নগরীতে টিসিবি'র পণ্য বিক্রি শুরু ॥ ডিলারদের আগ্রহ নেই | | ajkerparibartan.com নগরীতে টিসিবি’র পণ্য বিক্রি শুরু ॥ ডিলারদের আগ্রহ নেই – ajkerparibartan.com
নগরীতে টিসিবি’র পণ্য বিক্রি শুরু ॥ ডিলারদের আগ্রহ নেই

5:44 pm , May 6, 2018

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ রমজানে সিন্ডিকেট নিয়ন্ত্রন ও বাজারমূল্য স্থিতিশীল রাখতে খোলাবাজারে সাশ্রয়ী দরে পণ্যসামগ্রী বিক্রি শুরু করেছে ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশ (টিসিবি)। তবে লোকসানের অজুহাত সামনে এনে ডিলাররা পণ্য উত্তোলন না করায় টিসিবি নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় গতকাল রোববার থেকে এই কার্যক্রম শুরু করেছে। ডিলাররা যতদিন পন্য উত্তোলন না করবে ততদিন নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় ন্যায্য মূল্যে পণ্য বিক্রি কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে বলে জানিয়েছেন টিসিসি’র বরিশাল জোনের অফিস প্রধান হাওলাদার মাসুদ।
তিনি জানান, বাজার সিন্ডিকেট প্রতিরোধে সরকার বানিজ্য মন্ত্রনালয়ের আওতায় দেশব্যাপী ট্রেডিং কর্পোরেশন অব বালাদেশ’র (টিসিবি) মাধ্যমে ভোক্তাদের মাঝে ন্যায্য মূল্যে পণ্য সামগ্রী বিক্রি’র কার্যক্রম শুরু করে। সারা দেশের ন্যায় বরিশালের ৬টি সহ মোট ৮টি জেলা নিয়ে কার্যক্রম শুরু করে বরিশাল আঞ্চলিক কার্যালয়। মহানগরী সহ মোট ৮টি জেলার ভোক্তাদের মাঝে ন্যায্যমূল্যে পণ্যসামগ্রী পৌছে দিতে ডিলার নিয়োগ দেয়া হয়। বর্তমানে বরিশাল জোনে মোট ১২৩ জন নিয়োগপ্রাপ্ত ডিলার রয়েছে টিসিবি’র। যার মধ্যে মহানগরীতে ৩৯ জন।
এদিকে টিসিবি সূত্রে জানিয়েছে, রমজানে দ্রব্য মূল্য স্থিতিশিল রাখতে রোববার থেকে দেশব্যাপী টিসিসি’র কার্যক্রম শুরু হয়েছে। নিয়োগপ্রাপ্ত ডিলারদের পণ্য সামগ্রী উত্তোলনের জন্য এরই মধ্যে চিঠি প্রদান করা হয়েছে। তবে বরিশাল জোনের কোন ডিলারই এখন পর্যন্ত পণ্যসামগ্রী উত্তোলনে আগ্রহ প্রকাশ করেনি। যে কারনে মন্ত্রনালয়ের নির্দেশনা অনুযায়ী একটি ট্রাকের মাধ্যমে টিসিবি নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় কার্যক্রম শুরু করেছে। প্রতিদিন সকাল থেকে বিকাল পর্যন্ত নগরীর সিটি কর্পোরেশনের সামনে টিসিবি’র ন্যায্যমূল্যে পণ্য বিক্রয় কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে বলে জানিয়েছেন ওই কর্মকর্তা।
রমজান উপলক্ষে শুরু হওয়া টিসিবি’র কার্যক্রমে ভোক্তাদের জন্য ৫ ধারনের পণ্য সামগ্রী বিক্রি করা হচ্ছে। যার মধ্যে চিনি ৫৫ টাকা, ভোজ্য তেল ৮৫ টাকা, মসুর ডাল ৫৫ টাকা, ছোলা বুট ৭০ টাকা এবং খেজুর ১২০ টাকা করে ভোক্তা মূল্য নির্ধারন করা হয়েছে। অবশ্য মহানগরীর ৫০ গজের বাইরে কেজি প্রতি ১ টাকা করে বেশি মূল্য দিয়ে পণ্য সামগ্রী সরবরাহ করতে পারবে ভোক্তারা।
অপরদিকে বর্তমান বাজার দরের সাথে টিসিবি’র পণ্য মূল্যের তেমন পার্থক্য নেই বলে দাবী করেছেন টিসিবি’র নিয়োগপ্রাপ্ত ডিলাররা। পাইকারী বাজার মূল্য না কমা পর্যন্ত টিসিবি’র পণ্য উত্তোলন সম্ভব নয় বলেও জানিয়েছেন অনেকে। এদের মধ্যে মহানগরী এলাকায় টিসিবি’র ডিলার মো. হাবিবুর রহমান বলেন, টিসিবি যে পণ্য সামগ্রী সরবরাহ করছে তার গুনগত মান ভালো। কিন্তু পাইকারী কিংবা খুচরা বাজারের চেয়ে টিসিসি’র পণ্যের মূল্যের তেমন কোন পার্থক্য নেই। তাই পণ্য উত্তোলন করেননি বলে দাবী করেছেন ওই ডিলার।
মহানগরী এলাকার অপর ডিলার ফারুক আহমেদ বলেন, বাজার মূল্য নিয়ন্ত্রনে রাখতেই মুলত টিসিবি’র কার্যক্রম। কিন্তু এ বছর টিসিবি’র পণ্যসামগ্রীর যে মূল্য নির্ধারন করে দিয়েছে তাতে খুচরা বাজার মূল্যের সাথে তেমন পার্থক্য নেই। যে কারনে অর্থ ব্যায় করে টিসিবি’র পণ্য উত্তোলন করলে লোকশানে পড়তে হবে।
ডিলার মো. লাল মিয়া বলেন, টিসিবি পন্যের দামের সাথে খুচরা বজারের দামের তেমন একটা পাথর্ক্য নেই। গোডাউন থেকে পন্য খালাস করে পরিবহন ব্যয় মজুদ রাখার স্থান এবং দোকান ভাড়া দেয়ার পড়ে আর লাভ থাকবে না। তাই পণ্য উত্তোলনের জন্য আরো কিছুদিন অপেক্ষা করা হচ্ছে বলে জানান তিনি।
এদিকে ডিলাররা লোকসানের অজুহাত দেখালেও বাস্তব চিত্র দেখাগেছে পুরোটাই ভিন্ন। কেননা টিসিবি’র পণ্যসামগ্রীর মূল্য কিছুটা কম এবং মানে উন্নত হওয়ায় বেচাবিক্রি চলছে বলে জানিয়েছেন টিসিবি’র নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় নগর ভবনের সামনে পণ্যসামগ্রী বিক্রি করা সংশ্লিষ্টরা।
তারা জানিয়েছেন, সকাল ১০টার দিকে নগর ভবনের সামনে ট্রাকে টিসিবি’র পণ্য সামগ্রী বিক্রি শুরু করেন। দুপুর ২টার মধ্যেই অর্ধেকের বেশি পণ্য বিক্রি হয়ে গেছে। বিকাল ৩টার দিকে স্থান পরিবর্তন করে ডিভিশনাল কন্ট্রোলার কার্যালয়ের সামনে যান। বিকাল ৫টার পূর্বের ট্রাকে থাকা সকল পণ্যসামগ্রী বিক্রি হয়ে গেছে বলে জানিয়েছেন তারা। অবশ্য টিসিবি’র মূল্য আরেকটু কম হলে এর চাহিদা আরো বৃদ্ধি পেতো বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।
টিসিবি’র বরিশাল অঞ্চল কার্যালয়ের প্রধান হাওলাদার মাসুদ জানান, ডিলাররা খুচরা বাজারের সাথে টিসিবি’র মূল্যের পার্থক্যের যে বিষয়টি তুলে ধরেছেন তা জেলা প্রশাসক সহ মন্ত্রনালয়ের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের অবহিত করা হয়েছে। তাদের সাথে আলোচনা সাপেক্ষে পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। এর আগ পর্যন্ত নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় টিসিবি পণ্যসামগ্রী বিক্রি কার্যক্রম চালিয়ে যাবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০৩১  




মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT