কোন লোকজনকে রাস্তায় বরদাস্ত করা হবে না –পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী | | ajkerparibartan.com কোন লোকজনকে রাস্তায় বরদাস্ত করা হবে না –পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী – ajkerparibartan.com
কোন লোকজনকে রাস্তায় বরদাস্ত করা হবে না –পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী

2:59 pm , March 25, 2020

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী কর্ণেল অব জাহিদ ফারুক শামীম এমপি বলেছেন, করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলায় জেলা প্রশাসন ও বিভাগীয় প্রশাসনের সাথে বিভিন্ন পদক্ষেপের বিষয়ে আলোচনা করা হয়েছে। বর্তমানে বিভাগে করোনার পরিস্থিতি বোঝার জন্য বিভাগীয় সকল কর্মকর্তাদের নিয়ে সভা করা হয়েছে। গতকাল ঢাকা থেকে এসে পানিসম্পদ মন্ত্রী পানি উন্নয়ন বোর্ডের ডাক বাংলাতে সভা শেষে সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে দিক নির্দেশনা মূলক বক্তব্য দেন। এসময় তিনি আরও বলেন এর আগেও নগর বাসীকে করোনা প্রতিরোধের বিভিন্ন সরঞ্জাম দেয়া হয়েছে। কিন্তু গতকাল সরকারী ছুটি ঘোষনার পর যে পরিমান লোক বিভাগে প্রবেশ করেছে ঈদেও এত লোক বিভাগে আসেনি। এটি একটি ভয়ের ব্যাপার বলেন তিনি। কারন এখন করোনা ভাইরাস আরও বেশি বিস্তার লাভ করবে। এখন এ পরিস্থিতির মোকাবেলার জন্য সকলকে আরও কঠোর অবস্থানে যেতে হবে জানিয়ে পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী বলেন, কোন লোকজনকে আজ থেকে রাস্তায় বরদাস্ত করা হবে না। খুব প্রয়োজন ছাড়া কাউকে ঘর থেকে বের হতে নিষেধ করেন তিনি। শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজে করোনা রোগীর জন্য যে ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়েছে তা অপর্যাপ্ত হলে নগরীর এ্যাপোলো হসপিটালকে করোনা রোগিদের জন্য চিকিৎসা কেন্দ্র হিসেবে তৈরি করা হয়েছে বলেন তিনি। এখানে ২০০ রোগী চিকিৎসা নিতে পারবে। শুধু নগরীতেই নয় উপজেলা গুলোতেও স্থানীয় ভাবে চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হবে। কর্ণেল জাহিদ ফারুক শামীম বলেন শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ এর পরিচালকের সাথে ডাক্তারদের রোগীদের চিকিৎসার বিষয়ে আরও বেশী তৎপর হওয়ার বিষয়ে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। তিনি বলেন বর্তমানে আমাদের করোনা রোগী সনাক্ত করার জন্য যে পরিমান কিট আছে তাতে এক সপ্তাহ চলবে। ইতিমধ্যে ঢাকায় লোক পাঠানো হয়েছে বাড়তি রোগীর চাপ পড়লে যাতে করে কিটের অভাব না হয়। আরও ৭হাজার মাস্ক এর অর্ডার দেয়া হয়েছে। একই সাথে ৪ হাজার হ্যান্ড স্যানেটাইজার আনা হচ্ছে। আগামী ২৭-২৮ তারিখের মধ্যে এই সরঞ্জাম গুলো এসে পৌছাবে যা জনসাধারনের মধ্যে বিতরন করা হবে। এ সময় পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী জনগনের উদ্দেশ্যে বলেন, খামখেয়ালি পনা বন্ধ করতে হবে। সবাইকে সচেতন হতে হবে। নিজের ভালোর কথা চিন্তা করতে হবে। পরিবারের কথা চিন্তা করতে হবে। আমরা যদি এখনি সচেতন না হই তবে ভবিষ্যতে সকল কর্মকান্ড বন্ধ হয়ে যাবে বলে হুশিয়ারি দেন প্রতিমন্ত্রী। বর্তমান পরিস্থিতি যত তাড়াতাড়ি সামলানো যাবে ততই ভালো বলেন তিনি। বরিশালে করোনা ভাইরাস এর পরিক্ষাগার দেওয়ার প্রক্রিয়া চলছে বলে জানান তিনি। এ বিষয়ে মন্ত্রীসভায় প্রস্তাব রেখেছেন। সর্বশেষ প্রতিমন্ত্রী বলেন ঢাকা থেকে যারা এসেছে তাদের নিজেদের বাড়িতে অবস্থান করার আহবান জানান। একই সাথে তাদের তত্ত্বাবধানে পুলিশ প্রশাসনকে সক্রিয় থাকার নির্দেশনা দেন তিনি। সাংবাদিকদের সাথে আলোচনার পূর্বে অনুষ্ঠিত সভায় উপস্থিত ছিলেন মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার মো. শাহাবুদ্দিন খান বিপিএম বার, জেলা প্রশাসক এসএম অজিয়র রহমান, জেলা পুলিশ সুপার মো. সাইফুল ইসলাম, র‌্যাবের প্রতিনিধি মো. জাহাঙ্গির, শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজের পরিচালক ডাঃ মো. বাকির হোসেন প্রমুখ।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ




মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT