিয়াকে কলাপাড়া হাপাতালে ভর্তি করেছে। সোমবার রাত ৯ টার দিকে উপজেলার মৎস্য বন্দর আলিপুর চৌরাস্তা সংলগ্ন এলাকায় কুয়াকাটা পৌর মেয়র বারেক মোল্লার ছেলে মাসুদ মোল্লা, মেয়রের ভাই মোশারেফ মোল্লার নেতৃত্বে এ হামলার ঘটনা ঘটে বলে আহতদের সূত্রে জানা গেছে।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, কোনো কিছু বুঝে ওঠার আগেই এলোপাতাড়ি হামলা শুরু করে। এসময় সন্ত্রাসীরা সাংবাদিক বিপ্লবকে টানা হেচড়া করে শরীরের পোশাক ছিড়ে ফেলে। এর কিছুক্ষন পর স্থানীয় চেয়ারম্যান আনসার উদ্দিন মোল্লা ঘটনাস্থলে পৌছলে সেও লাঞ্চিত হয়। পরে মহিপুর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে।
সাংবাদিক নাসির উদ্দিন বিপ্লব কলাপাড়া উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ডের সাধারণ সম্পাদক, দৈনিক যুগান্তর প্রত্রিকা’র কুয়াকাটা প্রতিনিধি, অনলাইন নিউজ পোর্টাল সাগরকন্যার সম্পাদক, কুয়াকাটা প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি ও মহিপুর কো-অপারেটিভ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সদস্য।
সাংবাদিক নাসির উদ্দিন বিপ্লব জানান, সম্প্রতি কুয়াকাটা পৌর মেয়র আবদুল বারেক মোল্লা বিরুদ্ধে একটি নিউজ প্রকাশ হয়। লতাচাপলি ইউনিয়ন পরিষদের একটি জনসভায় প্রকাশ্যে মাইকিং করে তার ছোট ভাই আনছার মোল্লাকে নির্দেশ দেয় যে, সাংবাদিক নাসিরকে থামাতে হবে। সে বিভিন্ন সময়ে আমাদের বিরুদ্ধে নানা নিউজ করে রাজনৈতিকভাবে আমাদেরকে হেয় করে আসছে। এরই ধারাবাহিকতায় সোমবার রাতে তার ওপর হামলার ঘটনা ঘটে বলে তিনি আশংকা করছেন। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে তিনি জানান।
মেয়র পুত্র মাসুদ মোল্লা জানান, আমি ঘটনার সময় লোকমুখে শুনে ঘটনাস্থলে গিয়ে সাংবাদিক নাসির বিপ্লবসহ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করি। আমি এ ছাড়া কিছুই জানিনা।
আনসার উদ্দিন মোল্লা জানান, সম্পুর্ন ঘটনাটি একটি সাজানো নাটক, সালাম গাজিকে মারধর করার বিষয়ে শালিশ বাঞ্চাল করতেই এই মিথ্যাচার। ঘটনা থামাতে গিয়ে উল্টো আমি মারধরের শিকার হয়েছি।
মহিপুর থানার ওসি সাইদুল ইসলাম বলেন, বর্তমানে পরিস্থিতি পুলিশের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। আহতদের পক্ষ থেকে অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেব।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০




মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT