বাংলাদেশ ব্যাংকে বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর ছবি ভাংচুর ॥ পরস্পর বিরোধী বক্তব্য | | ajkerparibartan.com বাংলাদেশ ব্যাংকে বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর ছবি ভাংচুর ॥ পরস্পর বিরোধী বক্তব্য – ajkerparibartan.com
বাংলাদেশ ব্যাংকে বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর ছবি ভাংচুর ॥ পরস্পর বিরোধী বক্তব্য

6:46 pm , June 3, 2018

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ বাংলাদেশ ব্যাংক কর্মচারীদের দুই পক্ষের দ্বন্দের জের ধরে প্রধানমন্ত্রী ও বঙ্গবন্ধুর ছবি এবং সিবিএ কার্যালয়ে ভাংচুর করা হয়েছে। গতকাল রোববার বগুড়া রোডে বাংলাদেশ ব্যাংকের আঞ্চলিক কার্যালয়ের তৃতীয় তলায় এমপ্লয়ীজ এসোসিয়েশন (সিবিএ) কার্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে। সন্ধ্যায় পুলিশ এবং ব্যাংকের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। এ ঘটনা নিয়ে পরষ্পর বিরোধী বক্তব্য পাওয়া গেছে। সিবিএ নেতৃবৃন্দের দাবী বিএনপি অনুসারী কর্মচারী সংঘের নেতৃবৃন্দ এ ঘটনা ঘটিয়েছে , অপর পক্ষের দাবী আধিপত্য ও প্রভাব বিস্তারকে কেন্দ্র করে নতুন যোগদানকৃত কর্মচারীদের ফাঁদে ফেলতে নিজেরা ভাংচুর করেছে।

সিবিএ সাধারন সম্পাদক মো. মাকসূদুর রহমান পুলিশ এবং সাংবাদিকদের জানান, ব্যাংকের উপ-মহাব্যবস্থাপক আবু তাহেরের শেষ কর্মদিবস উপলক্ষে বিদায় সংবর্ধনার অয়োজন করে বিএনপি পন্থী কর্মচারীদের সংগঠন বাংলাদেশ ব্যাংক কর্মচারী সংঘ। অনুষ্ঠানের পূর্ব মুহূর্তে কর্মচারী সংঘের সভাপতি ও ব্যাংকের ডাটা এন্ট্রি কন্ট্রোল অপারেটর মোঃ শহীদুল ইসলামের সাথে তর্ক হয়। এসময় মাকসূদুর রহমান শহীদুল ইসলামকে রুম থেকে বের হয়ে যেতে বললে সে চেয়ার ছুড়ে মারে। এ সময় বিএনপি পন্থী ও কর্মচারী সংঘের মো আনোয়ারুজ্জামান, রনি, নুরুল ইসলাম, মোঃ মিলন ও বাবুল দাস একত্রিত হয়ে চেয়ার দিয়ে ছবি ভাংচুর আরম্ভ করে। এ সময় তারা কার্যালয়ের বোর্ডের কাচ ভেঙ্গে ফেলে এবং দেয়ালে থাকা বঙ্গবন্ধু ও প্রধানন্ত্রীর ছবি নামিয়ে ভাংচুর করে । এসময় অন্যান্য কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা ছুটে এলে তারা পালিয়ে যায় । তারা দীর্ঘদিন ধরে বিএনপির ব্যানারে এখানে বিভিন্ন ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটিয়ে আসছে। এ ঘটনায় মামলা করা হবে বলেও তিনি জানান।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক ব্যক্তি জানান এখানে বিএনপি পন্থীদের কোন কর্মসূচী ছিলনা। উপ-মহাব্যাবস্থাপক আবু তাহেরের বিদায় উপলক্ষে সদ্য যোগদানকৃত কর্মচারীরা তাকে শুধুমাত্র ফুলের শুভেচ্ছা দেয়ার প্রস্তুতি নেয় । এরা বিএনপি কিংবা সিবিএ কোন সংগঠনের সাথে জড়িত না । এদের মধ্যে এমএলএএস নাজমুলকে ডেকে সিবিএ সভাপতি এবং সম্পাদক শহীদুল ইসলাম ফুল দেয়ার অয়োজন করার কারনে গালমন্দ করে। পরে ফুল দেয়ার কর্মসূচী বাতিল করে সকলে বেলা সাড়ে ৩ টার দিকে সেখান থেকে চলে যায়। পরে বেলা ৪ টার দিকে সিবিএ কক্ষে এ ভাংচুর করার নাটক সাজানো হয়। এ সময় সেখানে সিবিএ কর্মচারীরা ছাড়া অন্য কেউ ছিলনা । তারা নিজেরা ভাংচুর করে অন্যদের চাপে রাখতে এ ঘটনা ঘটিয়েছে বলে তারা জানান।

এদিকে ঘটনার পর সন্ধ্যায় উপ-পুলিশ কমিশনার আব্দুর রউফ, সহকারী পুলিশ কমিশনার শাহনাজ পারভীন সহ পুলিশের একটি দল ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। তাদের সাথে বাংলাদেশ ব্যাংকের উপ-মহাব্যাবস্থাপক মোঃ জাহাঙ্গীর হোসেন, উপ-মহাব্যবস্থাপক বিষ্ণুকর রায়, উপ-মহাব্যাবস্থাপক মোঃ রুহুল আমিন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন এবং প্রকৃত ঘটনা ও জড়িতদের শাস্তির দাবী জানান।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০  
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT