হেযবুত তওহীদ'র কার্যক্রম বন্ধের দাবী ইসলামি আন্দোলনের | | ajkerparibartan.com হেযবুত তওহীদ’র কার্যক্রম বন্ধের দাবী ইসলামি আন্দোলনের – ajkerparibartan.com
হেযবুত তওহীদ’র কার্যক্রম বন্ধের দাবী ইসলামি আন্দোলনের

6:33 pm , May 8, 2018

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ হেযবুত তওহীদকে ইহুদীদের প্রকাশ্য এজেন্ট, মানবতা ও মনুষ্যত্ব বোধের বিরুদ্ধে ভয়ংকর চক্রান্তকারী হিংস্র সংগঠন হিসেবে আখ্যায়িত করেছে ইসলামি আন্দোলনের নেতৃবৃন্দ। একই সাথে সংগঠনটির কার্যক্রম বন্ধের দাবী জানানো হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার শহীদ আব্দুর রব সেরনিয়াবাত বরিশাল প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে ওই দাবী জানানো হয়। ইসলামি আন্দোলন বাংলাদেশ সাহেবের হাট (বন্দর থানা) ও স্থানীয় ধর্মপ্রান জনসাধারনের ব্যানারে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে ইসলামি আন্দোলন বন্দর শাখা সভাপতি মো. কাওসার আহমেদ সিকদার বলেন, ইসলাম নিয়ে ষড়যন্ত্র যুগ যুগ ধরেই চলে আসছে। ষড়যন্ত্রকারীদের একটি অংশ হচ্ছে হেযবুত তওহীদ। যারা ইসলামের ভুল ব্যাখ্যা দিয়ে ধর্মপ্রামন মানুষকে ভুল পথে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছে। ইসলামি আন্দোলন বাংলাদেশ এবং স্থানীয় ধর্মপ্রান মানুষ সবসময় এদের প্রতিরোধের চেষ্টা করেছে।
এরই অংশ হিসেবে গত দুই বছর ধরে চরকাউয়া ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের চরকাউয়া গ্রামে প্রকাশ্যে অপকার্যক্রম পরিচালনা করে। এসময় স্থানীয় ইমাম, মোয়াজ্জেমদের নেতৃত্বে ধর্ম প্রান জনসাধারন বন্দর থানা পুলিশকে অবহিত করে। তখন থানা পুলিশ নারী ও যুবককে আটক করে থানায় নিয়ে যায়। এক পর্যায় পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে আটক হওয়া হেযবুত তওহীদের দুই সদস্য নিজের ভুল স্বীকার করে মুচলেকা দিয়ে মুক্তি পায়। ঠিক একই ঘটনা ঘটেছে গত ৪ মে শুক্রবার সকাল ৯টায় সাহেবের হাট এলাকায়। পবিত্র ইসলামের ভুল ব্যাখ্যা ও ধর্মীয় অনুভুতিতে আঘাত করে পূর্বের থেকেও কু-রুচি পূর্ণ অশ্লীল বেহায়াপনামূলক অপব্যাখ্যা দিতে থাকে। এসময় স্থানীয় ধর্মপ্রান মানুষ হেযবুত তওহীদ এর চার নারী সদস্যকে আটক করে পুলিশের হাতে তুলে দেয়।
সংবাদ সম্মেলনে বিভিন্ন অভিযোগের পাশাপাশি ইসলামি আন্দোলন বাংলাদেশ এর নেতৃবৃন্দ বলেন, গত সোমবার তথা কথিত হেযবুত তওহীদ যেই সংবাদিক সম্মেলন করেছে তা বাস্তবতার সাথে কোন মিল নেই। তারা যে মিথ্যাচার ও বিভ্রান্ত মূলক তথ্য পরিবেশন করেছে তার তিব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান। একই সাথে হেযবুত তওহীদকে জঙ্গি সংগঠন হিসেবে আখ্যায়িত করে সংগঠনটির কার্যক্রম বন্ধের জোর দাবী জানানো হয় প্রশাসন সহ সরকারের নিকট। অন্যথায় ধর্মপ্রান মুসলাম এবং পবিত্র ইসলাম রক্ষায় কঠোর আন্দোলন গড়ে তোলার হুশিয়ারী দিয়েছেন ইসলামি আন্দোলন বাংলাদেশ এর নেতৃবৃন্দ। পাশাপাশি তাদের দাবী তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী, জেলা প্রশাসক, পুলিশ কমিশনার, বিভাগীয় কমিশনার ও ডিআইজি বরাবর স্মারকলিপি প্রদান কর্মসূচি গ্রহনের কথাও জানিয়েছেন তারা। সংবাদ সম্মেলনে ইসলামি আন্দোলন বাংলাদেশ বন্দর থানার নেতৃবৃন্দ ছাড়াও জেলা ও মহানগর কমিটির নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
এদিকে সংবাদ সম্মেলনে ইসলামি আন্দোলন বাংলাদেশ এর করা অভিযোগগুলো বানোয়াট ও মিথ্যা। এক লিখিত বক্তব্যে সংগঠনটির পক্ষে রুহুল আমিন মৃধা বলেন, একটি সংগঠনকে কোনো নির্দিষ্ট দেশ বা জাতির এজেন্ট হিসাবে আখ্যায়িত করার জন্য অবশ্যই কোনো সরকারী বা বেসরকারী সংস্থার তথ্য ও দলিলভিত্তিক প্রমাণ থাকা অপরিহার্য। কিন্তু হেযবুত তওহীদের বিরুদ্ধে এমন কোনো প্রমাণ বা দলিল ইসলামি আন্দোলন দেখাতে পারবে না। তাহলে কীসের ভিত্তিতে সংবাদ সম্মেলন করে এমন মিথ্যা কথা তারা প্রচার করতে পারে এমন প্রশ্ন তুলে সংগঠনটি দাবী করে বলেন, আমাদের বিরুদ্ধে একটি স্বার্থান্বেষী ধর্ম ব্যবসায়ী গোষ্ঠী উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে জনমনে বিভ্রান্তি সৃষ্টির জন্য এই অপপ্রচার চালাচ্ছে। ইসলামি আন্দোলনের দেয়া বক্তব্যের প্রমাণও দারি করেন তারা।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০৩১  




মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT